চট্টগ্রামে ইউপি চেয়ারম্যানদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা গ্রাম আদালতে নিরপেক্ষ ন্যায়-বিচার নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক

চট্টগ্রামে ইউপি চেয়ারম্যানদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা গ্রাম আদালতে নিরপেক্ষ ন্যায়-বিচার নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক

 

আয়াজ সানি সিটিজি ট্রিবিউন চট্টগ্রাম;

 

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেছেন, ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের পক্ষপাতমূলক আচরণের কারণে সাধারণ জনগণ গ্রাম আদালতে ন্যায়-বিচার থেকে বঞ্চিত হতো। গ্রামে কিছু কিছু তুচ্ছ বিষয় নিয়ে ঝগড়া বিবাদ বাঁধে। সংগঠিত সমস্যা নিয়ে মানুষ ন্যায় বিচার না পেয়ে থানা কিংবা আদালতের শরণাপন্ন হয়। ফলে দেশের আদালতগুলোতে মামলার জট লেগে থাকে।

এতে করে মামলার বাদী-বিবাদী হয়রানির শিকার ও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়। গ্রাম আদালতে কেউ কারো আত্মীয় না ভেবে চেয়ারম্যান-মেম্বারদেরকে নিরপেক্ষ ন্যায়-বিচার সকলের জন্য নিশ্চিত করতে হবে। বাস্তব পরিস্থিতি দেখে ন্যায় বিচার করলে গ্রাম আদালতে গ্রহণযোগ্যতা আরও বাড়বে।

আজ ২৫ মে  চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত ইউপি চেয়ারম্যানদের গ্রাম আদালত বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের সহযোগিতায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কর্মশালার আয়োজন করেন। সন্ধীপ ও ফটিকছড়ি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউএনডিপি প্রতিনিধি, প্রকল্পভূক্ত এলাকার ইউপি চেয়ারম্যানগণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।

জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক বদিউল আলমের সভাপতিত্বে ও সহকারী কমিশনার (স্থানীয় সরকার) এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নূর জাহান আক্তার সাথীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে গ্রাম আদালত কার্যক্রম টেকসইকরণে ইউপি চেয়ারম্যানদের দায়িত্ব সম্পর্কে আলোকপাত করেন ইউএনডিপি’র এভিসিবি-২ প্রকল্পের ন্যাশনাল কনসালট্যান্ট উজ্জ্বল কুমার দাস চৌধুরী।
ডিসি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশের গ্রাম আদালতগুলোকে ঢেলে সাজিয়েছেন।

প্রত্যেক সেক্টরে নারীর ক্ষমতায়নসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ যাতে ন্যায়-বিচার থেকে বঞ্চিত না হয় সেলক্ষ্যে গ্রাম আদালতগুলোকে সক্রিয়করণ করতে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। গ্রাম আদালতে জনপ্রতিনিধিকে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ থেকে বিচারিক কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

পাশাপাশি সরকারি সেবা জনগণের দৌঁড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে প্রত্যেককে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আন্তরিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.