কেরাণীগঞ্জের চাঞ্চল্যকর স্বামীর হাতে প্রবাসী স্ত্রী হত্যা মামলার আসামী স্বামী গ্রেফতার -র‍্যাব-১০

কেরাণীগঞ্জের চাঞ্চল্যকর স্বামীর হাতে প্রবাসী স্ত্রী হত্যা মামলার আসামী স্বামী গ্রেফতার -র‍্যাব-১০

 

আয়াজ সানি সিটিজি ট্রিবিউন ঢাকা;

 

রাজধানীতে গত ২৮/০৪/২২ রেশমা আক্তার জর্ডান হতে বাংলাদেশে আসে। সংবাদ পেয়ে রেশমার স্বামী নুরুল তালাক হওয়া সত্তে¡ও তাকে নিয়ে সংসার করার জন্য রেশমা ও তার মা-বোনসহ অন্যান্য আত্মীয়-স্বজনদের নিকট বিভিন্ন ভাবে আকুতি-মিনতি করতে থাকে। একপর্যায়ে রেশমাসহ সবাই নুরুলের কথায় রাজি হয়ে গত ১৫/০৫/২২ হতে পুনরায় তাদের সংসার জীবন শুরু করে রেশমাদের বাড়ীতে অবস্থান করতে থাকে।

বিগত ১২ বছর পূর্বে ভিকটিম রেশমা আক্তার (২৫) এর সাথে একই গ্রামের মোঃ নুরুল ইসলাম (৩৫) এর ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক বিবাহ হয়। বিবাহিত জীবনে তাদের একটি পুত্র সন্তান জন্ম গ্রহণ করে। বিবাহের কিছুদিন পর জীবিকার তাগিদে স্বামীর অনুমতিতে রেশমা আক্তার জর্ডান গমন করেন।

জর্ডানে থাকাবস্থায় রেশমার সাথে নুরুল ইসলামের সাংসারিক জীবনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিবাদ লেগেই থাকত।তাদের সাংসারিক বনিবনা না হওয়ায় গত ০৩ মাস পূর্বে রেশমা আক্তার জর্ডানে থাকা অবস্থায় তার স্বামী নুরুল ইসলামকে তালাক প্রদান করে।

গত ১৭/০৫/২২ সকালে রেশমা ও নুরুল ইসলাম দুজন তাদের একমাত্র পুত্র মোঃ ইয়াসিন আল-আমিন (১০)’কে মাদ্রাসায় ভর্তি করানোর জন্য যায়। মাদ্রাসা হতে ফেরার পথে ইয়াসিন’কে একা তার নানার বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে তারা দুজনে পাসপোর্ট ফটোকপি করার জন্য যায়।

একই তারিখ দুপুর ১২:৪৫ টায় নুরুল একা তার শ্বশুর বাড়িতে এসে তার ছেলেকে জানায় তার মাকে কেরাণীগঞ্জ মডেল থানাধীন বরিশুর এলাকায় (নুরুল ইসলামের ভাড়া করা মেসে) আটক করে রেখেছে।

একথা শুনে রেশমার মা এবং রেশমার ছেলে দ্রুত সেখানে গিয়ে মেসের দরজা তালাবদ্ধ অবস্থায় দেখতে পায়। জানালার পাশে রাখা চাবি দিয়ে রুম খুলতেই তারা অর্ধ গলা কাটা রক্তাক্ত অবস্থায় রেশমার লাশ ফ্লোরে পড়া অবস্থায় দেখতে পায়।

পরবর্তীতে মৃত রেশমার বোন বাদী হয়ে কেরাণীগঞ্জ মডেল থানায় উক্ত হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত মোঃ নুরুল ইসলামসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

উক্ত হত্যাকান্ডের সংবাদ প্রাপ্তির পর -র‍্যাব-১০ এর আভিযানিক দল পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষে তাদের গোয়েন্দা কার্যক্রম শুরু করে।

-র‍্যাব-১০গোপন সংবাদের ভিত্তিতে -র‍্যাব-১০ এর উক্ত আভিযানিক দল গত ২২ মে ২০২২ আনুমানিক ১০:০০ টায় রাজধানী ঢাকার পল্টন থানাধীন কাকরাইল এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে কেরাণীগঞ্জের চাঞ্চল্যকর স্বামীর হাতে প্রবাসী স্ত্রী হত্যা মামলার প্রধান আসামী স্বামী মোঃ নুরুল ইসলাম’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। জিজ্ঞাসাবাদে নুরুল উক্ত হত্যাকান্ডের সাথে তার সংশ্লিষ্টতার সত্যতা স্বীকার করে।

জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত মোঃ নুরুল ইসলাম তার স্ত্রী রেশমা আক্তারের সাথে পুনরায় সংসার জীবন শুরু করার দুদিনের মাথায় তাদের মধ্যে রেশমা আক্তারের সাথে কাতার প্রবাসী এক যুবকের সম্পর্কের সন্দেহসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিবাদের সৃষ্টি হয় এতে নুরুল ক্ষুব্ধ হয়ে পরিকল্পিতভাবে তার স্ত্রী রেশমা আক্তার’কে তার ভাড়া করা বাসায় নিয়ে ধারালো চাকু দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে বলে জানা যায়।

অত্র হত্যাকান্ডের পরপরই নুরুল ইসলাম নিজেকে আত্মগোপন করার জন্য প্রথমে বরিশাল গমন করে। সেখানে একদিন অবস্থান করার পর সে লঞ্চযোগে ঢাকা ও চাঁদপুর হয়ে চট্টগ্রাম যায়। চট্টগ্রামে দুইদিন অবস্থান করার পর সেখানেও সে নিজেকে নিরাপদ মনে না করে পুনরায় ঢাকা হয়ে বরিশাল যাওয়ার সময় -র‍্যাবের নিকট গ্রেফতার হয়।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.