Home রংপুর

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃবর্তমান করোনাকালীন সময়ে দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বৃহস্পতিবার সকালে নীলফামারীর জলঢাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে শিক্ষার্থীদের খোজখবর নিয়ে তাদের হাতে বিস্কুট তুলে দিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার নুর মোহাম্মদ। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন,

নীলফামারী জেলা আরডিআরএস বাংলাদেশ প্রোগ্রমের মনিটরিং এন্ড রিপোর্টিং অফিসার সোহেল রানা, জলঢাকা ফিল্ড মনিটরিং অফিসার মনোয়ার হোসেন ও চন্দনা রানী নায়েক, পথকলি শিশু নিকেতন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লক্ষি রানী রায়, সহকারী শিক্ষক অাব্দুল মালেক, লাভলী বেগম, অাসমা উল হাসনা ও মৌসুমী আক্তার প্রমুখ।

পৌরসভা সহ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের প্রাথমিক পর্যায়ের ২৪৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪৭ হাজার ২ শত ৫২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রতিজনকে অাগস্ট হতে সেপ্টেম্বর, দু’মাসের ৪০ প্যাকেট করে বিস্কুট বিতরণ করা হবে। এবিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার জানান,

আমরা ইতি মধ্যে অনলাইন ক্লাস চালু করে দিয়েছি যা দেখে বচ্ছারা হাতের লেখা লিখতে পারে।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃগাইবান্ধার ১৫০ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় দুস্থ পরিবারের মাঝে “দি মেসেজ ফাউন্ডেশন” এর উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে গাইবান্ধার জেলার ফুলছড়ি উপজেলার যমুনা নদীর বাইংকার চর এলাকার নদীভাঙ্গন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত দেড় শতাধিক পরিবারের মাঝে এসব শুকনো খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

খাদ্য সামগ্রী গুলোর মধ্যে ছিল, চাল, ডাল, তেল, আলু, লবন, চিড়া, মুড়ি, পাউরুটি, বিস্কুট ও চিনি। বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দি মেসেজ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শাইখ সাইফুল ইসলাম খান মাদানী।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ফাউন্ডেশনের সিইও ডাঃ আনোয়ার হোসেন, শাইখ শরিফুল ইসলাম মাদানী, দায়িঃ আল খোবার ইসলামীক সেন্টার (দাম্মাম) সৌদি আরব, সাংবাদীক জাহিদ, জাহাঙ্গীর আলম সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

এছাড়াও জলঢাকা উপজেলার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ৫০ প্যাকেট বিতরণের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে নারী উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় দিনব্যাপী বিনামূল্যে দর্জি প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে রোববার সকালে উপজেলার ধর্মপাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হলরুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের প্রধান সমন্বয়ক এনামুল হক, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী,

ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশন সনাতন সম্প্রীতি সংঘের সভাপতি রঞ্জিৎ কুমার রায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশন চেতনায় মুক্তিযোদ্ধ সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান প্রামাণিক প্রমুখ।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় একটি সেতুর অভাবে ৩০ গ্রামের মানুষ হচ্ছে চরম দুর্ভোগের শিকার।চরে বসবাসকারী পরিবারে কেউ অসুস্থ হলে চিকিৎসার জন্য অটোরিক্সা পেতে রোগীকে স্বজনদের কাধে করে হেটে নিয়ে যেতে হয় কমপক্ষে ৮/১০ কিলোমিটার।
উপজেলার তিস্তার তীরবর্তী ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া বুড়ি তিস্তা নদীর নেকবক্ত মন্থনা ঘাটে সেতু না থাকায় যুগ যুগ ধরে দূর্ভোগের শিকার হন ওই ইউনিয়নটির চর এলাকার ২০ থেকে ৩০ টি গ্রামের হাজার – হাজার পরিবারের মানুষ। শুধু ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের চরবাসিরাই নয়, পার্শবর্তী হাতীবান্ধার চরবাসিদেরও জলঢাকার সাথে খুব সহজেই যোগাযোগের একমাত্র পথ
ওই মন্থনার ঘাট। উপজেলার ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের নেকবক্ত বাজার হতে হাব কিলোমিটার পূর্বদিকে মন্থনা ঘাটে বুড়িতিস্তা নদীর উপর একটি সেতুর অভাবে স্বাস্থ্য চিকিৎসা ক্ষেত্রে সেখানকার মানুষের যেন দূর্ভোগের শেষ নেই। নির্বাচন আসলে প্রার্থীরা রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট সহ এলাকার উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিলেও বছরের পর বছর চলে যায়,
কিন্তু তাদের ভাগ্য আর পরিবর্তন হয়না।
স্থায়ীভাবে সেতু না থাকায় ওই অঞ্চলের মানুষ বর্ষার সময়ে নৌকা, আর শুষ্ক মৌসুমে কাঠ বা বাশের সেতুর উপর দিয়ে পারাপার হন টোল দিয়ে। তাছাড়া সেখানে নেই কোন চলাচলের জন্য যানবাহন ব্যবস্থা, হাসপাতাল, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ, বাজার, বিপনি বিতান সহ সকল ধরনের নাগরিক সুবিধা।

ফলে কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়েছে তাদের চলাচল ও জীবন – জীবিকা। বলা যায় ওই এলাকার মানুষের জীবন যাত্রার মান চলছে প্রায় বৃটিশ ও আদি যুগের মতোই। গতকাল শুক্রবার সকালে তিস্তা পাড়ে গেলে, চরভরট এলাকার আব্দুল করিম, খচরু মামুদ, জামুদ্দি, সবুর মিয়া, আলমগীর হোসেন ও আরিফ জানায়, সেই ছোট বেলা থেকেই দেখে চলছি এই দুর্ভোগ।

ভবিষ্যতে এই দুর্ভোগ দুর হবে বলে আমাদের বিশ্বাস হয়না। এখানে মেম্বার, চেয়ারম্যান এমনকি এমপিও এসে সেতু নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ঠিকই, কিন্তু বাস্তবায়ন আর হয় না। ফলে চরবাসিদের মধ্যে কেউ অসুস্থ হলে তাকে কাদে করে ৮/১০ কিলো হেটে নেকবক্ত বাজারে এসে অটো অথবা রিক্সাভ্যান নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যেতে হয়। নির্বাচন এলে আমাদের মত অসহায় মানুষদের সবাই ভোটের জন্য অনেক প্রতিশ্রুতি দেয়।

কিন্তু ভোট বের হলে কেউ আর মনে রাখেন না আমাদের দুর্ভোগ দুর্দশার কথা। সরকার আসে এবং যায়, কিন্তু দুর হয়না আমাদের এই দূর্ভোগ। নদী সংলগ্ন এলাকা গুলোতে ভাংগা গড়ার মাধ্যমে চরে গড়ে উঠেছে অনেক জনপদ। এ নদীকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা এসব জনপদ সহ আশপাশের কৃষকেরা শত শত হেক্টর জমিতে ধান, পাট, গম, ভুট্টা, কাউন, মিষ্টি কুমড়া আখ এবং শাক সবজি সহ নানান জাতের ফসল উৎপাদনে বিপ্লব ঘটালেও নেই তাদের ভাল কোন যোগাযোগ ব্যবস্থা।

চরবাসিরা তাদের ভাগ্য পরিবর্তনে তাদের উৎপাদিত ফসল দিয়ে নিজেদের চাহিদা পুরাণের পাশাপাশি বিক্রির জন্য নিকটস্থ নেকবক্ত বাজার ও জলঢাকা উপজেলা শহর সহ দক্ষিণের বড়বড় শহরে যেতে হয়। বর্ষায় নৌকায় আর শুষ্ক মৌষুমে টোল দিয়ে বাশের সেতু দিয়ে মাথায় ও ঘারে করে নদী পার হতে হয় তদের।

এক কথায় নিভে যাচ্ছে বিপুল উন্নয়ন সম্ভাবনার প্রানের স্পন্দন জলঢাকার ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নে তিস্তা ও বুড়ি তিস্তা নদীর উপর দুটি ব্রীজের অভাবে। এলাকা বাসীর অভিযোগ, স্বাধীনতার দীর্ঘদিনেও তাদের প্রানের দাবী মন্থনার ঘাটে সেতু নির্মাণের ওয়াদা রাখেননি কেউ। ওই ঘাটে একটি সেতুর জন্য এমপি মন্ত্রীদের কাছে অনেক ধরনা দিচ্ছেন তারা কথা দেন, কিন্তু কথা রাখেন না।

তাই দুর্ভোগ এরাতে বুড়িতিস্তা নদীর উপর এই সেতু নির্মাণ এখন এলাকাবাসীর প্রাণের দাবী। ইউনিয়ন পরিষদ সুত্র জানান এই ব্রীজের নির্মান সংক্রান্ত সকল বিষয় একনেকে পাশ হওয়ার পর তা কাজ শুরুর চুুরান্ত অনুমোোদনের জন্য ফাইল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় ও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে আছে ওনাদের চুরান্ত অনুমোদোন পাওয়ার পরে কাজ শুরু করবে ঠিকাদার।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রতি উপজেলা হতে বছরে গড়ে এক হাজার দক্ষ যুব ও যুব মহিলাকে বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজন ও প্রবাসী কল্যাণ এবং বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্রালয়ের সহযোগিতায় এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী – ৩ আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রানা মোহাম্মদ সোহেল।
এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে বক্তব্য রাখেন,
উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম পাশা এলিচ,
মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম, উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব অধ্যাপক মমিনুল ইসলাম মঞ্জু, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষাকর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) এর অধ্যক্ষ জিয়াউর রহমান, প্রশিক্ষণ ইনচার্জ মাজেদুর রহমান, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক মাহবুবর রহমান মনি ও পৌরসভার সাবেক মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু ও ইন্সপেক্টর নুর হাসান প্রমুখ।
পরে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ঘোষিত প্রতি উপজেলা হতে বছরে এক হাজার দক্ষ যুব ও যুব মহিলাকে বিদেশে কর্মসংস্থানের জন্য পাঠানো হবে। তাদের যেন নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত হয় সে লক্ষে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। সেমিনারে বিভাগীয় কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃলালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা সানিয়াজান ও গুড্ডিমারী ইউনিয়নের তিস্তা নদীভাঙ্গন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত শতাধিক পরিবারকে ভারী খাদ্য ও শুকনা খাবার সহায়তা প্রদাণ করেছে “দি মেসেজ ফাউন্ডেশন”।

শনিবার দুপুরে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, লালমনিরহাট জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুহাঃ রাশেদুল হক প্রধান। এসময় উপস্থিত ছিলেন,হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সামিউল আমিন, দি মেসেজ ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম খান মাদানী, সিইও আনোয়ার হোসেন,

লালমনিরহাট জেলা পরিষদ সদস্য এরশাদুল্লাহ শাকিব, সানিয়াজান ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর, গুড্ডিমারী ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আজীজ,

মাওঃ আবু জাফর সালেহ্ আবুল কাশেম, সবুজ সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

0 0

পঞ্চগড় সদর উপজেলায় বাবার চিকিৎসার খরচ ও সংসার চালানোর জন্য আকলিমা আক্তার নামে ভিক্ষাবৃত্তি করা সেই শিশুর পরিবারকে আর্থিক সহায়তা ও দুটি ভ্যান গাড়ি উপহার দিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ।

শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পঞ্চগড় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকায় শিশু আকলিমা ও তার বাবা বৃদ্ধ হেলালের হাতে নগদ অর্থ ও ভ্যানগাড়ি তুলে দেন পঞ্চগড় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত সম্রাট।

জানা যায়, শিশু আকলিমা আক্তার তার অসুস্থ বাবার চিকিৎসার খরচ ও সংসার চালালোর জন্য জেলা শহরের বিভিন্ন অলিগলিতে ভিক্ষাবৃত্তি করতো এবং সারাদিন ওই শিশুটি যা পেতো তা দিয়ে তার বাবার ঔষুধ ও তাদের পরিবার চলতো। গতকয়েক দিন ধরে তাকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলে বিষয়টি বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদের দৃষ্টিগোচর হলে তিনি ওই অসহায় পরিবারের আর্থিক সহায়তা হিসাবে দুটি ভ্যান গাড়ি ও নগদ অর্থ উপহার দেন এবং সেই ভ্যানগাড়িগুলো তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, পঞ্চগড় জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্বাস আলী,প্রচার সম্পাদক দীপেন চন্দ্র, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক জাকির হোসেন, ধাক্কামারা ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি ও সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলামসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা। আকলিমা ও তার বাবা মো. হেলাল জানান, আমরা দুটি ভ্যান ও নগদ টাকা পেয়ে অনেক খুশি। আমরা তথ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

পঞ্চগড় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত সম্রাট জানান, আকলিমা নামে ওই শিশুটি তার বাবার চিকিৎসার জন্য ভিক্ষাবৃত্তি করতো।

বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তথ্যমন্ত্রী ডা. হাসান মাহমুদের দৃষ্টিগোচর হলে তিনি অসহায় পরিবারটির জন্য নগদ অর্থ ও পরিবারটি আর্থিকভাবে সচ্ছলের কারণে দুটি ভ্যানগাড়ি উপহার হিসেবে পাঠালে আজ শনিবার দুপুরে ওই পরিবারের হাতে তুলে দেই এবং তাদের বসবাসের জন্য সরকারি ঘরের ব্যবস্থা করা হবে।

স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে হামলা ও বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে।
আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে খোকনের অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।
জলঢাকা থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার খুটামারা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড কিসামত বটতলার কুটিপাড়া নামক গ্রামে। জানা যায়, ওই এলাকার রেজাউল মাস্টার ও তার প্রতিবেশী দেলোয়ার হোসেন দুলু দু পরিবারের মধ্যে ভিটেমাটির ৬ শতক জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল।
এ নিয়ে বেশ কয়েকবার গ্রাম্য শালিস হয়। তাকে জমির রায় পাওয়ায় রেজাউল পরিবার ওই জমিতে ঘর নির্মাণ করতে গেলে প্রতিপক্ষরা দলবদ্ধ হয়ে তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটায়।
প্রত্যক্ষদর্শী, সোহেল রানা, শাহীন আলম, নুর হক, জামিয়ার রহমান, নয়ন ও রাজা মিয়া বলেন, দুলুর পক্ষে সাজু, আরিফ ও মোজাহারুল সহ বেশ কয়েকজন দলবদ্ধ হয়ে রেজাউল মাস্টার ও তার ভাই খোকন এবং মাজেদার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা চালায়।
এতে বেশকয়েকজন আহত হলে তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
এ বিষয়ে খুটামারা ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান জানায়,এদের জমি সংক্রান্ত বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকবার মীমাংসার জন্য বসা হয়েছিল। পরবর্তী আবারও বসার সময় নির্ধারণ করা হলেও তার আগেই এ ঘটনা ঘটে।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই নিসার আলী জানায়, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এসেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জলঢাকা ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের টিম লিডার আব্দুল কাদের জানান, ট্রিপল নাইন (৯৯৯) থেকে খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিভাতে সক্ষম হয়েছি।

0 0

আবেদ আল স্টাফ রিপোর্টারঃ নীলফামারীর জলঢাকায় দি মেসেজ ফাউন্ডেশনের উদ্দোগে সম্প্রতি নদী ভাঙ্গন ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত দুই শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে উপজেলার শৌলমারী ও কৈমারী ইউনিয়নের শৌলমারী বানপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ওইসব পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, শৌলমারী ইউপি চেয়ারম্যান প্রানজিৎ রায় পলাশ, কৈমারী ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল হক বাবু, ”দি মেসেজ ফাউন্ডেশন” এর নির্বাহী পরিচালক ডাঃ আনোয়ার হোসেন, এসআই জাহাঙ্গীর, কৈমারী ইউনিয়ন সচিব মানিক, শৌলমারী ইউপি সচিব সবুজ ও আতিকুল ইসলাম প্রমুখ।

বিতরনকৃত খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল, চাল ১৫ কেজি, আঠা ২ কেজি, তেল ১ লিটার, পিয়াজঁ ২ কেজি চিড়া ১কেজি, প্যাকেট, ২ লবন ১ প্যাকেট, ৩. ট্যা‌ঙ ১০ প্যাকাট, ৪. স্যালাইন ১ প্যাকেট, ৫ গরুর মসলা ৪ প্যাকেট, ৬ মুরগির মসলা ৭ প্যাকেট, ৭ মাছের মসলা ৪ প্যাকেট , ৮. চানাচুর ১ প্যাকেট,

৯ মটর ভাজা ১২ প্যাকেট, ১০. ইসবগুল ২ প্যাকেট, ১১ বাটার টোস্ট ২ প্যাকেট, ১২. টুইন ক্রাঞ্চ ১০ টি।

0 0

চুরির ঘটনা নয়, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ইউএনও ওয়াহিদার ওপর পরিকল্পিতভাবে হামলা চালানো হয়েছে বলে মনে করে সরকারি প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন (বিএএসএ)।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির নেতারা বলেছেন, চুরি করতে গিয়ে দেখে ফেলায় নয়, ইউএনও ওয়াহিদার ঘরে হামলাটি ছিল পরিকল্পিত।

গত বুধবার রাতে ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ ক্যাম্পাসের বাসভবনের ভেন্টিলেটর দিয়ে ঢুকে ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীর উপর হামলা চালানো হয়।

হাতুড়ির আঘাতে গুরুতর জখম ওয়াহিদা এখন ঢাকায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
এ ঘটনায় ইউএনওর ভাই শেখ ফরিদ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে একটি মামলা করেন। যুবলীগের স্থানীয় এক নেতাসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার র‌্যাব জানায়, চুরির উদ্দেশ্যে ওয়াহিদা বাড়িতে ঢুকে ওই হামলায় আসাদুল হক নামে একজন, তার সহযোগী ছিলেন নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমার বিশ্বাস নামে বাকি দুজন।

সংবাদ সম্মেলনে হেলালুদ্দীন বলেন, কোনো কোনো মহল ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য বিচ্ছিন্ন ও চুরির ঘটনা বলে চালিয়ে দেওয়ার অপপ্রচার চালাচ্ছেন।

তিনি বলেন, অ্যাসোসিয়েশন মনে করে, এটি কোনো চুরির ঘটনা নয়। কারণ দুর্বৃত্তরা কোনো প্রকার জিনিস চুরি করেন বা খোয়া যায়নি। এটি একটি পরিকল্পিত আক্রমণের ঘটনা এবং এর সাথে আরও অনেক ব্যক্তি জড়িত থাকতে পারে।

ওয়াহিদাকে ‘সৎ ও নির্ভীক কর্মকর্তা’ অভিহিত করে সচিব হেলালুদ্দীন বলেন, বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী মহল বেআইনি তদবিরে ব্যর্থ হয়ে প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। বিষয়টি সঠিকভাবে তদন্ত হলে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে।