Home ঢাকা

0 0

শাহনাজ পলি:

২০০৭ (বাংলায় লিখবেন) সালে গাড়ি চালানো শিখি। কিন্তু বাচ্চাদের স্কুল আনা নেয়ায় ড্রাইভারের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছিলাম। এখন আর ওদের গাড়ি ব্যবহার করতে হয় না,

অনলাইনে ক্লাশ। এই করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মানার কারণে ড্রাইভারের উপর ভরসা না করে নিজেই টুকটাক গাড়ি নিয়ে বের হতে শুরু করলাম।

ধীরে ধীরে বছর গড়ালো। ড্রাইভ করতে খুব ভাল লাগে। বিরক্ত লাগে যখন দেখি হুট করে মোটল বাইক সামনে এসে পড়ে বা কোন ড্রাইভার খুব স্পিডে সাইড দিয়ে টান দেয় দেখে।

তবে লকডাউনে ফাঁকা সড়কে নিজেকে রাস্তার রানি মনে হয়। ধৈর্য সহকারে বুঝে শুনে চালাই, তবে অভিজ্ঞতাও কম না।

গাড়ি ড্রাইভিং নিয়ে মজার মজার কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করি প্লিজ হাসবেন না…

এক বছর প্রায় নিয়মিত গাড়ি চালাচ্ছি, এখনও শিখছি, এর যে কত কারিশমা !! সবচেয়ে মজার ঘটনা ঘটছে গতকাল
ইফতারির আগে একটা পাম্পে গ্যাস নিতে যেয়ে নাস্তানাবুদ অবস্থা,
বনেট খুলে যখন গ্যাসের লাইন লাগাচ্ছে তখন আমি আর স্টার্ট বন্ধ করতে পারছি না, চাবিও কিছুতেই বের হয় না, পাম্পে যে শব্দ!! আমি তো চিল্লাচ্ছি, ভাই গ্যাসের চাবি স্টার্ট করেন না, পেছনে সিরিয়ালের গাড়িওয়ালারা বিরক্ত! ইফতারির টাইম। চাবি বের করার নানান কৌশলেও হতাশ, গা ঘামা শুরু করল।

পাশের সিরিয়ালের এক ড্রাইভারকে বিষয়টা বলতেই সে ম্যাজিকের মত স্ট্রার্ট বন্ধ করে চাবি বের করে দিল, শিখলাম গিয়ার নিউট্রালে ছিল সেটা পার্কিংএ রাখতে হবে!! ধন্যবাদ ভাই

একবার পাম্পে তেল নেয়ার মজার অভিজ্ঞতা, ঠিকমত গাড়ি প্লেস করছি কিন্তু তেলের লাইনের বক্স খুলার ঠিকানা খুঁজে পাচ্ছি না, উফফ কি করি! ব্যাটাতো তেলের নজেল হাতে
নিয়ে বিরক্ত, কি আর করা ইশারায় ডেকে বললাম ভাই ওটার সুইচ কই? খুলে দিল, ধন্যবাদ ভাই

এবার বলি গত বছরের ঘটনা আমি নিজেই হাসি থামাতে পারি না, আপনাদের কি বলব!!
কেবলই একা চলা শিখছি!! গাড়ি নিয়ে গ্যারেজ থেকে বের হয়ে চলতে শুরু করছি, পেছন থেকে সিকিউরিটি দৌড়ে এসে বলল, ম্যাডাম লুকিং গ্লাস খুলেন, ধন্যবাদ ভাই

একদিন বাসার গলিতে এসে মনে হল হেড লাইট অফ ছিল!! পরে মনে পড়ল গ্যাস নিয়ে গাড়ি স্টার্ট করে লাইট জ্বালাইনি!! হায়রে…আল্লার রহমতে ঠিকঠাক ফিরছি, আল্লাহ সহায়

পার্কিং এখনও ভাল পারি না, তাই সুবিধাজনক এলাকা ছাড়া যাইনে, অফিসের সামনে পার্কিং কতজন হেল্প করে তার ঠিক নেই, একদিন দেখি সব পার্কিং ফিলাপ, পরিচিত কাউকে পাচ্ছি না, আমাদের সম্পাদক নাঈম ভাই বা মন্টি আপার গাড়ি আসিনি,

চায়ের দোকানে চাবি দিয়ে অফিসে ঢুকেও খুব টেনশন হচ্ছে, মন্টি আপাকে ফোন দিলাম, আপা বললেন এইতো অফিসের সামনে, স্বস্তি পেলাম ! ধন্যবাদ ড্রাইভার ভাইদের

একদিন বিজয় স্বরনী ওভার ব্রিজের উপর জ্যামে আটকে আছি, হঠাৎ হঠাৎ গাড়ি দুলে! কি ব্যাপার গ্যাস সিলিন্ডারের সমস্যা কি!! ভয়ই পাচ্ছিলাম, এখন ভয় পাইনে, বুঝছি পাশের লাইনের ভারি গাড়ি ক্রসিং এর ঝাঁকুনি, নিজেই বুঝছি তাই কাউকে ধন্যবাদ না।

শুধু প্রেস ক্লাবে পার্কিং করতে ভাল লাগে, অনেক জায়গা! ইচ্ছেমত রাখি। বাসায় একদিন পার্কিং করতে পিলারে ধাম করে লাগল, রাতারাতি দশ হাজার গচ্চা, তবে আল্লার রহমতে ঠান্ডা মাথায় গাড়ি চালাই। মাঝে মাঝে বাঁক ঘুরি ধীরে কেউ বাঁকা চোকে তাকাই, কেউ এগিয়ে যেতে বলে হাসিমুখে, তবে সব ড্রাইভার পুরুষ ! নারীদের দেখা মেলে না।

0 0

ঢাকা, মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১:
‘দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র-তৎপরতা বাড়াতেই বিএনপি খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়েছিল’ বলেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার (১১ মে) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের ঈদ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

ড. হাছান বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে তারা বিদেশ নিয়ে যেতে চান, এর আইনি কোনো সুযোগ নাই এবং তাদের বিদেশে নেয়ার উদ্দেশ্য ভিন্ন। খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দেয়া নয়, বিদেশ যাওয়ার উদ্দেশ্য হচ্ছে রাজনীতি এবং বিদেশ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ নানাভাবে এখন যে ষড়যন্ত্র ও দেশবিরোধী কর্মকান্ড করা হয়, সেগুলোকে আরো তৎপর করা।

‘বেগম খালেদা জিয়ার ঠিক জন্মদিন কোনটা, সেটা জনগণ জানতে চায়’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমিও দেখেছি, করোনা টেস্টের রিপোর্টে বেগম খালেদা জিয়ার জন্মতারিখ ৮ মে, ১৯৪৬ সাল। এই গোমর যখন ফাঁস হয়ে গেছে, আজকে না কি ফখরুল সাহেব সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন, নিশ্চয় বলেছেন, এটি সঠিক নয়।’

‘আপনাদের পাসপোর্টে একটা জন্ম তারিখ, স্কুল সার্টিফিকেটে আরেকটা, প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে অন্য একটা আবার করোনা রিপোর্টে আরেকটা জন্ম তারিখ- আপনাদের ঠিকটা কোনটা, সেটা জনগণ জানতে চায়’ উল্লেখকরে হাছান মাহমুদ বিএনপি’র উদ্দেশ্যে বলেন, ‘এই ধরণের ভাঁওতাবাজির রাজনীতি, মিথ্যার রাজনীতি, জনগণকে ধোঁকা দেয়ার রাজনীতি পরিহার করুন। টেলিভিশনে উঁকি দিয়ে দিয়ে সরকারের সমালোচনা করলেই রাজনৈতিক দল হওয়া যায় না।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ এসময় বলেন, ‘আমরা প্রতিহিংসার রাজনীতি করি না। বিএনপি এবং খালেদা জিয়াই প্রতিহিংসার রাজনীতি করে। সেজন্যই তারা ১৫ আগস্ট মিথ্যা জন্মদিন পালন করে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা হয়েছিল, ১৯৯৬ সালে পাতানো নির্বাচন করে বঙ্গবন্ধুর খুনীকে বিরোধী দলীয় নেতা বানানো হয়েছিল, বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের বিচার তারা বন্ধ করেছিল।’

জননেত্রী শেখ হাসিনা সমস্ত কিছু ভুলে গিয়ে আদালতে জামিন না পাওয়ার পরেও প্রধানমন্ত্রীর প্রশাসনিক ক্ষমতাবলে বেগম খালেদা জিয়াকে আজ প্রায় দেড় বছর ধরে কারাগারের বাইরে রেখেছেন উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘আমাদের নেত্রী প্রতিহিংসার রাজনীতি করেন না, বরং আমাদের নেত্রী যে সহমর্মিতা, যে সহানুভূতি প্রদর্শন করেছেন, তা থেকে বিএনপি এবং খালেদা জিয়ার অনেক কিছু শেখার আছে।’

বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মো: সায়ীদুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক লায়ন শেখ আজগর নস্করের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. আবদুস সোবহান গোলাপ এমপি বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং মৎস্যজীবী লীগ নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করেন।

0 0

আসছে নতুন বাজেটে বন, পরিবেশ ও জলবায়ু মন্ত্রণালয়ের নতুন বাজেটে কতো টাকা বরাদ্দ থাকছে তা নিয়ে সকল পরিবেশবাদী সংগঠনের জল্পনা-কল্পনা শেষ নাই। বিগত অর্থ বাজেটে মাত্র ১২শত ২৫ কোটি টাকার বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল যা খুবই নগণ্য। ২০২১ -২০২২ অর্থবছরে ১০ হাজার কোটি টাকা অর্থ বরাদ্দের দাবি জানালো সবুজ আন্দোলন।

পরিবেশবাদী সংগঠন সবুজ আন্দোলনের উদ্যোগে রাজধানী ঢাকার সেগুন বাগিচার রয়েল ইন ঢাকা রেস্টুরেন্টে “নতুন বাজেটে পরিবেশ খাত শীর্ষক” আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে এমনটা দাবি করেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান বাপ্পি সরদার।

বাপ্পি সরদার তার বক্তব্যে বলেন, “আমাদের সংগঠন জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে জনসচেতনতা তৈরিতে কাজ করছে। বিগত অর্থবছরের গুলোতে বন, পরিবেশ ও জলবায়ু মন্ত্রণালয়কে যে বাজেট দেওয়া হয় তার অধিকাংশ টাকার কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় না।”

নতুন বাজেট উপলক্ষে সবুজ আন্দোলনের পক্ষ থেকে বেশ কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরা হয়:
১) বন বিভাগের সক্ষমতা বাড়াতে জনবল নিয়োগ ও তাদের বেতন বৃদ্ধি করতে হবে।
২) বন বিভাগের গাছ কাটা বন্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে “আলাদা সুরক্ষা বাহিনী” গড়ে তুলতে হবে।
৩) দেশের প্রত্যেকটি উপজেলায় নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার নিশ্চিত করতে সোলার প্যানেল স্থাপন করতে হবে।
৪) ঢাকা শহরের সবুজায়ন নিশ্চিত করতে শহরের পতিত জায়গা সহ নদীর চারপাশ জুড়ে ইকোপার্ক নির্মাণ করতে হবে।
৫) সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও পরামর্শ প্রদানের জন্য পরিবেশবাদী সংগঠনের “স্টেকহোল্ডার” গঠন করতে হবে।
৬) প্রত্যেকটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পরিবেশবাদী সংগঠনের সহায়তায় সরকারিভাবে জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশ বিপর্যয়ের ভয়াবহতা তুলে ধরতে নিয়মিত সেমিনার, কর্মশালার আয়োজন করতে হবে।
৭) মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ ও গবেষণার জোরদারে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
৮) নদীর দূষণ রোধে ইটিভি ফর্মুলা বাস্তবায়ন করতে বাইপাস ক্যানেল পদ্ধতি অনুসরণ ও মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে সিসি ক্যামেরা নিশ্চিত করতে হবে।
৯) সবুজায়ন বৃদ্ধি করতে সারা দেশে সরকারিভাবে ৫ কোটি বৃক্ষ রোপণ করতে হবে।

সবুজ আন্দোলন পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান বাপ্পি সরদারের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মহসিন সিকদার পাভেলের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য মেজর অবসর মাহমুদুর রহমান চৌধুরী, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আব্দুল কুদ্দুস বাদল, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অভিনেতা উদয় খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত সবুজ, নারী ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক ইয়াসমিন আনোয়ার, কেন্দ্রীয় সদস্য ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির কল্যাণ সম্পাদক খালিদ সাইফুল্লাহ প্রমূখ।

0 0

কেমনে হলেন এতো টাকার মালিক ?নেপথ্যে কারা?

সিটিজিট্রিবিউন: ঢাকায় ২০টি সরকারিসহ ২৩টি প্লট ও সাত ভবনের মালিক মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনির। ব্যাংকে তাঁর রয়েছে ৭৯১ কোটি টাকা। ঢাকায় রয়েছে একটি আবাসন প্রতিষ্ঠান ও দুটি গাড়ির শোরুম। ঢাকার অদূরে কেরানীগঞ্জে তিনি আরও এক একর জমির মালিক।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) অনুসন্ধানে মনির হোসেনের এত সব সম্পদের তথ্য বেরিয়ে এসেছে। সিআইডির পরিদর্শক মো. ইব্রাহিম হোসেন গত জানুয়ারি থেকে পাঁচ মাস এ বিষয়ে অনুসন্ধান করেছেন। সিআইডি বলছে, মনিরের সব সম্পদই অপরাধের মাধ্যমে অর্জিত।

গত বছরের ২০ নভেম্বর রাজধানীর মেরুল বাড্ডার বাসায় অভিযান চালিয়ে মনিরকে মাদক ও অস্ত্রসহ আটক করে র‍্যাব। গ্রেপ্তারের পর তাঁর বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হয়। এ ছাড়া মতিঝিল ও রমনা থানায় মাদকদ্রব্য ও দুদক আইনে আরও চারটি মামলা রয়েছে। মনির হোসেন বর্তমানে কারাগারে আছেন।

সিআইডির কর্মকর্তারা বলেন, গোল্ডেন মনির সোনা চোরাচালান, জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ভূমি দখল ও ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি করে এসব অর্থসম্পদের মালিক হয়েছেন। পরে তিনি ঢাকার উত্তর সিটি করপোরেশনের একজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সিরাজগঞ্জ আওয়ামী লীগের একজন নেতাসহ সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের সদস্যদের সহযোগিতায় বিভিন্ন ব্যবসায় বিনিয়োগ ও নিজ স্বার্থসংশ্লিষ্ট ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের নামে ব্যাংকে লেনদেন ও স্থানান্তরের মাধ্যমে স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির মালিক হন।

সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইমের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মোহাম্মদ আবদুল্লাহেল বাকী রোববারগনমাধ্যমকে বলেন  বলেন, গোল্ডেন মনির ও তাঁর সহযোগীদের বিরুদ্ধে অপরাধলব্ধ আয়ে করা অস্থাবর ও স্থাবর সম্পদের তথ্য–প্রমাণ পেয়েছেন তাঁরা। মনিরের বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে মামলা করতে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সিআইডি সূত্র জানায়, গোল্ডেন মনিরের প্রধান সহযোগী সিরাজগঞ্জের জেলা আওয়ামী লীগের একজন নেতা, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের একজন ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে এজাহার প্রস্তুত করা হয়েছে। এতে মনিরের স্ত্রী, ছেলে, দুই বোন ও ভগ্নিপতিকে আসামি করা হয়েছে। দু-এক দিনের মধ্যে তাঁদের বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে মামলা করা হবে।

সিআইডি সূত্র জানায়, অপরাধলব্ধ আয় দিয়ে গোল্ডেন মনির উত্তরার ১৩ নম্বর সেক্টরের সোনারগাঁও জনপথ রোডে গ্র্যান্ড জমজম টাওয়ার এবং উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের সাফা টাওয়ারের অন্যতম মালিক হন। ঢাকায় তাঁর ৯০ কাঠার বিভিন্ন আয়তনের প্লট রয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে বাড্ডায় রাজউকের (রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) আড়াই কাঠার ১৯টি প্লট, রাজউক পূর্বাচলে ১০ কাঠার একটি প্লট, বারিধারা জে ব্লকে সাড়ে আট কাঠা করে দুটি প্লট, খিলক্ষেতে পৌনে দুই কাঠার একটি প্লট, তুরাগের নলভোগ মৌজায় ১২ কাঠা জমি। এ ছাড়া গোল্ডেন মনিরের নামে ঢাকার অদূরে কেরানীগঞ্জের চর রুহিতপুরে আড়াই বিঘা জমি রয়েছে। আবাসন প্রতিষ্ঠান স্বদেশ প্রপার্টিজে (বাড্ডা) তাঁর মালিকানা রয়েছে।

সিআইডি বলেছে, গোল্ডেন মনিরের নামে ১২৯টি ব্যাংক হিসাবে ৭৯১ কোটি ৫ লাখ ৯৬ হাজার ৫২৩ টাকা পাওয়া গেছে। তিনি এই আয়ের একটি অংশ সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের সদস্যদের পরস্পর যোগসাজশে যৌথ ও একক নামে ব্যবসায় বিনিয়োগ করে স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তিতে রূপান্তর করেছেন। তাঁর মালিকানাধীন অটো কার সিলেকশন লিমিটেডের হিসাব থেকে রাজউক কর্মচারী বহুমুখী কল্যাণ সমিতির হিসাবে পাঁচ কোটি টাকা পাঠানোর তথ্য পাওয়া গেছে, যা সন্দেহজনক।

বাড্ডার ডিআইটি প্রকল্পে আড়াই কাঠা করে পাঁচটি প্লটে পাঁচটি ভবন নির্মাণ করে গোল্ডেন মনিরের স্ত্রী রওশন আরা তা ভোগদখল করছেন। অপরাধলব্ধ আয় দিয়ে গোল্ডেন মনির তাঁর ছেলে রাফি হোসেনকে (২৪) কার অটো সেন্টারের মালিকানা দিয়েছেন। রাফি স্নাতক সম্মান শ্রেণিতে পড়েন।

মনির হোসেনের দুই বোন ও দুই ভগ্নিপতি রাজউকের প্লটগুলো দেখাশোনা ও ভোগদখল করে মনির হোসেনের দুই বোন ও দুই ভগ্নিপতি রাজউকের প্লটগুলো দেখাশোনা ও ভোগদখল করে আসছিলেন। সিআইডি জানায়, ঢাকার উত্তর সিটি করপোরেশনের একজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোল্ডেন মনিরের অপরাধ কর্মকাণ্ডের সহযোগী। ওই ওয়ার্ড কাউন্সিলর ঢাকায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পার্কিং ইজারা নিয়ে মনির হোসেনের সোনা চোরাচালানে সহযোগিতা করেছেন। সোনা চোরাচালানে অবৈধ আয় দিয়েই গোল্ডেন মনির ও তাঁর সহযোগীরা উত্তরায় ১৪ তলা জমজম টাওয়ার নির্মাণ করেছেন, যার একাংশের মালিক ওই ওয়ার্ড কাউন্সিলর। মাদক ও চাঁদাবাজিতে জড়িত থাকার অভিযোগে তাঁর নামে রাজধানীর উত্তরখান ও দক্ষিণখান থানায় তিনটি মামলা রয়েছে। গোল্ডেন মনিরের অপরাধ কর্মকাণ্ডের আরেক সহযোগী সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতা। ১৯৯৬ সালে সোনালী ব্যাংকের এয়ারপোর্ট শাখায় পিয়ন পদে চাকরি করার সময় গোল্ডেন মনিরের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয় এবং সোনা চোরাচালানে জড়িয়ে পড়েন। পরে চাকরি ছেড়ে দেন তিনি। অপরাধলব্ধ আয় দিয়ে তিনি বহুতল জমজম ও আল সাফা টাওয়ারের অন্যতম মালিক হন।প্রতিবেদন:কেইউকে।

0 0

 

টেস্ট রিপোর্টে খালেদা জিয়ার আসল জন্মদিনের সঠিক তথ্য প্রকাশ পেয়েছে

সিটিজিট্রিবিউন করোনা টেস্ট রিপোর্টে খালেদা জিয়ার আসল জন্মদিনের সঠিক তথ্য প্রকাশ পেয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। একাধিক জন্মদিনের নামে জাতিকে এতদিন খালেদা জিয়া অন্ধকারে নিমজ্জিত রেখেছিলেন বলেও জানান তিনি।

সোমবার সকালে ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত ১৩টি সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের মধ্যে করোনা সুরক্ষাসামগ্রী ও খাদ্য সহায়তা বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি তার সরকারি বাসভবন থেকে অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, অবশেষে খালেদা জিয়ার করোনা টেস্ট রিপোর্টে তার আসল জন্মদিনের সঠিক তথ্য প্রকাশ পেয়েছে।

তিনি আরও বলেন, একাধিক জন্মদিনের নামে জাতিকে এতদিন খালেদা জিয়া অন্ধকারে নিমজ্জিত করে রেখেছিলেন। প্রকৃতপক্ষে তার জন্মদিন করোনা টেস্ট রিপোর্ট অনুযায়ী ৮ মে।

দীর্ঘদিন মানুষ অসত্যের সঙ্গে চলতে পারে না, পারে না সত্যকে লুকিয়ে রাখতে, হাতের তালু দিয়ে যেমন আকাশ ঢাকা যায় না, তেমনি সত্যকেও কখনো আড়াল করে রাখা যায় না উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে এক নির্মম, বেদনাদায়ক হত্যাকাণ্ড ১৫ আগস্ট। অথচ কতটা নিষ্ঠুর হলে এদিনে খালেদা জিয়া এতদিন তার ভুয়া জন্মদিন পালন করে আসছিলেন। ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে খালেদা জিয়ার ভুয়া জন্মদিন পালন করা জাতির পিতার হত্যাকারীদের উৎসাহিত করা এবং নির্মম হত্যাকাণ্ডকে উপহাস করারই শামিল বলে জনগণ মনে করেন। বিএনপির নেত্রী কি পারতেন না শোকাবহ ১৫ আগস্টে ভুয়া জন্মদিনের অনুষ্ঠান না করতে?

বিভিন্ন সময়ে জন্মদিন পালনকারী খালেদা জিয়ার জন্মদিন বিষয়ক আসল সত্য তিনি নিজেই উন্মোচন করেছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে খালেদা জিয়া কেক কেটে উৎসবের সঙ্গে ভুয়া জন্মদিন পালন করতেও দেখেছে জাতি। খালেদা জিয়ার মেট্রিকুলেশন সনদ অনুযায়ী জন্মদিন ৯ আগস্ট, ১৯৪৫। বিবাহ সনদ ৫ সেপ্টেম্বর, ১৮৪৫। পাসপোর্ট সনদ ১৯ আগস্ট, ১৯৪৫। আবার দাবি করেন ১৫ আগস্ট, ১৯৪৫ তার জন্মদিন। একজন মানুষের এতগুলো জন্মদিন থাকা নিয়ে দীর্ঘদিনের রহস্য এখন নতুন করে খালেদা জিয়াই উন্মোচন করেছেন। অবশেষে করোনা টেস্টের জন্য দেয়া তথ্যে জানা গেছে খালেদা জিয়ার জন্মদিন ৮ মে, ১৯৪৬।

তিনি বলেন, সপরিবারে জাতির পিতার হত্যা দিবসে ভুয়া জন্মদিন পালন করা কতটা নিষ্ঠুর ও বিদ্বেষ প্রসূত রাজনীতির বহিঃপ্রকাশ তা বলার অপেক্ষা রাখে না ৷

বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসা নিয়ে এর আগেও রাজনীতি করেছেন, এখনো করছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা তার রোগমুক্তি অবশ্যই কামনা করি। তার বয়স বিবেচনায় ও চিকিৎসার সুবিধার্থে মানবিক নেতৃত্ব শেখ হাসিনা সাজা সাময়িক স্থগিত করেছিলেন। বিএনপি নেতারা এখনো খালেদা জিয়ার চিকিৎসার চেয়ে রাজনীতিকে অধিক মনোযোগ দিচ্ছেন।

ওবায়দুল কাদের খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা করে বলেন, তার বিদেশ যাত্রার ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর বক্তব্য সবাই জেনেছে, তাই এ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই।

সেতুমন্ত্রী মানুষকে করোনায় সচেতন হতে সারাদেশে দলীয় নেতাকর্মীদের ক্যাম্পেইন পরিচালনা করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সবাইকে শতভাগ মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ঈদ উৎসব যাতে অন্তিম উৎসবে পরিণত না হয় সেদিকেও সবাইকে খেয়াল রাখতে অনুরোধ জানাই।

দেশ-বিদেশে মিডিয়ার একটি অংশ ও কোন কোন নেতা প্রতিনিয়ত সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে যাচ্ছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে অন্ধ সমালোচনা করা তাদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।

এ সময় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, ড. আবদুর রাজ্জাক, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় কার্যকরী সদস্য সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির ও সংসদ সদস্য মোজাফফর হোসেন। প্রতিবেদন:কেইউকে।

 

 

 

 

0 0

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ.জ.ম নাছিরের পক্ষে মরহুম আব্দুল বাকী স্মৃতি সংসদের চেয়ারম্যান জেসমিন আক্তার জেসি রমজানে নিয়মিত আয়োজনের অংশ হিসেবে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ইফতার ও সেহেরী বিতরন করে আসছেন।
বৃহস্পতিবার ৬ মে মধ্যরাতে নিজের হাতের তৈরি করা সেহেরী নিয়ে ছুটে যান
নগরীর একটি এতিমখানায়। সেখানে শিশু-কিশোরদের হাতে সেহেরী তুলে দেন জেসমিন আক্তার জেসি।

করোনার প্রকোপ শুরু থেকেই বিভিন্ন নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডের গরীব, দু:স্থ, অসহায় ও নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে মাস্ক, সাবান, হ্যান্ডসেনিটাইজারসহ খাদ্য সামগ্রী এবং রমজানে সেহেরী ও ইফতার বিতরণ করে আসছেন জেসি।
জেসমিন আক্তার জেসি বলেন,
প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ও মিশন পূরণ করার লহ্ম্যে দেশের দুস্থ ও অসহায় মানুষের মাঝে নিজের যতটুকু সামর্থ্য আছে তা দিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন মোঃ জাবেদ হোসেন,শাকিল প্রমুখ।

0 0

করােনা মােকাবেলায় চট্টগ্রাম ও বাগেরহাটের বিভিন্ন এলাকায় নৌবাহিনীর মানবিক সহায়তা

ঢাকা , ০৩ মে ২০২১৪ করােনা মােকাবেলায় দেশব্যাপী অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের জন্য নৌবাহিনীর মানবিক সহায়তা অব্যাহত রয়েছে । আজ সােমবার ( ০৩-০৫-২০২১ ) কমান্ডার ফ্লোটিলা ওয়েস্ট এর তত্ত্বাবধানে মােংলা বাসস্ট্যান্ড ,

দিগরাজ বাজার এবং রামপাল এলাকায় ৪০০ কর্মহীন ও ছিন্নমুল পরিবারের মাঝে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সহায়তা ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয় । খাদ্য সহায়তা হিসেবে প্রতিটি পরিবারকে ১০ দিনের চাল , ডাল , তৈল , আটা , ছােলা ও লবণসহ বিভিন্ন দ্রব্য সামগ্রী প্রদান করা হয় ।

এছাড়া কমান্ডার চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের তত্ত্বাবধানে চট্টগ্রামের পতেঙ্গা , বন্দরটিলা , কাঠগড় ও ভাটিয়ারী এলাকায় ৩০০ পরিবারের মাঝে এবং কমান্ডার সাবমেরিন এর তত্ত্বাবধানে পেকুয়ার কাকড়া পাড়ায় ২০০ পরিবারের মাঝে অনুরূপ খাদ্য সহায়তা বিতরণ করা হয়

করােনায় উদ্ভূত পরিস্থিতি মােকাবেলায় নৌসদস্যরা দেশব্যাপী সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে । দেশের করােনা পরিস্থিতি উন্নতি না হওয়া পর্যড় নৌবাহিনীর এই মানবিক সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ।

0 0

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে সরকারী খাল রক্ষায় উপজেলা আওয়ামী লীগের শান্তিপূর্ণ মানব বন্ধনে স্থানীয় ইউপি চেয়াম্যানের সন্ত্রাসী হামলায় ৩জন আহত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
গত শনিবার ১ই মে” দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার ষোলঘর ইউনিয়নের কালাম চেয়ারম্যানের বাড়ী সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে।
জানাযায়, উপজেলার ষোলঘড় ইউপি চেয়াম্যান আজিজুল ইসলামের নেত্রীত্ব ঘটনার সুত্রপাত উৎপত্তি । এতে আহত হয় আওয়ামীলীগ নেতা তাহের মেম্বার ও উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা জনি খান ও মানিক খান, মারাত্মকভাবে আহত হলে তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা শ্রীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করাহয়।
এ ব্যাপারে আহত তাহের আলী মেম্বার বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলামসহ ১২জনের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার আড়িয়াল বিল হতে ষোলঘর বাজার দিয়ে বয়ে যাওয়া ষোলঘর মৌজার আর এস ৬৬২৬ দাগের সরকারী খালটিতে গত কয়েকদিন যাবৎ দখলের উদ্দেশে ষোলঘর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম অবৈধভাবে বালি ভরাট করছেন।
খাল দখলের প্রতিবাদ জানিয়ে, শনিবার দুপুর ১২ টায়।
স্থানীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুল ইসলাম উজ্জলের নেতৃত্বে, ইদ্রিস মিয়া, তাহের আলী মেম্বার, জনি খান,মানিক খান, সহ স্থানীয় প্রায় ২শত লোক মিলে।
অবৈধভাবে ভরাটকৃত সরকারী খালের উপর দাড়িয়ে শান্তিপূর্ণ ভাবে মানব বন্ধন করছিল।
খবর পেয়ে চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম ও তার ছোট ভাই নজরুল ইসলাম সহ
একই ইউনিয়নের ইউসুফ, আক্কাস, সাহাবুদ্দিন, অমিত, সুমন, রাজু দেওয়ান, রোমান, মামুন, আশিক, রফিকসহ অজ্ঞাত আরো ১ শত জনের একটি সন্ত্রাসী দল হাতে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে মানব বন্ধনের উপর অতর্কিত হামলা করে।
এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম হুকুম দেন মারপিটের জন্য, মানব বন্ধনে থাকা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও নিরীহ জনতার উপর আক্রমন করে এলোপাথারী মারপিট করে জখম করেন।
এছাড়া আজিজুল ইসলাম চেয়ারম্যানের অন্যতম ভাড়াকরে আনা এলাকার চিহ্নিত সুমন নামের এক সন্ত্রাসী হাতুড়ি দিয়ে তাহের মেম্বারের মাথায় আঘাত করে সাথে সাথে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন আঘাতের পড় আঘাতে রক্তাক্ত জখম হন তিনি।
একই সাথে ছাত্রলীগ নেতা জনি ও মানিক খান কে, গুরুতর জখম করেন ফেলে চলে যান, আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে স্থানীয়রা।
এ বিষয়ে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞার কাছে জানতে চাইলে তিনি
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব নিয়েছে। বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য।
শ্রীনগর সহকারী কমিশনার (ভুমি) কেয়া দেবনাথের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি সংবাদ পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে ফোন দিয়েছি এবং সরকারী খালের উপর সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছি।
এ ঘটনার মোল হুতা ইউপি চেয়াম্যান আজিজুল ইসলামের মোবাইলে ফোন দিয়ে ঘটনা জান্তে চাইলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ফোন কেটে দেন তিনি।
নিজ এলাকায় আজিজুল ইসলামের বিষয়ে জান্তে চাইলে তার ভয়ে কেউ মুখ খোলছেন না তবে স্থানীয় ভোক্তভুগী অনেকেই বিভিন্ন অপরাধ অপকর্মের তথ্য সাংবাদিকের কাছে জানিয়েছেন। সকল তথ্য নিশ্চিত হয়ে নির্ধারিত সময় পর্ব অনুযায়ী প্রকাশ করবেন কর্তিৃপক্ষ।

শুধুমাত্র দুর্নীতির কারণেই সরকার ভ্যাকসিন  সংগ্রহে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতেপারেনি: ফখরুল

সিটিজি টি্রবিউনডেস্ক: শুধুমাত্র দুর্নীতির কারণেই সরকার ভ্যাকসিন সংগ্রহে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ভ্যাকসিন সংগ্রহের বিষয়ে সরকার সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। সেটার কারণটা হচ্ছেশুধুমাত্র দুর্নীতি। অন্য কোনো কারণ এর মধ্যে জড়িত নয়।

রবিবার দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব এ মন্তব্য করেন। গত ১ মে দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন বিএনপি মহাসচিব।

ফখরুল বলেন, ভ্যাকসিনের অভাবে টিকা প্রদানের কার্যক্রম হঠাৎ বন্ধ করায় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। আমাদের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও বিএনপি এই বিষয়ে প্রথম থেকেই সরকারকে সতর্ক করেছে। কিন্তু তারা কোনো কর্ণপাত করেননি।

সভায় দেশে প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণ, কর্মের নিশ্চয়তা প্রদান, লকডাউনে কর্মচ্যুত শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ, খাদ্য সহায়তা নিশ্চিত, বিএনপির প্রস্তাবিত প্রণোদনা অনুযায়ী প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক শ্রমিকদের কমপক্ষে তিন মাসের জন্য ১৫ হাজার টাকা হারে এককালীন অনুদান প্রদান, শ্রমিক নির্যাতন ও বৈষম্য বন্ধ এবং চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে পুলিশের গুলিতে নিহতের পরিবার ও আহতদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ ও গ্রেপ্তারকৃত শ্রমিকদের মুক্তি দাবি জানানো হয়।

সম্প্রতি ভারত সরকার অক্সিজেন রপ্তানি বন্ধ করায় উদ্বেগ প্রকাশ করে স্থায়ী কমিটির সভায় বিকল্প উৎস থেকে অক্সিজেনসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি এবং দেশে অক্সিজেন উৎপাদনের ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়।।প্রতিবেদন:কেইউকে।

0 0

ঢাকা, রোববার ২ মে, ২০২১:
‘ভারতের নির্বাচনে গণতন্ত্রের বিজয় হোক’ এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

রোববার দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডের বাসভবনে সীমিত পরিসরে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এসংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন।

‘পশ্চিমবঙ্গ বা ভারতের যে কোনো নির্বাচন সম্পূর্ণ তাদের আভ্যন্তরীণ বিষয়’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যারাই ভারতে সরকার গঠন করুন, বাংলাদেশের সাথে ভারতের যে সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক ও পাশের পশ্চিমবঙ্গের সাথে যে নৈকট্য, তা যেনো আরো গভীরে প্রোথিত হয় এবং আমাদের দু’দেশের অমীমাংসিত বিষয়গুলোর দ্রুত সমাধান হোক, সেটিই আমাদের প্রত্যাশা। এবং আমরা চাই, ভারতে সবসময় গণতন্ত্রের বিজয় হোক।’

এসময় হেফাজত নেতা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী ঝর্ণার দায়ের করা ধর্ষণ মামলা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সোনারগাঁয়ের রিসোর্টে জনতার হাতে আটকের পর মামুনুল হক যাকে দ্বিতীয় স্ত্রী বলে পরিচয় দেন এবং এরপরেই নিজের স্ত্রীকে ফোনে জানান, সে আসলে শহিদুল সাহেবের স্ত্রী, সেই ঝর্ণা বিয়ে না করে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অবৈধ মেলামেশার অভিযোগে মামুনুলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছেন।’

এখন জনগণের সামনে মামুনুল হকের আসল চেহারা প্রকাশ পেলো উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যে হেফাজত নেতারা বিয়ে ছাড়াই এই সম্পর্ককে বৈধ বলে ফতোয়া দেন, তারাও আইনের দৃষ্টিতে দুষকর্মের সহযোগী হিসেবে চিহ্নিত।’