Home চট্টগ্রাম

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন—মোঃ কামরুল ইসলাম :সাংবাদিক নেতা হতে নয়-গণ—মাধ্যম কর্মীদের ভ্রাতৃত্ববন্ধনকে দৃঢ় করে মানবতাবোধকে জাগ্রত করা আমার মুল উদ্দেশ্য-আজ চট্টগ্রাম মুরাদপুরস্হ সংগঠনের অস্হায়ী কার্যালয়ে সকালে(১১-৩০)সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা গণ- মাধ্যম ব্যক্তিত্ব কবি ও মানবাধিকারকর্মী মোঃ কামরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন গণ-মাধ্যম ব্যক্তিত্ব ড.
এম, এ চৌধুরী সহ অন্যান্য সাংবাদিক ও গণ-মাধ্যম ব্যক্তিবর্গ।সভায় এই করোনা কালে যে সব সাংবাদিক বা যে সব গণ-মাধ্যমকর্মী যারা সঠিক তথ্য মানুষকে অবগত করাতে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন তাদের সহ অন্যান্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।
আর গণ-মাধ্যমকর্মী সহ যারা অসুস্হ তাদের সকলের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে ও করোনাকালে সকলের সুস্হতার জন্য ও নিরাপদে থাকার জন্য ও দোয়া করা হয়।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে মোঃ কামরুল ইসলাম বলেন এই সংগঠনের বয়স যদিও মাত্র কয়েকদিন কিন্তু ২০১৮ হতে এই ধরনের একটি সংগঠনের বিষয়ে চিন্তা ভাবনা আমার ছিল।এই সংগঠন অন্যান্য সংগঠনের স্বপক্ষের শক্তি হয়ে ভুমিকা পালন করে গণ-মাধ্যম কর্মীদের স্বার্থ সংরক্ষণে ভুমিকা রাখবে।

আগামীতে বেতার,টেলিভিশন সহ যে কোন প্রকাশিত পত্রিকার সাংবাদিকদের মধ্যে থেকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত কিছু অভিজ্ঞ,তরুন গণ-মাধ্যম কর্মীদের দ্বারা শুধু মাত্র
সংগঠন পরিচালিত হবে।
সাংবাদিক নেতা পরিচয়ে কোন অপসাংবাদিকতা কেউ জড়িত থাকলে তার বিষয়ে সংগঠন কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে।

মোঃ কামরুল ইসলাম আরো বলেন,বর্তমান উপ-কমিটি সংগঠনের রেজিষ্ট্রেশন,আগ্রহী নতুন সদস্যদের সংগঠনে তালিকাভুক্ত করণ সহ আগামী আহবায়ক কমিটি বা পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠনে বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহন করবে।
তবে করোনা পরিস্হিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে সকলের মতামতে পরবর্তী কমিটি গঠন করা হবে।এখন শুধু মাত্র সাংগঠনিক কর্মযজ্ঞ অব্যাহত থাকবে।

সভা শেষে সকলের মতামতে মোঃ কামরুল ইসলামকে আহবায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি বাস্তবায়ন উপ- কমিটি গঠন করা হয়।মোঃ কামরুল ইসলাম গণ-মাধ্যম [সাংবাদিক] পরিষদের সফলতা কামনা করেন ও সকলকে অভিনন্দন জানান মাত্র ৫- ৭ দিনের মধ্যে বাস্তবায়ন কমিটি গঠন,গঠনতন্ত্র প্রণয়ন সহ যাবতীয় কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন। গত ৪০ বছরে এই ধরনের সমমনা গঠন সাংবাদিকদের যে কল্যান করতে পারেনি এ সংগঠন করোনা পরিস্হিতি অনুকুলে আসার ৬ মাসের মধ্যে তাদের চেয়েও বেশি অবদান রাখবে বলে মত প্রকাশ করেন।

তিনি সকল সদস্যকে ধীরে ধীরে মানব কল্যানে
ভুমিকা রাখার পাশাপাশি মানবতাবোধকে জাগ্রত করন ও
অপ-সাংবাদিকতা পরিহার করার অনুরোধ করেন।এই সংগঠন শুধু মাত্র উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত জাতির প্রকৃত বিবেক নিয়ে আগামীতে পথ চলবে বলে মত প্রকাশ করেন।

_কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন–যুগ্ম আহবায়ক মোঃ ওসমান গনি,লায়ন ড.এম এ চৌধুরী,আমিনুল হক রিপন,সদস্য সচিব মোঃ এমরান হোসেন,সদস্য হেলাল উদ্দিন মিয়া,মোঃ শামীম,মোঃ নাজমুল হুদা,জয়নাল আবেদীন ফয়েজী,মোঃ ইসহাক বিন হোসাইন,মোঃ এরশাদ সহ প্রমুখ।

চট্টগ্রাম, ০৯ জুন, ২০২০:আজ (০৯-জুলাই বৃহস্পতিবার) দুপুরে মহানগরীর ওয়াসা মোড় এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। এসময় ৩ টি মামলায় ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উক্ত মোবাইল কোর্টে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আলী হাসান। এসময় বর্ণিত এলাকায় অবস্থিত কুটুমবাড়ি রেস্তোরাঁয় অভিযানে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক থেকে শুরু করে কর্মচারী কেউই স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। মুখে মাস্ক, হাতে হ্যান্ডগ্লভস কিছুই নেই। ফ্রিজে মাছ, মাংসের সাথে অপরিচ্ছন্ন উপায়ে সংরক্ষণ করা হচ্ছে আটার খামির ও অন্যান্য মশলা জাতীয় দ্রব্যাদি।

এছাড়াও নিজস্ব উৎপাদিত ফিরনিতেও নেই উৎপাদনের তারিখ মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ। এ সকল অপরাধে কুটুমবাড়ী রেস্তোরা ৪০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়। এসময় ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করা হয়। অপরদিকে একই এলাকায় অবস্থিত কুপার’স বেকারিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এসময় দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটিতে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউট (BSTI) এর মিল্ক ব্রেড (Milk Bread) এর লাইসেন্স না থাকলেও মিল্ক ব্রেড উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ করছে। এছাড়াও বিএসটিআই এর লোগো -৩৮৩ যা বিস্কুটের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য সেটা কেকে লাগিয়ে বিক্রি করছে।

উল্লিখিত অপরাধ আমলে নিয়ে কুপার’সকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে একই এলাকায় অবস্থিত ডুলছে (DULCE) বেকারীতেও অভিযান পরিচালনা করা হয়। দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটি বিএসটিআই থেকে একটি মাত্র বিস্কুটের জন্য লাইসেন্স নিলেও প্রকৃতপক্ষে বেশ কয়েকপ্রকার বিস্কুট উৎপাদন ও বাজারজাত করছে। মূলত ভিন্ন ভিন্ন বিস্কুটের জন্য পৃথক লাইসেন্স নেওয়ার কথা থাকলেও তারা মানছেন না।

এছাড়াও এখানে তাদের উৎপাদিত মিল্ক ব্রেড (Milk Bread) এর লাইসেন্স নেই। এসব অপরাধ আমলে নিয়ে ডুলছেকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সর্বমোট ৩ টি মামলায় ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উক্ত মোবাইল কোর্টে বিএসটিআই এর ফিল্ড অফিসার (ইন্সপেকটর) মোঃ শহিদুল ইসলামসহ চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন :সৈয়দ মো: নজরুল ইসলা, দক্ষিণ জেলা প্রতিনিধি : বোয়ালখালীতে ১০০লিটার দেশীয় তৈরী চোলাই মদসহ মো: আবু সৈয়দ নামে একজনকে আটক করেছে বোয়ালখালী থানা পুলিশ।

আটককৃত মো: আবু সৈয়দ (৩১) পিতা- মাতা- মববিয়া খাতুন, সাং-পোপাদিয়া, ৬নং ওয়ার্ড, মোহোত আমিনের বাড়ী, ৬নং ইউনিয়ন, বোয়ালখালী, জেলা- চট্টগ্রাম।
৮ জুলাই, রাতে বোয়ালখালী উপজেলার ৬নং পোপাদিয়া ইউনিয়নের ছাবের আহম্মদের পুত্র আবু সৈয়দকে ১০০ লিটার দেশীয় তৈরী চোলাই মদসহ উপজেলার জ্যৈষ্ঠপুরার ৮নং ওয়ার্ড কালুরঘাট ভান্ডালজুরী সড়ক দুচ্ইাল্যা ৮নং ব্রীজের পূর্ব পাশে থালের নীচে থেকে আটক করেন বোয়ালখালী থানা পুলিশ।

১০০লিটার চোলাই মদসহ আবু সৈয়দ নামে একজনকে আটক করেন বোয়ালখালী থানা পুলিশে এসআই মো: আরিফুর রহমান সরকার সঙ্গীয় এস আই মো: নেছার।
অপরএকটি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে ৬নং পোপাদিয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডস্থ কানুগোপাড়ার মোড় আনু বেকারী সামনে পাকা রাস্তার উপর ৫১ পিচ ইয়াবাসহ (৩৬)কে থানা পুলিশ আটক করেন।

বোয়ালখালী উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নের, খঞ্জপাড়ার কায়কোবাদ প্রফেসর বাড়ীর মো: বাহাদুর চৌধুরীর ছেলে ।
এ ব্যাপারে থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে৷ বোয়ালখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল করিম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ১০০লিটার চোলাই মদসহ মো: আবু সৈয়দ (৩১)কে ও মো: ইউনুচ প্র: নান্টু চৌধুরী ৫১ পিচ ইয়াবাসহ আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করে আদালতে প্রেরণ করা হয়।

মাদকমুক্ত বোয়ালখালী গড়তে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০:তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘প্রকৃতপক্ষে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিজে এবং তার নেতৃত্বে দলের নেতৃবৃন্দসহ পুরো বিএনপিই এখন হোমআইসোলেশনে। হঠাৎ হঠাৎ টেলিভিশনে উঁকি দিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলা ছাড়া বিএনপির আর কোনো কাজ নেই।’

আজ বৃহস্পতিবার (০৯ জুলাই) সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ‘করোনা মোকাবিলা করা এমন কঠিন কিছু ছিল না’-এ মন্তব্য নিয়ে প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেবের বক্তব্যে মনে হয় সারা দুনিয়ায় সবদেশের ক্ষেত্রেই করোনা মোকাবিলা এমন কঠিন কিছু ছিল না, অথচ উন্নত দেশগুলোসহ পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ মানুষ করোনায় মৃত্যুবরণ করেছে। যারা জনগণের পাশে নেই, জনগণের জন্য কিছু করছেন না, হঠাৎ হঠাৎ টেলিভিশনে উঁকি দিয়ে এ ধরণের কথা বলা তাদেরই মানায়। দায়িত্বপূর্ণ জায়গা থেকে এ ধরণের কথা বলা সমীচীন নয়।’

সমগ্র পৃথিবী আজ করোনাভাইরাসের কারণে অসহায় এবং পৃথিবীর উন্নত দেশগুলো অর্থনৈতিকভাবে বাংলাদেশের তুলনায় অনেক সমৃদ্ধ হলেও করোনা মোকাবিলায় তাদের অসহায়ত্ব প্রকাশ পেয়েছে, সেখানে মৃত্যুর মিছিল ছিল, বলেন ড. হাছান। তিনি বলেন, ‘সেই তুলনায় বাংলাদেশ সীমিত সামর্থ্যরে একটি উন্নয়নশীল দেশ। এখানকার শহরগুলো পৃথিবীর সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ। এ সত্ত্বেও, এখনও পর্যন্ত সরকার এবং বেসরকারি পর্যায়ের সমস্ত হাসপাতাল ও স্বেচ্ছাসেবীসহ সম্মিলিতভাবে করোনা মোকাবিলার ক্ষেত্রে আমরা অনেক উন্নত দেশের তুলনায় সাফল্য দেখাতে সক্ষম হয়েছি, বিশেষ করে মৃত্যুহার কম রাখার ক্ষেত্রে। আমাদের দেশে মৃত্যুর হার ভারত-পাকিস্তানের চেয়েও কম এবং ইউরোপ-আমেরিকার চেয়ে অনেক কমতো বটেই।’

বিএনপি নেতা রুহুল কবীর রিজভী’র মন্তব্য ‘মানুষের মুখ বন্ধ রাখতে সরকার মামলা করছে’ -এর জবাবে ড. হাছান বলেন, ‘সরকার কারো বিরুদ্ধে মামলা করেনি। সাম্প্রতিক সময়ে যে সমস্ত মামলা হয়েছে, সবগুলোই বিভিন্ন সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি করেছেন। বিএনপির নেতারা জনগণ এবং সরকার দু’টিই গুলিয়ে ফেলছেন। জনগণের কেউ যদি সংক্ষুব্ধ হন, দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী তিনি তার সুরক্ষার জন্য যেকোনো আইনী পদক্ষেপ নেয়ার অধিকার রাখেন।’

এসময় রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদের বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ সরকারের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এবং গণমাধ্যমকে তাদের ভূমিকার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘সরকারই কিন্তু তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। এরপর তার ব্যাপারে পত্র-পত্রিকায় যে অনুসন্ধানী রিপোর্টগুলো বেরিয়েছে সেজন্য গণমাধ্যমকে ধন্যবাদ। এতে প্রমাণিত হয়, সে খুব সুচতুর একজন প্রতারক। এরকম আরো প্রতারক যারা আছে, আমাদের সম্মিলিতভাবে তাদেরকে খুঁজে বের করা প্রয়োজন।’

শাহেদ আওয়ামী লীগের সদস্য কি না এ প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সে দাবি করছে, সে আওয়ামী লীগের কোনো একটা উপ-কমিটিতে ছিল। কিন্তু আমাদের দলীয় কার্যালয়ে তো আমি প্রতিদিন যাই। সে আওয়ামী লীগের কোনো উপ-কমিটির সদস্য ছিল বলে আমার জানা নেই।’

একইসাথে তার এই হাসপাতালকে কোভিড-১৯ চিকিৎসা দেয়ায় সংযুক্ত করার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আরো সতর্ক হওয়া প্রয়োজন ছিল বলে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনেকরি, বলেন ড. হাছান মাহমুদ।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন আয়াজ আহমাদ:চট্টগ্রাম- ৯ জুলাই ২০২০ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন,করোনা মহামারি দেশের শিক্ষার্থীদের মূল্যবান শিক্ষাবর্ষকে দাবিয়ে রেখেছে। তাই এই পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকলেও একেবারে হাত-পা গুটিয়ে শিক্ষার্থীদের বসে থাকতে হবে না।

প্রযুক্তি তাদেরকে এই আপদকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলায় যে শক্তি ও ক্ষমতা দিয়েছে তাকে ব্যবহার করে শিক্ষা পাঠ গ্রহণ চালিয়ে যেতে সরকার যে উদ্যোগগুলো নিয়েছেন তাকে পালন ও অনুসরণ করতে পারলে শিক্ষার্থীরা নিজেদের তৈরী করে নিতে পারবে।

তবে এটাও ঠিক শিক্ষার্থীদের একটি বড় অংশ এবং যে পরিবারগুলো দারিদ্রসীমার নিচে তাদের প্রযুক্তিগত সুবিধা ভোগ করারমত সামর্থ নেই। স্বাভাবিক অবস্থায়ও শিক্ষাপাঠ গ্রহণ বা অধ্যয়ন প্রযুক্তিনির্ভর। ইন্টরনেট এক্ষেত্রে একটি সবচেয়ে কার্যকর ব্যবস্থা।

সরকার চিন্তা করছেন ইন্টারনেটের গতিকে অধিকতর দ্রুত করতে এবং এই ইন্টারনেটের আওতায় শিক্ষার্থীদের পাঠ গ্রহণে আনা। তিনি আরো বলেন,

আজকের এই সংকট একদিন কেটে যাবে কিন্তু তারপরও এর জের অনেকদিন ধরে থাকবে। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম তখন তাদের যোগ্যতা মেধা ও সক্ষমতা দিয়ে মোকাবেলা করতে পারে সেজন্য এখন থেকেই মানসিক প্রস্তুতি নিতে হবে। আজ অপরাহ্নে ১৯ নং দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডের আরবান হোম আনন্দ স্কুলের শিক্ষার্থীদের মাঝে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

এসময় কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মাদ আবুল হাশেম, নিউ মার্কেট কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর, হাজী বেলাল আহমদ, আনিসুর রহমান চৌধুরী, শ্রমীকলীগ নেতা মোহাম্মদ হারুন, মোহাম্মদ মিজান,

চর চাক্তাই সিটি কর্পোরেশন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মানিক চন্দ্র বৈদ্য, শিক্ষক শান্তা আকতার, এস এম মামুনুর রশিদ উপস্থিত ছিলেন।

0 0

রানা সাত্তার,চট্টগ্রামঃগতকাল বুধবার বিকেল আনুমানিক ৩ টায় মুসাফির খানা তৃতীয় তলায় বাংলাদেশের একমাত্র শক্তিধর ও গ্রহনযোগ্য আদি সংগঠন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ফোরাম এর সকল সদস্যদের নিয়ে মাসিক সভা ও আলোচনা সভা সম্পন্ন হয়।
এ সময় সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক রুবেল এর সঞ্চালনায় ও শিব্বির আহমেদ ওসমান এর সভাপতিত্বে -সংগঠনের এর প্রচার ও প্রকাশক নুর হোসেন এর পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত এর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
এ সময় সভাপতি বলেন,সবারই ভালো কিছু করার স্বপ্ন থাকতে হবে, স্বপ্ন দেখতে হবে!স্বপ্ন পূরণের জন্য থাকতে হবে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।আমি বিশ্বাস করি একনিষ্ঠভাবে লেগে থাকলে আমাদের স্বপ্ন একদিন সফল হবেই।তবে সবার কাছে হাত জোরালো অনুরোধ কোন প্রকার অপরাধের প্রমান পাওয়ার আগেই নিজেই সংগঠনে থেকে বের হয়ে যাবেন।অন্যথায় বের করে দেয়া হবে।কোনো অপরাধ ঢাকার জন্য কিন্তু সংগঠন কে বেক্যাফ ভাবলে চরম ভুল করবেন।
তিনি আরো বলেন, বর্তমান তরুণ সমাজ মাদকসহ নানা অপসংস্কৃতির কবলে পড়ে ধ্বংসের পথে। তরুণ সমাজকে ধবংসের হাত থেকে রক্ষা করতে না পারলে, দেশ ভবিষ্যতে নেতৃত্ব্ সংকটে পড়বে। তরুণদের আদর্শ জাতি গঠন করতে হলে অন্যান্য সামাজিক সংগঠনের মতো সকল সাংবাদিক সংগঠনের ভুমিকা রয়েছে।এ জন্য জনক্যলাণে নিয়োজিত সামাজিক সংগঠনগুলোর পাশে দাঁড়াতে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ফোরাম প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
এবারের সভায় সবার একটাই মূল বিষয় ছিল, দেশ ও বিদেশের সকল সদস্য বৃন্দকে ঐক্য, ভ্রাতৃত্ববোধের বন্ধনে অটুট রাখা, সকলে মিলেমিশে নিজ নিজ স্থান থেকে সংগঠনকে এগিয়ে নেওয়া, আল্লাহর ওয়াস্তে মানবতার কল্যাণে কাজকরা।সকল সদস্য বৃন্দ সিনিয়র, জুনিয়র একে অপরের সাথে যোগাযোগ রাখা।দেশের সকল সদস্য বৃন্দকে সার্বক্ষণিক ঐক্য ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে অটুট রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া।বৃহত্তম চট্টগ্রামের মানবতার কল্যাণে চিন্তা চেতনা নিয়ে এগিয়ে যাওয়া।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন,সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মুহাম্মদ রিপন, (জাতীয় দৈনিক যায়যায় কাল ব্যুরো প্রধান) সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সামাত রুবেল( সহ সম্পাদক:দৈনিক দিনপ্রতিদিন),সহঃসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সাত্তার রানা(রানা সাত্তার, দৈনিক তৃতীয় মাত্রা চট্টগ্রাম প্রতিনিধি ও প্রবাস মেলা ব্যুরো চিপ),সাঈদুর রহমান চৌধুরী (মাই টিভি), জসিম উদ্দিন (দৈনিক দিনপ্রতিদিন), নুর হোসেন ( দৈনিক সোনালী খবর), এম এ মান্নান (দৈনিক বর্তমান সময়), খোকন নাথ (দৈনিক বর্তমান সময়), লোকমান আনসারী,( দৈনিক জবাবদিহি) ফিরোজ উদ্দিন (দৈনিক নব জীবন ও জবাবদিহি),ইব্রাহিম হোসেন রাকিব (দৈনিক জবাবদিহি), ফরিদা সীমা (দৈনিক প্রথম বার্তা) আফরাহ জাহান(সাপ্তাহিক চট্টবানী), ফরিদা সীমা (দৈনিক প্রথম বার্তা) শিরিন আক্তার (প্রথম বার্তা) প্রমুখ

0 0

দেশপ্রিয় বড়ুয়া লোহাগাড়াঃগতকাল ৮ জুলাই ২০২০ইং (বুধবার) সকাল ১১ টায় চট্টগ্রাম লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া স্টেশনে মুহাম্মদ মিয়া ফারুকের অফিস কক্ষে দৈনিক আজকের বসুন্ধরা পত্রিকার প্রতিনিধিদের নিয়োগ পত্র ও পরিচয় প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক,
লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি এডভোকেট মুহাম্মদ মিয়া ফারুক এর সভাপতিত্ব
প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কলম সৈনিক ও অন্যায়ের প্রতিবাদী সাংবাদিক নেতা,চট্টগ্রাম সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি শিব্বির আহমেদ ওসমান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, সাংবাদিক হচ্ছে জাতির বিবেক,সত্য প্রকাশ করে জনগনের সামনে তুলেধরাই হচ্ছে সাংবাদিকের কাজ।সত্যের জন্যে আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। মিথ্যার সাথে কোন রকম আপোষ নয়।এছাড়াও সাংবাদিকদের অধিকার আদায় করার জন্যে সাংবাদিকদের এক হওয়ার কথাও বলেন।
বক্তব্য শেষে তিনি দৈনিক আজকের বসুন্ধরা পত্রিকায় চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ক্রাইম রিপোর্টার হিসাবে নিযোগ প্রাপ্ত এনামুল হক এবং বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত নয়ন দেব নাথের হাতে নিয়োগ পত্র, প্রেসকার্ড তুলেদেন এবং তাঁদের ফুলদিয়ে শুভেচ্ছা জানান। অনুষ্ঠানে গেষ্ট অফ অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক আজকের বসুন্ধরা পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আলমগীর হোসেন রানা,প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ- সভাপতি,

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা লোহাগাড়া শাখার সভাপতি মাহমুদুল হক চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি এম. এ. তাহের, লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার, লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক দেশপ্রিয় বড়ুয়া,লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক মো: এরশাদ সহ আরো উপস্থিত ছিলেন দৈনিক দিন প্রতিদিনের প্রতিনিধি জামিল উদ্দিন, এড. হুমায়ুন আহমেদ,

জনতার টিভি লামা প্রতিনিধি ফরিদুল আলম বাবলু,প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী সদস্য জিয়া হোসেন,অপরাধ বিস্তার লোহাগাড়া প্রতিনিধি আলমগীর হোসেন,লোহাগাড়া প্রেসক্লাবের ফটো সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন;কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম চৌধুরী (৭৭) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

বুধবার (৮ জুলাই) বিকাল চারটার দিকে কক্সবাজার শহরের একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বর্ষিয়ান এই আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ মরহুমের শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে বলেন, নজরুল ইসলাম চৌধুরী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর ছিলেন। ৬০ এর দশকের তুখোড় ছাত্রনেতা এই রাজনীতিক ৭০ এর নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার সেলের কান্ডারী ও কক্সবাজারের মাটি ও মানুষের প্রিয়নেতা ছিলেন।

আমরা একজন দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক নেতাকে হারিয়েছি। তাঁর মৃত্যুতে স্থানীয় রাজনীতিতে যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা পুরন হবার নয়। মহান আল্লাহর কাছে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন তথ্যমন্ত্রী।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন আয়াজ আহমাদ :চট্টগ্রাম- ৮ জুলাই ২০২০ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, করোনা ভাইরাসের বাহন এখন বাতাস। এই বাতাসের উপর ভর করে চীনের উহান প্রদেশ থেকে ঢাকায় আসতে করোনা সময় নিয়েছে মাত্র ৩ মাস। বাংলাদেশে যেদিন প্রথম রোগী সনাক্ত হলো সেদিন ছিল এটা বড় সংবাদ। এখন এই করোনা প্রতিদিনের বড় সংবাদ। এই করোনাকালে অন্য দূর্যোগগুলোও বসে নেই। এরই মধ্যে রুটিন মাফিক হানা দিয়েছে ঘুর্ণিঝড় আম্ফান।

তারও আগে সিডর ও আইলা ঘুর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ¡াস বাংলাদেশের উপকূল অঞ্চল সহ জনপদ লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে। ভয়াবহ প্রাকৃতিক দূর্যোগের অভিজ্ঞতা থাকলেও করোনা মহামারি সম্পর্কে বাংলাদেশতো বটেই সারা বিশ্বেরও কোন পূর্ব অভিজ্ঞতা ছিল না। তাই তার লাগামহীন দৌরাত্মে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। এতকিছুর পরও এখন পর্যন্ত করোনা প্রতিরোধক স্থায়ী প্রতিশেষধক আবিস্কার হয়নি। তাই সঠিক ভাবে বলা যাচ্ছে না কবে ও কখন করোনা আগ্রাসন থেকে মানব জাতি মুক্তি পাবে। তবে আমরা ভয়কে জয় করতে জানি।

বিজয়ী ও লড়াকু জাতি হিসেবে বাঙালির ঘুরে দাঁড়ানোর শক্তি আছে। তিনি আজ সকালে স্থানীয় সরকার পরিচালিত ইউএনডিপি ও ইউকে- এইডের সহায়তায় বাস্তবায়িত প্রান্তিক জনগোষ্টির জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকার ৪০ ও ৪১ নং ওয়ার্ডের দরিদ্র জনগোষ্টির গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী মায়েদের জন্য ১ হাজার দিনের জরুরী পুষ্টি খাদ্য সহায়তা প্রদানকালে একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, করোনাকালে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক ধ্বস ও স্থবিরতার কারণে শ্রেণীগত অবস্থানের ক্রম অবনমন ঘটছে।

বাংলাদেশে দারিদ্রসীমা নিম্নমুখি হতে হতে করোনা পূর্ববর্তী সময়ে ৭ ভাগের কাছাকাছি নেমে এলেও এখন বিরূপ পরিস্থিতিতে বেকারত্ব ও কর্মহীন মানুষের সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাওয়ায় দারিদ্র বৃদ্ধির মাত্রা ৩০ শতাংশে উত্তীর্ণ হয়েছে। এছাড়াও বিদেশেও অনেক প্রবাসী কর্মহীন অবস্থায় কালাতিপাত করছেন। তারা দেশে ফেরার পর দারিদ্রের ক্রম অবনমন পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে নামবে তা ভাবতে গিয়ে শিউরে উঠতে হয়। এমন একটি প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও সরকার প্রধান শেখ হাসিনা সুদিন ফিরিয়ে আনার জন্য লড়াইয়ের মাঠে আছেন।

তিনি বিধ্বস্থ অর্থনীতি পূনরুদ্ধারে ক্ষতিগ্রস্ত শিল্প উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীসহ সকল অর্থনৈতিকখাতে প্রণোদনা বরাদ্দ দিয়ে যাচ্ছেন। লকডাউনের মধ্যেও জীবন-জীবিকার সমন্বয়ে অর্থনীতির চাকাকে গতিশীল রাখার জন্য সময়োপযোগি পদক্ষেপ নিয়েছেন। আজ গণমাধ্যমে প্রায় প্রতিদিনই দু:সংবাদ জানান দেয়া হলেও অনেক ইতিবাচক আশাবাদও আছে। বাংলাদেশে রাষ্ট্রিয় তহবিল ভান্ডারে ৩৬ বিলিয়ন ডলার মওজুদ আছে। জুন মাসে প্রবাসীদের রেমিটেন্স প্রেরণের হার ছিল সর্বোচ্চ। সবচেয়ে শুভ সংবাদ হলো আউশ ধানসহ মৌসুমী ফসলের বাম্পার ফলন হয়েছে।

মানুষের স্বাভাবিক ক্রয় ক্ষমতা কিছুটা কমতির দিকে হলেও কারও না খেয়ে মৃত্যুর কোন দু:সংবাদ নেই। তিনি করোনা মোকাবেলায় জনসচেতনতা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও সরকারি নির্দেশনা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনার মত একটি মারাত্মক আগ্রাসনকে প্রতিহতের জন্য জনসচেতনতাকে প্রাথমিক প্রতিরোধ হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, আগে জানতাম ছোঁয়াছে সংক্রমনের কথা। কিন্তু করোনা কখনো সহজেই ঘরে ঢুকে না এবং সে ভিশন অভিমানী, তাকে দাওয়াত দিয়ে ঘরে ডেকে আনতে হয়। সে-তো বাতাসেই ভর কর আছে।

আমরা যদি দাওয়াত দিয়ে তাকে ঘরে ডেকে না আনি তাহলে সে-তো জোর করে ঘরে ঢুকতে পারে না। তাই করোনা নিয়ে ভয়ের কোন দরকার নেই। প্রয়োজন শুধু নিজের সচেতনতা ও সুরক্ষা।

এসময় কাউন্সিলর সালেহ আহমদ চৌধুরী, হাজী মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহানুর বেগম, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের টাউন ম্যানেজার মোহাম্মদ সরোয়ার খান,

পুষ্টি বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ হানিফ, টাউন ফেডারেশনের চেয়ারপার্সন কোহিনুর আকতার, মোহাম্মদ জাবেদ হোসেন, হারুনুর রশিদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

0 0

সি টি জি ট্রিবিউন আয়াজ আহমাদ :চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ রাজস্ব বাবদ পাওনা থেকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে ৩৫ কোটি ৫৫ লাখ টাকা চেকমূলে পরিশোধ করা হয়। আজ অপরাহ্নে টাইগারপাসস্থ চসিক কার্যালয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে তাঁর দপ্তরে এই চেকটি হস্তান্তর করেন চসিক প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মুফিদুল আলম।

চেক গ্রহণকালে সিটি মেয়র চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আর্থিক সংকটের মধ্যেও করোনাকালে সিটি কপোরেশনের উন্নয়ন কর্ম পরিকল্পনা বাস্তবায়নসহ করোনাকালে প্রসারিত সেবামূলক কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে চসিকের রাজস্ব আদায়সহ কর আদায় ক্ষেত্র সংকুচিত হলেও সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে কোন স্থবিরতা নেই।

তিনি চসিকের সেবাদানের সক্ষমতাকে সচল রাখতে গৃহকর সহ রাজস্বআয়ের গতি অব্যাহত রাখার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা -কর্মচারীদের আহবান জানান। এসময় চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শামসুদ্দোহা, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, নির্বাহী ম্যাজিসেট্রট মারুফা বেগম নেলী,

স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট জাহানারা ফেরদৌস, প্রধান হিসাবরক্ষন কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুদদীন,কর কর্মকর্তা মোহাম্মদ সারেক উল্লাহ, হিসাবরক্ষন কর্মকর্তা মোঃ রাশেদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।