যে যাই বলুক অভিযানে ছাড় নাই, ১৯ গাড়ি জব্দ : টিআই মোশাররফ

যে যাই বলুক অভিযানে ছাড় নাই, ১৯ গাড়ি জব্দ : টিআই মোশাররফ

 

সিটিজি ট্রিবিউন, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  

কাপ্তাই রাস্তার মাথা নগরীর প্রধান ফটক মধ্য অত্যান্ত ব্যাস্ততম একটি এলাকা। দক্ষিণ চট্টগ্রাম ও উত্তর চট্টগ্রামের একটি মিলনস্থল হওয়ায় প্রতিনিয়ত সুযোগ সন্ধ্যানী গ্রাম সিএনজি, ব্যাটারি রিক্সাসহ বেশ কিছু গাড়ি বেপরোয়াভাবে শহর সীমানায় প্রবেশ করলেও মোহরার টিআই মোশাররফ এর হাতে প্রতিনিয়ত মামলা ও টো হতে হচ্ছে তাদের।

গত (২৫ জুলাই) সোমবার দেখা যায়, প্রতিনিদিনের চলমান অভিযানের অংশ হিসেবে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্য মোট ১৯টি পরিবহন জব্দ করা হয়। তার মধ্যে গ্রাম সিএনজি ১৫টি, ৩টি ব্যাটারি রিক্সা ও ১টি মোটর সাইকেল।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে টিআই মোশাররফ বলেন, আমার আওতাধীন সীমানায় কখনো নিয়ম বর্হিঃভূত পরিবহন চলতে ছাড় দেয়া হবে না।কিছু সীমানা পেড়িয়ে ডুকে গেলেও তাদের আমরা দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসি।আর তাছাড়া কোনো কেও শ্রমিক নেতার বা দলের নাম ভাঙ্গিয়ে নেতা বা সংগঠন সেজে সিএনজি হতে চাদা তুললে এতে ট্রাফিক বিভাগের নাম আসবে কেন?এইসব অবৈধ কালেকশন এর সাথে পুলিশকে জড়ানোর যথাযথ যুক্তিযুক্ত কারন খুজে পাচ্ছি না।তবে মানবিক দিক থেকে আমরা মাঝে মাঝে কিছু সিএনজি ছেড়ে দেই যেমন- একটি গ্রাম সিএনজি রক্তাক্ত সড়ক দূর্ঘটনার রোগী নিয়ে মেডিকেল যাবে,বা ডেলিভারির পেইন ওঠা মা-বোন নিয়ে নগরীর হাসপাতাল গুলিতে যাবে সে ক্ষেত্রে একজন মানুষ হিসাবে আমাদের যা করার সেই বিবেচনায় হঠাৎ কিছু সিএনজি ছেড়ে দিতে হয়।

তিনি আরো জানান,অতি দুঃখের বিষয় যে,স্থানীয় একটি পত্রিকায় মিথ্যা ভিত্তিহীন একটি নিউজ হওয়ায় আমি ব্যাক্তিগতভাবে নিন্দা জানাচ্ছি।নিউজটিতে আমার নাম ও পদবী ব্যাবহার করা হয়েছে কিন্তু আমার বক্তব্য নেয়া হয়নি বা এই বিষয়ে আমি জানিনা।এইরকম নিউজ হলে আসলেই দুঃখজনক।

এ বিষয়ে সিএমপি অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ জানান, নগরীতে অবৈধ যানবাহন চলাচল রোধে ট্রাফিক বিভাগ রাত-দিন অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।প্রতিদিন শত শত গাড়িকে মামলা ও টো করে জব্দ করা হচ্ছে।এ ক্ষেত্রে কাওকে ছাড় দেয়া হবে না।যদি পুলিশ সদস্য কারো বিরুদ্ধে সুষ্টু প্রমানসাপেক্ষে অভিযোগ পেলে তাও ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.