খোদ শহর কলকাতার বুকে পণপ্রথা! সোচ্চার দেবলীনা, কী বলছেন তিনি?

খোদ শহর কলকাতার বুকে পণপ্রথা! সোচ্চার দেবলীনা, কী বলছেন তিনি?
সিটিজিট্রিবিউন: ‘সময়ের সঙ্গে সমাজ এগোচ্ছে। কিন্তু মানুষের মানসিকতার বদল হয়তো ঘটছে না। এখনও সমাজের আনাচেকানাচে গোপনে বেঁচে রয়েছে পণপ্রথা! এবারে পণ নেওয়ার বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেন অভিনেত্রী দেবলীনা কুমার। সোমবার সমাজমাধ্যমে একটি পোস্ট করেন দেবলীনা। তাঁর পোস্ট থেকেই জানা যায় সচ্ছল পরিবারে এখনও পণ নেওয়ার চল রয়েছে। তবে অভিনেত্রী বরপক্ষের পরিবারের নাম আড়ালেই রেখেছেন। দেবলীনা ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘আজকে শুনলাম আমার এক জন চেনা ছেলে নাকি বিয়ের জন্য পণ চেয়েছে। আজ্ঞে হ্যাঁ,… এই খোদ কলকাতাতে।’’ এরই সঙ্গে অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘‘লজ্জাতে মাথা কাটা যাচ্ছে তোমাদের চিনি বলে।’ এই প্রসঙ্গে আনন্দবাজার অনলাইনকে দেবলীনা বললেন, ‘‘ওরা আমার পরিচিত। তবে ঘটনাটা আমি এক পরিচিতের মুখে শুনলাম। ভাবতেই খারাপ লাগছে যে, এখনও আমাদের চারপাশে শিক্ষিত পরিবারে এ রকম ঘটনা ঘটছে।’’ দেবলীনা পাত্রপক্ষের নাম খোলসা না করলেও জানালেন তাঁরা ইন্ডাস্ট্রির কেউ নন। আর বললেন, ‘‘ওরা কিন্তু দু’বছর সম্পর্কে থাকার পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। তবে ভাল খবর এটাই যে শুনলাম মেয়েটি বিয়ে ভেঙে দিয়েছে।’’’ দেবলীনা বলছিলেন, ‘‘শুনলাম, ছেলেটির দাদাও নাকি এক সময় পণ নিয়েই বিয়ে করেছিল। এ বারে ভাইয়ের সময় মেয়েটি রাজি হয়নি দেখে ভাল লাগছে।’’ সমাজের বিভিন্ন স্তরে এখনও পণপ্রথার মতো কুপ্রথা পালিত হয়। এক জন তারকা হিসেবে মহিলাদের কী বলবেন? দেবলীনার সাফ উত্তর, ‘‘মুখ খুলতে হবে। অন্যায়ের প্রতিবাদ করবেন। আমি হলে তো পুলিশে অভিযোগ জানাতাম।’’ এই মুহূর্তে ‘সাহেবের চিঠি’র শুটিং শেষ করেছেন দেবলীনা। ‘চুপচাপ চার্লি’ নাটকের শো নিয়েও রয়েছে ব্যস্ততা। পাশাপাশি চলছে নতুন কাজের চিন্তাভাবনা।।প্রতিবেদন:কেইউকে।

Leave a Reply