Home ঢাকা

0 0

১৮ই মে ২০২০, শরিয়তপুর জেলা এর সংবাদ
প্রগতিশীল স্বেচ্ছসেবী সামাজিক সংগঠন ইচ্ছা মানব উন্নয়ন সংস্থার শরীয়াতপুর জেলা শাখার উদ্যোগে ২০ অসহায় হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ইচ্ছা মানব উন্নয়ন সংস্থার কেন্দ্রীয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদীর ও ত্রান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সম্পাদক রফিকুল ইসলাম অভি সমন্বয়ে শরীয়াতপুর জেলার আহবায়ক এমদাদুল হকের নেতৃত্বে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরে ঘরে ঈদ সামগ্রী পৌছে দেয়ার মাধ্যমে এই কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হয়।

করোনার এই ক্রান্তিলগ্নকালে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, রংপুর বিভাগের কর্মসূচীর পর ঢাকা বিভাগের এই কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হয় বলে জানা যায়। পরবর্তী কর্মসূচী পুনরায় রংপুর বিভাগীয় এবং ময়মনসিংহের বিভিন্ন এলাকায় বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানান কেন্দ্রীয় পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রাজ।

বৈশ্বিক মহামারি করোনা’র ক্রান্তিলগ্ন এই পরিবেশে সৎ ইচ্ছার জাগরণে আম জনতার পাশে ইচ্ছা মানব উন্নয়ন সংস্থার তারুণ্যের দল সর্বদা প্রস্তুত থাকবে।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০:সংসদের সামনে বাজেটের কপি ছেঁড়া বিএনপি’র ঔদ্ধত্যের নতুন বহি:প্রকাশ’ বলেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বিএনপি এমন একটি রাজনৈতিক দল, যারা পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে মানুষকে হত্যা করেছিল। পেট্রোল বোমা নিক্ষেপের কর্মসূচি যে রাজনৈতিক দল দেয়, সংসদের সামনে গিয়ে তাদের বাজেটের কপি ছিঁড়ে ফেলা খুব স্বাভাবিক। যে উদ্ধত আচরণ তারা সবসময় করে আসছে, সেটিরই নতুন বহি:প্রকাশ হচ্ছে সংসদের সামনে গিয়ে বাজেটের কপি ছিঁড়ে ফেলা।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি যে এবারই বাজেট প্রত্যাখ্যান করছে তা তো নয়, গত ১১ বছর ধরে প্রতিবারই তারা বাজেট প্রত্যাখ্যান করছে এবং প্রতিবারেই বলেছে বাজেট বাস্তবায়নযোগ্য না, জনগণের কল্যাণে আসবে না ইত্যাদি ইত্যাদি। কিন্তু গত ১১ বছর ধরে সমস্ত বাজেটই বাস্তবায়িত হয়েছে এবং বাস্তবায়নের হার ৯৭-৯৮ শতাংশ। সেই বাজেটগুলো বাস্তবায়নের প্রেক্ষিতে দেশের দারিদ্র্য কমে অর্ধেকে নেমেছে, মানুষের মাথাপিছু আয় সাড়ে তিনগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে, জিডিপি প্রায় চারগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশ খাদ্যে উদ্বৃত্ত হয়েছে, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে মধ্যম আয়ের পথে উন্নীত হয়েছে। এটিই হচ্ছে বাস্তবতা। কিন্তু তারা কোনোবারেই বাজেট গ্রহণ করতে পারেনি।’

ড. হাছান বলেন, ‘বিএনপি সেখানে বলেছে, মাত্র একদিন বাজেট নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু আসলে তা নয়, পুরো বাজেট সেশনেই কিন্তু বাজেটের ওপর বক্তৃতা হয়েছে। তারা নিজেরা বাজেট অধিবেশনে অংশগ্রহণ করেনি, বাজেট অধিবেশনে যে আলোচনা হয়েছে সেটিও ঠিকমত খেয়াল রাখেনি, সে কারণেই তারা এ ধরণের ভুল বক্তব্য দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে প্রতিদিন সংসদ চালানো সম্ভবপর নয়। পৃথিবীর কোনো দেশে সেটি হচ্ছে না। আমাদের দেশে এখন করোনাভাইরাস প্রায় তুঙ্গে, প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৪ হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে, গড়ে প্রায় ৪০ জন বা তার বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করছে। এই সময় তো সংসদ প্রতিদিন চালানো সম্ভবপর নয়, এই বাস্তবতা তারা বুঝেও এ ধরণের অসত্য, অপ্রাসঙ্গিক কথাগুলো বলে।

কুয়েতে কর্মী রপ্তানীর ক্ষেত্রে আমাদের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে না

সাংবাদিকরা এসময় কুয়েতে মানবপাচারের দায়ে সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপলু গ্রেপ্তারের ফলে সেখানে কর্মী রপ্তানি ব্যাহত হবে কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে ড. হাছান বলেন, ‘কুয়েতের তদন্তে সেখানকার সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদদের সম্পৃক্ততা বেরিয়ে এসেছে। তাদের সম্পৃক্ততা, সহযোগিতা ছাড়া এই কাজগুলো হতো না, সুতরাং তারাও সমভাবে দায়ী। সুতরাং এ ঘটনায় আমাদের শ্রমবাজারে অর্থাৎ কুয়েতে কর্মী রপ্তানীর ক্ষেত্রে আমাদের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে বলে আমি মনেকরি না।’

করোনা পরীক্ষার ফি পুণর্বিবেচনার জন্য তথ্যমন্ত্রীর অনুরোধ

করোনা পরীক্ষার ফি নিয়ে সমালোচনার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এটি নির্ধারণ করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাথে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেছি এটি পুণর্বিবেচনা করার জন্য। তবে একেবারেই বিনামূল্যের কারণে অনেক সময় যাদের প্রয়োজন নেই তারাও পরীক্ষা করে। কিন্তু গরীব মানুষ যাতে প্রয়োজনে বিনামূল্যে পরীক্ষা করাতে পারে, সেটি নিয়ে তার সাথে আমি ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেছি।’

চট্টগ্রামের সল্টগোলায় ৫০ শয্যার বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন

এর আগে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ভিডিও কনফারেন্সে চট্টগ্রামের সল্টগোলায় ৫০ শয্যার বিজিএমইএ কোভিড-১৯ ফিল্ড হাসপাতাল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হন। তিনি বলেন, বৈশ্বিক মহামারি মোকাবিলায় সমন্বিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই। এ উদ্যোগে সম্পৃক্ত হবার জন্য তিনি বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি-বিজিএমইএ’কে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানান। তৈরি পোশাক রপ্তানি খাত বাংলাদেশের অর্থনীতির ‘লাইফ-লাইন’ বলেন মন্ত্রী।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে হাসপাতালটি উদ্বোধন করেন। বিজিএমইএ’র সভাপতি রুবানা হক, প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম ও বোর্ড সদস্যবৃন্দ উদ্বোধনী সভায় অংশ নেন।

চট্টগ্রাম-৭ আসনের সংসদ সদস্য ড. হাছান মাহমুদ জানান, করোনার শুরুতে চট্টগ্রামে রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার ক্ষেত্রে অনেক প্রতিকূলতা, সীমাবদ্ধতা ছিল, কিন্তু আমরা ক্রমাগতভাবে সমন্বয় সভা করে প্রশাসন, পুলিশ, ব্যবসায়ী-স্বেচ্ছাসেবী সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করেছি, সে কারণে আগের পরিস্থিতি এখন নেই, অনেক উত্তরণ ঘটেছে। আইসিইউ, ভেন্টিলেটরসহ যে সুবিধাগুলোর অপ্রতুলতা ছিল, আমরা সেই সংকট সমাধান করতে সক্ষম হয়েছি, জানান তিনি।

0 0

ঢাকা, মঙ্গলবার ৩০ জুন ২০২০:প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত সাংবাদিকদের করোনাকালীন সহায়তা চেক বিতরণ করছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লী‌গের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর কাকরাইলে বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউট-পিঅাই‌বি সেমিনার কক্ষে বাংলা‌দেশ সাংবা‌দিক কল্যাণ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান তথ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে উপস্থিত সীমিতসংখ্যক সাংবা‌দিক ও তাদের পরিবারের মাঝে করোনাকালীন সহায়তার প্রথম পর্যায় ও ট্রাস্টের নিয়মিত সহায়তা চেক বিতরণ করেন।

সরকারপ্রধান শেখ হাসিনাকে সাংবাদিকবান্ধব প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বর্ণনা করে ড. হাছান তার বক্তৃতায় বলেন, ‘করোনা মহামারির শুরু থেকে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের আপামর মানুষের জন্য দেশের ইতিহাসে বৃহত্তম ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন, এখন পর্যন্ত সাত কোটির বেশি মানুষ সরকারি সহায়তার আওতায় এসেছে। পাশাপাশি করোনার সম্মুখযোদ্ধাদের জন্য বিশেষ সহায়তার আওতায় সাংবাদিকদের বিষয়েও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।’

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনানুসারে দীর্ঘদিন ধরে কর্মহীন, করোনাকালে চাকুরি হারানো ও বেতন না পাওয়া – এই তিন অসুবিধায় নিপতিত সাংবাদিকদের এককালীন ১০ হাজার টাকা করে সহায়তা দেয়া হচ্ছে, জানান তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক পর্যায়ে দেড় হাজার সাংবাদিক এ সহায়তা পাবেন এবং এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। উপযুক্ত যারা প্রথম পর্যায়ে বাদ পড়বেন, ক্রমান্বয়ে তারাও এ সহায়তা পাবেন।’ করোনাকালীন বিশেষ সহায়তা ছাড়াও ২০১৯-২০ অর্থবছরে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের নিয়মিত বরাদ্দ ১ কোটি ৬৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা থেকে ১৯৯ জন সাংবাদিক ও তাদের পরিবারকে সহায়তা দেয়া হচ্ছে, উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

দল-মত নির্বিশেষে সারাদেশের সাংবাদিকদের এ সহায়তা দেয়া হচ্ছে জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমরা মনে করি, রাষ্ট্র সবার। সুতরাং রাষ্ট্রের সহায়তা সবাইকে পেতে হবে- সে আমাদের দলের সমর্থক না হোক, আমাদের সরকারের কড়া সমালোচক হোক বা সভা-সমিতিতে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীসহ সকলের সমালোচনা করুক। রাষ্ট্রের বাড়ানো সহযোগিতার হাত তার কাছেও পৌঁছুতে হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’

তথ্যমন্ত্রী তার নির্দেশনানুসারে দল-মত নির্বিশেষে তালিকা প্রণয়নের জন্য সাংবাদিক ইউনিয়নদের ধন্যবাদ জানান। সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের পক্ষ থেকে এসময় করোনা ও করোনা উপসর্গে মৃত্যুবরণকারী দৈনিক বাংলাদেশ খবরের চিত্রগ্রাহক এম মিজানুর রহমান, দৈনিক ভোরের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার আসলাম রহমান ও দৈনিক সময়ের আলো’র প্রধান প্রতিবেদক হুমায়ুন কবীর খোকন -তিন সাংবাদিকের পরিবারপ্রতি তিন লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করেন ড. হাছান। এছাড়া তিনি করোনাকালীন সহায়তার প্রতীকী চেক বিতরণ করে প্রাথমিক পর্যায়ের সহায়তার সূত্রপাত করেন।

বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও পিঅাই‌বি’র মহাপ‌রিচালক জাফর ওয়া‌জেদের সভাপতিত্বে বাংলা‌দেশ ফেডা‌রেল সাংবাদিক ইউ‌নিয়ন-‌বিএফইউ‌জে সভাপ‌তি মোল্লা জালাল, ঢাকা সাংবা‌দিক ইউ‌নিয়‌ন-ডিইউজে সভাপ‌তি কুদ্দুস অাফ্রাদ ও সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ অালম খান তপু বক্তব্য রা‌খেন।

বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, ভারত, পাকিস্তান বা নেপালসহ উপমহাদেশের কোথাও সাংবাদিকদের জন্য এধরণের সহায়তার নজীর নেই। সরকারের এ উদ্যোগের জন্য সাংবাদিক সমাজের পক্ষ থেকে তিনি প্রধানমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

সহায়তাপ্রাপ্ত সাংবাদিক ও তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন গোলাম মহিউদ্দিন খান ও প্রয়াত সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর খোকনের স্ত্রী শারমিন সুলতানা রিনা। ট্রা‌স্টের সদস্য স‌চিব মো: মাহফুজুল হকসহ চেকপ্রাপ্ত সাংবাদিকদের একাংশ এ অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন প্রতিনিধিঃবুড়িগঙ্গা নদীতে অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে একটি লঞ্চ ডুবে গেছে। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ২১ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল নয়টার দিকে এমএল মর্নিং বার্ড নামের লঞ্চটি মুন্সিগঞ্জের কাঠপট্টি এলাকা থেকে সদরঘাটের উদ্দেশে রওনা হয়। সদরঘাটের কাছেই ফরাসগঞ্জ ঘাট এলাকায় নদীতে লঞ্চটি ডুবে যায়।

ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মোহসীন ২১ জনের লাশ উদ্ধারের বিষয়টি জানিয়েছেন। উদ্ধার করা লাশের মধ্যে ১২ জন পুরুষ, ৬ জন নারী ও শিশু ৩ জন। পুরুষদের মধ্যে একজনের পরিচয় জানা গেছে। তাঁর নাম দিদার হোসেন (৪০)।

এর আগে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান গোলাম সাদেক লাশ উদ্ধারের বিষয়টি জানান।

সি টি জি ট্রিবিউন প্রতিনিধিঃরাজনীতিকে পরিশুদ্ধ করতে এবং রাজনীতিবিদদেরকে জবাবদিহিতার মধ্যে আনতে নির্বাচন কমিশনের অধীনে পলিটিক্যাল ট্রাইব্যুনাল চায় বাংলাদেশ কংগ্রেস। রাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন, ২০২০-এর খসড়া নিয়ে আলোচনার প্রেক্ষিতে দলের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারকবৃন্দ বলেন, কার্যকর পলিটিক্যাল ট্রাইব্যুনাল হলে তা হবে দেশের স্বাধীনতা পরবর্তী সবচেয়ে বড় অর্জন।

কেননা এর ফলে দেশের রাজনীতিকরা জবাবদিহিতার মধ্যে আসবেন এবং রাজনীতিকে পুঁজি করে দুর্নীতি, টাকা পাচার, দখলবাজি ও চাঁদাবাজি করা চলবে না। ফলশ্রুতিতে রাজনৈতিক নেতৃত্ব চলে আসবে দেশপ্রেমিক সজ্জনদের হাতে। রাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন, ২০২০-এ এ ধরণের একটি ধারা সন্নিবেশ করার আহবান জানিয়েছে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম ন্যাশনাল সিনেট।

দলের চেয়ারম্যান এ্যাডঃ কাজী রেজাউল হোসেনের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব এ্যাডঃ মোঃ ইয়ারুল ইসলামের সঞ্চালনায় গতকাল অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল মিটিঙে আরো বলা হয়, রাজনৈতিক দলগুলো দেশের কল্যাণে কাজ করে। দেশের জন্য সর্বস্তরে নেতৃত্ব সৃষ্টিসহ সরকারের নানা ত্রুটি বিচ্যুতি তুলে ধরে এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়ে দেশ পরিচালনায় সরকারকে সহযোগিতা করে যার সুফল জনগণ ভোগ করে।

এজন্য তাদেরকে নানান ধরণের কর্মসূচী বা গবেষণামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করতে হয়, যার জন্য প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হয়। ক্ষমতায় না থাকা দলগুলি বছরের পর বছর আর্থিক সংকটে থাকায় দেশের কল্যাণে প্রয়োজনীয় কর্মকান্ড পরিচালনা করতে পারে না।

ফলে দেশকে কাঙ্খিত সেবা দিতে দলগুলি ব্যর্থ হচ্ছে। দলগুলির জন্য নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে বার্ষিক বাজেটের .০২% বরাদ্দ রাখার বিধান রেখে উক্ত আইন প্রণয়ন করতে হবে।

ভার্চুয়াল মিটিঙে অংশ নিয়ে দলের যুগ্ম মহাসচিব ও ন্যাশনাল সিনেটের সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, বিভিন্ন সামাজিক, সাংষ্কৃতিক সংগঠন বা এনজিওদের জন্য সরকারের আর্থিক সহায়তা থাকে। দেশের বৃহৎ স্বার্থে রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য কাজের সুযোগ সৃষ্টি করতে আর্থিক অনুদান আবশ্যক। নির্বাচন কমিশনে প্রতি বছর দলগুলির জন্য আয়-ব্যয়ের হিসাব প্রদান বাধ্যতামূলক।

অর্থ প্রদান না করে হিসাব গ্রহন সমীচীন নয়, সুতরাং নির্বাচন কমিশনের উচিৎ দলগুলির জন্য বরাদ্দের ব্যবস্থা রেখে জবাবদিহিতা আদায় করা। ভারত, ব্রিটেন, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানী, ফ্রান্স, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোকে রাষ্ট্রীয় অর্থ ও সুবিধা প্রদান করা হয় মর্মে তিনি উল্লেখ করেন।

সমবন্টনের ভিত্তিতে গঠনমূলক শর্ত প্রদান করে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোকে অর্থ বরাদ্দের আহবান জানান দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও ন্যাশনাল সিনেটের সদস্য নাজমুল মোর্শেদ। তিনি বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা ও দলের অবসরপ্রাপ্ত বা দূদর্শাগ্রস্থ সদস্যদের কল্যাণে বরাদ্দের বিশ শতাংশ ব্যয় করার বিধান রাখতে হবে।

ন্যাশনাল সিনেটের সদস্য এ্যাডঃ মোঃ মিজানুর রহমান, এ্যাডঃ দেবদাস সরকার, এ্যাডঃ মোঃ জিয়াউর রশিদ ও এম এ মুঈদ খান আরিফ মিটিঙে উপস্থিত ছিলেন।

রাজধানীর মতিঝিলে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে একজন ‘ভুয়া’ চিকিৎসক ও হাসপাতালের ফার্মেসিতে অপারেশন থিয়েটারে ব্যবহারের জন্য ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদনহীন ইনজেকশন ও সার্জিক্যাল পণ্য পাওয়া গেছে। আজ রোববার দুপুর ১২টা থেকে এ অভিযান পরিচালনা করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-৩)।

এ সময় ইউনানীর সনদ নিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মতো এলোপ্যাথিক চিকিৎসা দেয়ায় ‘ভুয়া’ চিকিৎসক মিজানুর রহমানকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পাশাপাশি ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদনহীন ইনজেকশন ও সার্জিক্যাল পণ্য রাখায় প্রতিষ্ঠানটির ফার্মেসিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ বিষয়ে অভিযানের নেতৃত্ব দেয়া র‍্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু বলেন, অভিযান চলাকালে হাসপাতালের ফার্মেসি থেকে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদনহীন (যেটা ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন রেজিস্ট্রেশন অনুযায়ী সংক্ষেপে ডিএআর বলে) অপারেশন থিয়েটারে ব্যবহৃত ইনজেকশন জব্দ করা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন সার্জিক্যাল আইটেম জব্দ করা হয়েছে।

অনুমোদনহীন এসব মেডিকেল সামগ্রী রাখার অপরাধে ফার্মেসির দায়িত্বে থাকা ফার্মাসিস্ট শফিউল ইসলাম ও আব্দুল জলিলকে পাঁচ লাখ টাকা করে মোট ১০ লাখ টাকা জরিমানাসহ অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

র‍্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, ‘ইউনানী হেকিম হিসেবে চিকিৎসার জন্য সাময়িক সনদ নিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিতেন ভুয়া চিকিৎসক মিজানুর রহমান। তার প্যাডে এলোপ্যাথি চিকিৎসার প্রেসক্রিপশন করার কোনো সুযোগ নেই। অথচ তিনি নিজেকে হেকিম নয়, বরং ডাক্তার হিসেবে পরিচয় দিতেন।’

অসংখ্য ভুয়া ডিগ্রি তার প্রেসক্রিপশনে যুক্ত আছে। সেগুলোর কোনো সত্যতা কিংবা ভিত্তি নেই। সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করতেই তিনি ভুয়া ডিগ্রি যুক্ত করেছেন। এর মাধ্যমে তিনি মানুষের জীবন, স্বাস্থ্য ও অর্থের ক্ষতিসাধন করেন। এ ব্যাপারে ওই চিকিৎসক কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি বলে জানান পলাশ কুমার বসু।

এমন ‘ভুয়া’ চিকিৎসককে বিশেষজ্ঞ হিসেবে প্রচার ও চেম্বারে বসার সুযোগ করে দেয়ায় হাসপাতালটির অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারভাইজার মো. হাসিনুর রহমানকে সাড়ে চার লাখ টাকা জরিমানাসহ অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

0 0

অবৈধভাবে অর্জিত দুই হাজার কোটি টাকা হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে পাচারের অভিযোগে ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের অব্যাহতিপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত এবং তার ভাই ফরিদপুর প্রেস ক্লাবের অব্যাহতিপ্রাপ্ত সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশের অপরাধ বিভাগ (সিআইডি)।

গত শুক্রবার রাজধানীর কাফরুল থানায় বাদী হয়ে মানি লন্ডারিং আইনে দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন সিআইডি পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) এসএম মিরাজ আল মাহমুদ।

মামলার এজাহারে বলা হয়, বরকত ও রুবেল গত ১০ বছরে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ সম্পদের মালিক হয়েছেন। তারা ২০১০ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত ফরিদপুরের বিআরটিএ, এলজিইডি, সড়ক বিভাগসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণ, মাদক ব্যবসা ও জোর করে ভূমি দখল করে এই অবৈধ সম্পদ করেছেন। বর্তমানে তাদের এসি-নন এসি মিলিয়ে ২৩টি বাস, বোল্ডার, ড্রাম ট্রাক, বিলাসবহুল পাজারো গাড়ি রয়েছে। এছাড়া হুন্ডির মাধ্যমে দুই হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছেন।

এজাহারে আরো বলা হয়, অতীতে এ দুই ভাইয়ের সম্পদ বলতে কিছুই ছিল না। তারা শুধু রাজবাড়ীর এক বিএনপি নেতার সঙ্গী ছিলেন। ১৯৯৪ সালের ২০ নভেম্বর রাজবাড়ীর ওই এলাকায় এক আইনজীবীকে হত্যার ঘটনা ঘটে। সেই হত্যা মামলায় এ দুই ভাইও আসামি ছিলেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিমুজ্জামান বলেন, বরকত ও রুবেলের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মানি লন্ডারিং আইনের মামলাটির তদন্তকাজ করবে সিআইডি। কারণ মামলাটি তারাই দায়ের করেছে।

এ বিষয়ে সিআইডির পরিদর্শক এসএম মিরাজ আল মাহমুদ বলেন, প্রথমে বরকত ও রুবেলকে মানি লন্ডারিং মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হবে। পরে তাদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে। গত ১৮ জুন এ ঘটনার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত হওয়ার পর প্রাথমিকভাবে তিনি জানতে পারেন, গত ১০ বছরে এই দুই ভাই বিপুল পরিমাণ সম্পদ অবৈধ উপায়ে অর্জন করেছেন। যার মধ্যে ২ হাজার কোটি টাকা হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে পাচার করেছেন।

এদিকে আজ রোববার দুটি পৃথক চাঁদাবাজির মামলায় শুনানি শেষে বরকত ও রুবেলের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন ফরিদপুর ১ নং আমলি আদালতে বিচারক হাকিম মো. ফারুক হোসাইন। এর আগে আরো চারটি মামলায় ২০ দিন করে রিমান্ডে ছিলেন এই দুই ভাই।

এর আগে এই একই আদালতে চাঁদাবাজি ও অস্ত্র মামলায় ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বরকত ও রুবেল। এর মধ্যে বরকত চাঁদাবাজির মামলায় এবং রুবেল অস্ত্র মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।গত ১৬ মে রাতে ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামট মহল্লার মোল্লা বাড়ি সড়কে অবস্থিত জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে পর পর দুই দফায় হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পরদিন ১৮ মে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা। এই মামলার আসামি হিসেবে বরকত ও রুবেলসহ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গত ৭ জুন ফরিদপুর শহরের বদরপুরসহ বিভিন্ন মহল্লায় অভিযান চালিয়ে তাদের অস্ত্র ও মাদকসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

0 19

ঢাকা, সোমবার ২৯ জুন, ২০২০:সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখরের মাতা, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মনোয়ারা জামানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

প্রয়াত মনোয়ারা জামান ছিলেন বঙ্গবন্ধুর সহচর ও চারবারের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আছাদুজ্জামান এর সহধর্মিণী। মন্ত্রী তার শোকবার্তায় মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে ও পরে মাগুরা জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভানেত্রী হিসেবে মনোয়ারা জামানের দেশপ্রেম ও নিষ্ঠার কথা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন।

তিনি প্রয়াতের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

মনোয়ারা জামান (৭৫) রোববার সন্ধ্যায় মাগুরায় পশু হাসপাতালপাড়ার নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস এবং বৃক্ক ও যকৃতের জটিলতায় ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি ৫ ছেলে, ২ মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ (সোমবার) সকাল ১০টায় শহরের পিটিআই মাঠে জানাজা শেষে ভায়না পৌর কবরস্থানে তাকে দাফন করার কথা।

0 28

সি টি জি ট্রিবিউন ঢাকা, রোববার ২৮ জুন, ২০২০:
করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত চলচ্চিত্র শিল্পকে সহায়তার লক্ষ্যে এবছর তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে পূর্বের তুলনায় বেশি সংখ্যক চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। গত ২৫ জুন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে তা প্রতিফলিত হয়েছে। ১৬টি পূর্ণদৈর্ঘ্য ও ৯টি স্বল্পদৈর্ঘ্য মিলে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে ২৫টি চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয়া হয়েছে। গত অর্থবছরে অনুদান পেয়েছিল মোট ১৪টি চলচ্চিত্র ।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি, পরিচালক সমিতি ও প্রযোজক পরিবেশক সমিতি অনুদানের এ সিদ্ধান্তের জন্য তথ্যমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান টেলিফোনে ড. হাছানকে সময়োপযোগী পদক্ষেপের জন্য শিল্পীদের পক্ষে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার স্বাক্ষরিত অভিনন্দন পত্রে বলা হয়, ‘তথ্য মন্ত্রণালয় ২০১৯-২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে চলচ্চিত্র নির্মাণের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং মূলধারার চলচ্চিত্র নির্মাতাদেরকে প্রাধান্য দেয়ায় এবং অনুদানের অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি করায় মাননীয় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির পক্ষ থেকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’
‘ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত থাকবে এবং আমাদের চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গীকার বাস্তবায়নে মাননীয় তথ্যমন্ত্রী ও তথ্য মন্ত্রণালয় সময়োপযোগী ও যথাযথ ব্যবস্থা করবেন’ বলে আশাপ্রকাশ করেন তারা।

চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু স্বাক্ষরিত তাদের পত্রে বলা হয়, ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের আপনার সাথে প্রথম সাক্ষাতের সময় দাবী ছিল, সরকারি অনুদানের ছবিতে যেন মূলধারার প্রযোজক পরিচালকদের প্রাধান্য দেয়া হয়। সরকারি প্রজ্ঞাপনে দেখা যায় মূলধারার অধিকাংশ প্রযোজক পরিচালক সরকারি অনুদানের ছবি পেয়েছেন। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির পক্ষ থেকে আপনার প্রতি অনেক অনেক কৃতজ্ঞতা, শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।’

চলচ্চিত্রের এসকল সংগঠনই এবারের অনুদানকে করোনাবিপন্ন সময়ে চলচ্চিত্রের জন্য আশীর্বাদ হিসেবে বর্ণনা করেছে।

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মির্জা ফখরুল সাহেবের কথায় মনে হয়, বিএনপি গুজব ও বিদ্বেষ সৃষ্টিকারীদের পক্ষ নিচ্ছে।
হাছান মাহমুদ আজ বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে চলচ্চিত্রনির্মাতাদের সাথে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।
‘মহামারিতেও সরকার ভিন্ন মতের প্রতি বেপরোয়া’ -মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন মন্তব্যের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘ ফখরুল সাহেব কোনটিকে ভিন্নমত বলছেন, সেটি বড় প্রশ্ন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব-বিদ্বেষ ছড়ানো যদি ভিন্নমত হয়, তাহলে ফখরুল সাহেবের বক্তব্য যারা গুজব ও বিদ্বেষ ছড়ায় তাদের সাফাই গাওয়া৷ বিএনপি নেতারা যে সকাল-বিকাল-সন্ধ্যা সরকারের যথেচ্ছ সমালোচনা করতে পারছেন, সেখানে মিথ্যাচারও করা হচ্ছে, ভিন্নমতের প্রতি সরকার সহনশীল না হলে তো এটি হতো না।’
‘একজন মানুষ মৃত্যুবরণ করার পর তার বিষয়ে যেভাবে অশালীন মন্তব্য করা হয়েছে, সেগুলো ভিন্নমত নয়, বিদ্বেষ’ উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী।
তিনি বলেন, ‘সরকার কখনো ভিন্নমত দমনের চেষ্টা করেনি, করবেও না। বরং সরকার মনে করে, অবশ্যই ভিন্নমত থাকবে। সংবিধানে সে অধিকার দেয়া আছে এবং ভিন্নমত দেশ পরিচালনায় সহায়ক। কিন্তু বিএনপি নেতারা সে সুযোগ নিয়ে গুজব ও বিদ্বেষকারীদের পক্ষ অবলম্বন করছে। ‘
বিএনপি নেতা-কর্মীদের করোনায় আক্রান্ত হওয়া নিয়ে তাদের মহাসচিব মির্জা ফখরুলের বক্তব্য প্রসঙ্গে প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী ড. হাছান বলেন, ‘আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মোহাম্মদ নাসিম, শেখ আব্দুল্লাহ ও বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য মকবুল হোসেন মৃত্যুবরণ করেছেন এবং অন্তত দশজন কেন্দ্রীয় নেতাসহ কয়েক হাজার নেতাকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আমরা চাই, কেউ আক্রান্ত না হোক ও আক্রান্তদের আরোগ্য। কিন্তু লক্ষণীয় যে, মির্জা ফখরুল সাহেবের কথাতেই তাদের সংখ্যা নিয়ে সন্দেহের ছায়া আছে।’
তথ্যমন্ত্রী এসময় করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত চলচ্চিত্র শিল্পকে সহায়তার লক্ষ্যে পূর্বের তুলনায় বেশি সংখ্যক চলচ্চিত্রকে মন্ত্রণালয়ের অনুদান দেবার সিদ্ধান্তের কথা জানান।
চলচ্চিত্রনির্মাতাদের মধ্যে অমিতাভ রেজা চৌধুরী, গিয়াসউদ্দিন সেলিম, পিপলু খান ও আবু শাহেদ ইমন বৈঠকে অংশ নেন।