Home রংপুর

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃ

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়ে পৌরশহরের মাথাভাঙ্গা এলাকায় হরিজন পল্লী জনগোষ্ঠীর খোজখবর নেন ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাবেক প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ।

ফাউন্ডেশনে কর্মরত সকলকে সাথে নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকাদান কেন্দ্রে গিয়ে করোনার ভ্যাকসিন নিয়েছেন।ভ্যাকসিন গ্রহণ শেষে বাংলাদেশের মানুষের জন্য এতো দ্রুত সময়ের মধ্যে করোনা ভ্যাকসিন ব্যবস্থা করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ বলেছেন,

সারাবিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে এই টিকার কোন বিকল্প নেই।আলহামদুলিল্লাহ, আমি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিয়েছি, আল্লাহ রহমতে ভালো আছি। আর বিলম্ব না করে আপনারাও নিয়ে নিন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবু হাসান মোঃ রেজওয়ানুল কবীর ও ডাঃ মেজবাউল, ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের প্রধান সমন্নয়ক এনামুল হক ও সাংবাদিক হাসিবুল ইসলাম মিতু প্রমুখ।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়,

প্রথম পর্যায়ে ১৫ ক্যাটাগরির মানুষের মধ্যে ১১ হাজার ১৪০ ডোজ টিকা প্রদান করা হবে। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার আজ ২৯০ জন নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত প্রায় ৪হাজার ৫’শ জনকে টিকা প্রদান করা হয়েছে।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃ
নীলফামারীর জলঢাকায় তৃতীয় ধাপের অনুষ্ঠিত পৌরসভার নির্বাচনে নবনির্বাচিত
মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু ও সংরক্ষিত এবং সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টায়
স্থানীয় সরকার শাখার আয়োজনে
রংপুর জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টার হলরুমে এই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।
নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ বাক্য পাঠ করান রংপুর বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল ওয়াহাব ভূঞা।
তিনি বলেন, নির্বাচনে জয়পরাজয় থাকবে, কে পক্ষে ভোট করেছে আর কে করেনি সেদিকে কান না দিয়ে এলাকার উন্নয়নের জন্য কাজ করুণ।
একটি আধুনিক পৌরসভা বিনির্মাণে সকলের সহযোগী কামনা করেছেন নবনির্বাচিত পৌর মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জলঢাকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর সহ সকল কাউন্সিলর বৃন্দ।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃএকুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে নীলফামারীর জলঢাকায় বাংলাদেশ তাঁতীলীগের আলোচনা সভায়
প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তার সরকার আমলে উন্নয়নের মহাসড়কে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ।
কেউ একন না খেয়ে থাকে না, মানুষের কর্মসংস্থান, রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট এবং বিদুৎ প্রতিটি মানুষের দোরগোড়া পৌছে গেছে। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে দলে নেতা নয়, আগে কর্মী সৃষ্টি করতে হবে। দলে কর্মী না থাকলে নেতা দিয়ে কি হবে।
তিনি বলেন, সামনে বিজয়ের মাসে অধিকার আদায়ের আন্দোলন করা হবে।
ওইদিন সকল রাজনৈতিক স্বরযন্ত্রের বিষ দাত ভেঙ্গে নতুন করে বিজয় আনতে কর্মীদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন তিনি।
মামা ভাগিনার প্রশ্নে তিনি আরো বলেন,
মামা ভাগিনার নেতৃত্বে জলঢাকা মাটি শেখ হাসিনার ঘাটিতে পরিণত করা হবে।
নবনির্বাচিত মেয়র দায়ীত্ব গ্রহণের পর পৌরশহরকে যানজট মুক্ত রেখে দৃশ্যমান
একটি পরিচ্ছন্ন শহর গড়তে আমরা বদ্ধপরিকর।
সোমবার রাতে থানা মোড় এলাকায়
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে
তাঁতীলীগের আলোচনা সভা ও ভাষা সৈনিক শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।
তাঁতীলীগ উপজেলা সভাপতি হাসানুর রহমান হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভিয় বক্তব্য রাখেন,
জলঢাকা পৌর আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ, উপজেলা আওয়ামীগ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি সালাউদ্দিন কাদের,
উপজেলা বঙ্গবন্ধু প্রজন্মলীগ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান হিট্টু, পৌর যুবলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান পিকু ও
উপজেলা তাঁতীলীগের সাধারণ সম্পাদক, আক্তারুজ্জামান শামিম প্রমুখ।
আলোচনা সভা শেষে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের শহীদের জন্য বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন থানা ঈমাম হাফেজ নুরুল্যাহ।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃ নীলফামারীর জলঢাকায় ওমর একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালিত। দিবসের প্রথম প্রহরে উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান ভাষা সৈনিক ও শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা ও থানা প্রশাসন এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদ।

পরে পর্যাক্রমে পৌরসভা ও প্রেসক্লাব সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক – সামাজিক, সমতা (হিজরা) সংঘ এবং শ্রমিক সংগঠনগুলো পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে শহীদদের স্বরণে এক মিনিট নীরাবতা পালন করেছেন।

নীরাবতা শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) সিফাত মোঃ ইশতিয়াক ভুঁইয়া ও নবনির্বাচিত পৌরসভার মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু প্রমুখ।

সকালে উপজেলা পরিষদে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায ভাওয়াইয়া একাডেমীর উদ্যোগে আলোচনা সভা ও
ভাওয়াইয়া গানের আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের টগড়ার ডাঙ্গা ভাওয়াইয়া একাডেমী প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন,
নীলফামারী – ৩ আসনের সংসদ সদস্য মেজর অবঃ রানা মোহাম্মদ সোহেল
ভাওয়াইয়া একাডেমীর সভাপতি শিক্ষাবিদ মুক্তিযুদ্ধা অধ্যাপক আব্দুল গফ্ফারের
সভাপতিত্বে এসময় এলাকার উন্নয়ন এবং গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ভাওয়াইয়া শিল্পীদের নিয়ে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান, থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান, নবনির্বাচিত পৌর মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু, উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব অধ্যাপক মমিনুল ইসলাম মঞ্জু, একাডেমির উপদেষ্টা জাপা নেতা সাইদার রহমান বুলু, আনিছুর রহমান , একাডেমীর পরিচালক আনিছুর রহমান ও
সাধারন সম্পাদক বিনোধ রায় প্রমুখ।
প্রধান অতিথি বলেন ভাওয়াইয়া সহ সকল সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে সামনে এগিয়ে নিতে হবে। পরে প্রধান অতিথি ওই একাডেমীর শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্বল বিতরন করে ভাওয়াইয়া গান উপভোগ করেন।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ঘর পেয়ে দোয়া করে মিষ্টি বিতরণ করেছেন সুবিধাভোগী পরিবার। নীলফামারীর জলঢাকায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া উপহার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ প্রকল্পের নির্মাণাধীন ঘর পরিদর্শন করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে উপজেলার মীরগঞ্জ ও ধর্মপাল ইউনিয়নে নির্মিত এসব ঘর পরিদর্শনে যান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ – ২ প্রকল্পের ডিপুটি প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার আনোয়ার রহমান স্বাধীন ও উপ সহকারী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের উপ প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান হাফিজ, ইউপি চেয়ারম্যান হুকুম আলী ও জামিনুর রহমান।

কথা হয় সেখানের সুবিধাভোগী জামান, মকবুল, আজিজ, গোলাপী, লালবি বেগম ও আমিনা বেগমের সাথে। তারা জানায়, জীবনে কোনদিন কল্পনাও করি নাই হামা পাকা ঘরে থাকমো।জায়গা জমি ঘরবাড়ি কিছুই ছিলনা।

শেখ হাসিনা হামার ঘরবাড়ি করি দিছে তার জন্যে সারাজীবন দোয়া করমো।যেন যুগযুগ ধরে ক্ষমতায় থাকে।তবে, আশ্রয়ণ গুলোতে টিউবওয়েল না থাকায় পানি সমস্যা ধমাধানের দাবি জানিয়েছেন সুবিধাভোগীরা।

ইউএনও বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা আজকে দেশের প্রধানমন্ত্রী না হলে গৃহহীন অসহায় এই পরিবারগুলো হয়তো এমন সুযোগ – সুবিধা পেতনা।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় মামলা সংক্রান্ত জটিলতায় এক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪২ শিক্ষক কর্মচারীর ৮ মাস ধরে বেতন বন্ধ থাকায় মানবেতর জীবনযাপন চলছে তাদের পরিবারে। এ প্রতিষ্ঠানটি হচ্ছে উপজেলার মীরগঞ্জহাট কলেজ। জানা গেছে, ওই কলেজেটিতে একই পদে ২জন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের নানান জটিলতার কারনে তারা এই বেতন ভাতা থেকে বঞ্চিত রয়েছে।

এনিয়ে মামলা মোকদ্দমা হাইকোর্ট পর্যন্ত গড়িয়েছে এবং হাইকোর্টের রায়ে সিনিয়র শিক্ষক আব্দুস সাত্তারকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে বেতন বিলের স্বাক্ষরে আদেশ প্রদান করেছেন। কিন্তু প্রতিপক্ষের আপিলের কারনে বেতন-ভাতা বন্ধ আছে। কলেজটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুস সাত্তার জানায়,

৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০ সালে আমাকে সিনিয়র অব দ্যা মোষ্ট হিসেবে সরকারি বিধি অনুযায়ী এবং রেজুলেশনের মাধ্যমে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দিয়েছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিয়োগ প্রাপ্ত গভর্নিং বডির সভাপতি সহ সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যরা। সাবেক অধ্যক্ষ বজলুর রহমান অসুস্থ থাকাকালীণ সময়ে ৩দিনের জন্য ১৪ নং কম্পিউটার শিক্ষক আবুজার রহমানকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দিয়েছিলেন যা নিয়মবহির্ভূত।

যেখানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধানে উল্লেখ রয়েছে, কলেজের অধ্যক্ষের পদ শুন্য হইলে/অধ্যক্ষের অবর্তমানে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে জেষ্ঠ্যতম ৫ (পাঁচ) জন শিক্ষকের মধ্য হতে যেকোন একজনকে দায়িত্ব প্রদান করতে হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, অধ্যক্ষের শূণ্যতায় জেষ্ঠ্যতমকেই ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দিতে হবে।

কিন্তু, কি করে জেষ্ঠ্যকে বাদ দিয়ে ১৪ নং জুনিয়র কম্পিউটার শিক্ষককে ভারপ্রাপ্তের দায়িত্ব প্রদান করা হয়? মীরগঞ্জহাট কলেজের প্রদর্শক রেজাউল ইসলাম ও ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী ছবিল হোসেন জানান, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের জটিলতার কারনে ৮ মাস ধরে আমরা বেতন পাচ্ছি না। পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। তাদের মতো কলেজটি হিসাবরক্ষর ফজলুর রহমান, প্রভাষক রফিকুল ইসলাম, ফরিদুজ্জামান,

মিজানুর রহমান, মোসলেম উদ্দিনসহ অনেকে জানিয়েছেন তাদের বেতন না পাওয়া ও পরিবারের কষ্টের কথা। ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দাবিদার আবুজার রহমান বলেন, বিল প্রদানে যা হবে সেটাই আমি চাই। বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর হামিদুল হক জানান, মীরগঞ্জহাট কলেজে কর্মরত শিক্ষক-কর্মারীদের ৮ মাস ধরে বেতন-ভাতাদির সরকারি অংশ না পাওয়ায় তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে।

এদের পরিবারের কথা বিবেচনা করে কতর্ৃপক্ষ বিশেষ করে ইউএনও মহোদয় বিষয়টি নিষ্পত্তি করে বেতন ভাতাদি প্রদানের ব্যবস্থা করতে পারেন। ইতোপুর্বেও এমন ঘটনায় এই প্রতিষ্ঠানে ইউএনও মহোদয় ৬ মাসের বেতন-ভাতা প্রদান করেছেন।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব হাসান বলেন, মামলা জটিলতার কারনে বেতন-ভাতাদি দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। আইনি জটিলতা কাটলে আমরা বেতন দিতে প্রস্তুত।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় উৎসবমূখর পরিবেশে বহুল কাঙ্খিত করোনা ভাইরাসের টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রথমদিন টিকা নিয়েছেন ৩০ জন। এদের মধ্যে ৪জন নারী। রোববার সকাল ১১টায় জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রমের শুভ সূচনা হয়।

এসময় একে একে টিকা গ্রহণ করেন স্বাস্থ্যকর্মী, ডাক্তার, পুলিশ, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ নিবন্ধনকৃত ব্যক্তিরা। টিকাদান কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান, থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এ.এইচ.এম রেজওয়ানুল কবির, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিকসহ বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

প্রথমে ডাক্তার মেজবাহুর রহমান করোনার টিকা গ্রহণের মাধ্যমে এ কর্মসূচির শুভ সূচনা করা হয়।

এরপরে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক, ওসি (তদন্ত) ফজলুর রহমান টীকা গ্রহণ করে টীকা কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। পরে একে একে টীকা গ্রহণ করেন নিবন্ধনকৃত ব্যক্তিরা। স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জলঢাকা উপজেলার জন্য বরাদ্দকৃত করোনার টীকা ১১ হাজার ১১৪ ডোজ।

এরমধ্যে প্রথম দিন টীকা গ্রহণ করেছেন ৩০ জন। টীকা গ্রহণকারী সরকারী কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, এখন পর্যন্ত ভালো আছি। কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হচ্ছে কিনা? জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেরকম কিছু অনুভব হচ্ছে না। তিনি সকলকে টীকা গ্রহণ করার জন্য আহবান জানান।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এ.এইচ.এম রেজওয়ানুল কবির জানান, আমাদের বরাদ্দকৃত ১১ হাজার ১১৪ টীকার ডোজ ৫ হাজার ৫৭০ জনের মাঝে প্রয়োগ করা সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, নিবন্ধনকৃত কেউ ভ্যাক্সিনাইজেশন থেকে বাদ পরবে না। এছাড়াও তিনি টীকা গ্রহণকারী ব্যক্তিদের সম্পর্কে বলেন, সকলেই ভালো আছে এবং তাদের মাঝে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃ নীলফামারীর জলঢাকায় আগুনে ঘরবাড়ি
পুড়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে
চ্যারিটেবল গ্রুপ “মা কেয়ার ফাুউন্ডেশন” এর ঢেউটিন ও ছাগল বিতরণ করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া প্রবাসি বিমান প্রকৌশলী আলহাজ্ব আজাদুল আলম ও তার বন্ধু উত্তরাঞ্চলের অস্ট্রেলিয়া প্রবাসিদের সহযোগীতায় “মা কেয়ার ফাউন্ডেশন” এর ব্যানারে উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের উত্তর বেরুবন্দ গ্রামে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হতদরিদ্র ১৮টি পরিবারের মাঝে প্রত্যেককে ১টি করে ছাগল ও গৃহনির্মাণের জন্য ১বান্ডিল করে ঢেউটিন সহায়তা প্রদান করা হয়।
শুক্রোবার শেষ বিকেলে সেখানে গিয়ে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন
“মা কেয়ার ফাউন্ডেশন” এর অর্থায়ন ও
শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের কাশিমবাজার কমিউনিটি (KBC) এর আয়োজনে ওইসব ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এসব বিতরণ করা হয়েছে। বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শিমুলবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুল হক, কাশিমবাজার কমিউনিটি (KBC) মা কেয়ার ফাউন্ডেশনের সভাপতি
অবঃ প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব লুৎফর রহমান বিএসসি, সাধারণ সম্পাদক
অবঃ প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আমিনুর রহমান,
শিমুলবাড়ী এসসি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিঃ শিক্ষক অরুণ কুমার বিএসসি, আসমানী স্যানিটারী ন্যাপকিন এন্ড স্যানিমার্ট সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সমাজ কর্মী শিরিন আক্তার আশা, ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলী, হাফিজুল হক খন্দকার, পরবানন্দ রায় ও আনিছুর রহমান সহ স্থানীয় গণ্যমান্য অনেকেই।
উল্লেখ্য, গত ৬ জানুয়ারি ওই এলাকায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলো হলেন, ভোলানাথ রায়, মহিভূষন রায়, চিত্র রায়, সত্যেন্দ্র নাথ রায়, নগেন্দ্র রায়, হরলাল রায়, অনাথ রায়, কবিতা রানী, সুচি রানী, প্রেমবালা, জগৎ রায়, শৌলেন রায়, দয়াল রায়, হরিদাস রায়, নিত্যা রায়, নারায়ন রায়, সুবোধ রায় ও বিকাশ রায় প্রমুখ। এর আগে উপজেলা পরিষদ চত্বরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়/দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের পক্ষে মোট ৩৬ বান্ডিল ঢেউটিন ও ১লক্ষ ৮ হাজার টাকার চেক প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব হাসান।

0 0

আবেদ আলী স্টাফ রিপোর্টারঃনীলফামারীর জলঢাকায় ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অষ্ট প্রহর ব্যাপী  মহা নাম যজ্ঞ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০ জানুয়ারী বুধবার রাতে উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের ছাতু পাড়া গ্রামে এই সনাতনী ধর্মাবলম্বীদের অষ্ট প্রহর ব্যাপি মহা নাম যজ্ঞ অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে হাজার হাজার সনাতন ধর্মাবলম্বী
নারী ও পুরুষ ভক্তরা অংশগ্রহণ করেন।অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বক্তব্যে ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্টাতা চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ বলেন, আমাদের ফাউন্ডেশন অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্টায় নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। সৃষ্টিকর্তাকে স্বরন করার মাধ্যমে আমরা শান্তি প্রতিষ্টার পথে এগিয়ে যেতে চাই।

আমরা আমাদের সংবিধানে বিশ্বাসী এবং এই সংবিধান আমাদেরকে নিজ, নিজ ধর্ম পালনের অধিকার দিয়েছে।
তাই জলঢাকায় যাতে সাম্প্রদায়িক শক্তি ছোবল মারতে না পারে সেজন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে যেতে হবে। আমাদের ফাউন্ডেশন সর্বদা এ উপজেলার সনাতনী ধর্মাবলম্বীদের পাশে রয়েছে।

অনুষ্টানের বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ফাউন্ডেশনের প্রধান সমন্বয়ক এনামুল হক বলেন, জলঢাকাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি যেন বজায় থাকে সেই লক্ষ্যে আমাদের সনাতন সম্প্রীতি সংঘ ইউনিট জলঢাকার ১২ টি ইউনিয়নে একাগ্রতার সাথে কাজ করে চলেছে। আমরা সামপ্রদায়িকতা মুক্ত জলঢাকা চাই।

যদি কেউ জলঢাকাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের চেষ্টা করেন আমাদের ফাউন্ডেশন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর সামাজিক আন্দোলন ও প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।

ফাউন্ডেশনের সনাতন সম্প্রীতি সংঘ ইউনিটের সভাপতি বাবু রনজিৎ কুমার রায় তার বক্তব্যে বলেন, আমদের সংঘ সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে দাড়িয়ে ইতিমধ্যে জলঢাকাতে বহু পদক্ষেপ নিয়েছে, ভবিষ্যতে ও আমাদের ইউনিটের এলাকা ভিত্তিক সকল কমিটি যে কোন সাম্প্রদায়িক আঘাতের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে।

ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশনের সনাতন সম্প্রীতি সংঘ কৈমারী ৭ নং ওয়ার্ড কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবু পরেশ চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে এই নামযজ্ঞ অনুষ্ঠানে
স্হানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।