বান্দরবানে বন্য হাতির আক্রমণে ব‍্যাপক ক্ষয়ক্ষতি আতংকে এলাকাবাসী

বান্দরবানে বন্য হাতির আক্রমণে ব‍্যাপক ক্ষয়ক্ষতি আতংকে এলাকাবাসী

 

সিটিজি ট্রিবিউন বান্দরবান প্রতিনিধি মোহাম্মদ আজিজ উল্লাহ।

 

বান্দরবান আলীকদম উপজেলার মান্নান মেম্বার পাড়াতে বন‍্য হাতির আক্রমনে বসতবাড়ী ও ফসলী জমির ব‍্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারী) রাত সাড়ে ৩টা থেকে প্রায় দুই ঘন্টা যাবত এই তান্ডব চলে।

স্থানীয়রা জানান, শেষ রাতে হঠাৎ এলাকায় একদল বন্য হাতি (০৪ টি) আক্রমণ করে।এতে ১ টি জুম ঘর,২ টি বসত ঘর ও আবাদি ৫ একর ফসলি জমির ব‍্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়।

ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক মোঃ হারুন বলেন,রাতে একদল বন‍্য হাতি আমার বসত ঘরে আক্রমন করলে আমরা ভয়ে পালিয়ে যাই।হাতির দল আমার বসত ঘরটি সম্পূর্ণ ভেঙ্গে ফেলেছে।

এছাড়াও নুরুল আফসার,মোঃ আব্দুল্লাহ,
মিজানুর রহমান,আব্দুল কুদ্দুস সহ অনেকের তামাক ক্ষেত ও ফসলি জমি তছনচ করে দেয়।তবে উক্ত ঘটনায় কোন হতাহত হয়নি এখন আমরা আতঙ্কে দিনাতিপাত করছি।

ভুক্তভোগি এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা জানান, দীর্ঘ ২ যুগ ধরে এসব এলাকায় বন্যহাতি মাঝে মাঝে তান্ডব চালিয়ে আসছে। সরকারিভাবে কোন পরিসংখ্যান বা তথ্য পাওয়া না গেলেও বেসরকারি তথ্য মতে, বন্যহাতির নিষ্ঠুর আক্রমনে এযাবতকালে প্রায় অর্ধশত লোক অকালে প্রাণ হারিয়েছে এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিসংখ্যান হিসাব বিহীন। হাতির আক্রমন বন্ধ করতে সরকারিভাবে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করা উচিত।

আলীকদম তৈন রেঞ্জ বন বিভাগ কর্মকর্তা জনাব শাহজাহান চৌধুরী ঘটনার সত‍্যতা নিশ্চিত করে বলেন,লামা-চকোরিয়া-কক্সবাজার বনাঞ্চলে ১৫/২০ টির একটি বন‍্য হাতির দল রয়েছে।মাঝে মাঝে দলছুট হয়ে কিছু বন‍্য হাতি লোকালয়ে চলে এসে এসব ক্ষয়ক্ষতি করে।তবে আজ বনবিভাগ কর্তৃক এই হাতি গুলোকে আলীকদম এলাকা থেকে তাড়িয়ে কক্সবাজার রেঞ্জে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্তরা আবেদনের প্রেক্ষিতে সরকারীভাবে সম্পূর্ণ ক্ষতিপূরণ পাবে।বর্তমানে এসব এলাকা এখন আতঙ্কমুক্ত করা হয়েছে এবং এলাকার জনপ্রতিনিধিদেরকে আমরা আগামীকাল জানিয়ে দিব।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.