Home চট্টগ্রাম একজন নিরলস সাদা মনের মানুষ কলম যোদ্বা লেখক মুক্তিযোদ্বা শামসুল হক হায়দরি

একজন নিরলস সাদা মনের মানুষ কলম যোদ্বা লেখক মুক্তিযোদ্বা শামসুল হক হায়দরি

0 0

একজন নিরলস সাদা মনের মানুষ কলম যোদ্বা লেখক মুক্তিযোদ্বা শামসুল হক হায়দরি

চট্টগ্রামের প্রথিতযশা সাংবাদিক লেখক ও বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্বা শামসুল হক হায়দরী পেশাগত জীবনে অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে দীর্ঘ চারদশক কাটিয়ে দিয়েছেন এই পেশায়। তার কোন চাওয়া পাওয়ার কিছুই ছিলোনা। একজন সহজ সরল সাদা মনের এই মানুষটির সাথে দুপুরে একান্ত কথা হচ্ছিলো তার এনটিভির অফিস কার্যালয়ে বসে তিনি জানালেন সিটিজি ট্রিবিউনকে তারা দীর্ঘ পথচলার কথা ।নিন্মে তা তুলে ধরা হলো। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন সিটিজি ট্রিব্রিউনের বার্তা সম্পাদক ও পরিচালক কামাল উদ্দিন খোকন ও নির্বাহী সম্পাদক আয়াজ আহম্মেদ সানি ।

নিম্নে তা তুলে ধরা হলো:

সিটিজি ট্রিবিউন : অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে দীর্ঘ চারদশক কাটিয়ে দিয়েছেন আপনার কিছু স্মৃতি আমাদের কাছে তুলে ধরেন।

হায়দারি: আসলে এই পেশা অনেক ঝুকির পেশা আনন্দের পেশা চার দশক এই পেশায় কাটিয়ে দিয়েছি বন্ধুদের সাথে আড্ডা করা গল্প করা তাদের সাথে চলাটাই আমার কাছে অনেক আনন্দ দায়ক । কারন এই পেশায় আপনার যতো বন্ধু বাড়বে ততো আপন নিউজের সোর্স বাড়বে এলাকায় ঘটনা হলে সে টেলিফোনে এটা আপনাকে আগে জানাবে এটাই আমার কাছে আনন্দদায়ক ।

সিটিজি ট্রিবিউন : লেখক হিসাবে আপনার লেখালেখির বিষয়ে অনিুভতির কথা বলেন

হায়দারি:বই লেখাটা আমার নেশা ও পেশা জীবন চলার পথে বাস্তবতাকে সামনে তুলে ধরতে রাত জেগে লিখতাম । ছোট গল্প উপন্যাস নাটক মিলে এই পর্যন্ত আমার আটটি বই বেরিয়েছে। আমার আরেকটি উপন্যাস এখন বের হওয়ার পথে তা হলো : গ্রাফিথী: যা এখন বের হবে করোনা নানান সমস্যার কারনে তা বের করা যায়নি তবে অচিরেই বইটি বাজারে আসবে । তবে আমি নাটকের গল্পকে অনেক বেশী গুরুত্ব দিয়ে থাকি। আমার নাটকের রেখা গল্প গা গেরামের পালা চট্টগ্রাম বিশ্বের অন্যান্য জায়গায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছিলো । তাছাড়া পার্বত্য চট্টগ্রামের উপর বই লিখেছি যার নাম অরন্যের দিনরাত্রি ।

সিটিজি ট্রিবিউন :আপনি একজন সফল মুক্তিযোদ্বা সে সময়কার কিছু স্মৃতির কথা যদি আমাদের বলতেন।

হায়দারি:এটা একটা ভযানক ব্যাপার ২৫ মার্চ রাত্রিতে যখন পাকহানাদার বাহিনী আমাদের উপর হামলা করেছিলো আমরা তাদের প্রতিরোধ করতে নানান ধরনের কৌশল গ্রহন করি । সব চেয়ে মজার বিষয় হলো আমরা একই গ্রুপে ৯জন ছিলাম আমাদের দায়িত্ব ছিলো লিফলেট ছাপিয়ে তা সবার মাঝে বিলি করা আর পাকহানাদার বাহিনীর অস্ত্র ভান্ডার লুট করে মুক্তিযোদ্বাদের কাছে দিয়ে আসা।তবে সবচেয়ে মজার বিষয় হলো আমরা ৬জন এই থরনের একটি অপারেশন সেরে যখন গাড়ী নিয়ে চেরাগী পাহাড় মোড়ের দিকে যাচ্ছিলাম তখন পাকহানাদার বাহিনীর গাড়ী আমাদের সামনে তাদেরকে ফাকি দিয়ে জামালখান দিয়ে কে খোথায় পালালাম তার আর মনে নেই ।

সিটিজি ট্রিবিউন :সাংবাদিকতা একটি কঠিন পেশা এখানে সাংবাদিকরা কাজ করতে গিয়ে অনেক ঝুকির মধ্যে পড়ে এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি ?

হায়দারি:আমি আগেই বলেছি এটা ঝুকির পেশা আনন্দের পেশা আসলে সাংবাদিকদের সব দিক বিবেচনা করে চলতে হয় আর কেউ যদি বিপদে পড়ে বা আহত হয় আমরা তাদের হাসপাতালে পাঠাই ।পরবর্তিতে কারা এর সাথে জড়িত তাদের ‍বিষয়ে আমাদের সংগঠন ইউনিয়ন প্রেসক্লাব ব্যাবস্তা নেয় । তবে সব চেয়ে আনন্দের বিষয় হচ্চে আমি স্বাধীনতার পরেই এই পেশায় যোগদান করেছি এখনো আছি । এছাড়া দেশে যখন ইলেকট্রনিক মিডিয়া আসে আমি তার সাথে যুক্ত হই। আমাদের একটি সংগঠন টিভি জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন প্রতিষ্টাতা সভাপতি টানা পাচ বছর আমি সভাপতি ‍ছিলাম ।

সিটিজি ট্রিবিউন:এবার আপনার পারিবারিক জীবন সম্পর্কে বলুন

হায়দারি:আসলে আমি খুব সুখি পরিবার। আমার দুই মেয়ে এক ছেলে। দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি বড় মেয়ের জামাই সাংবাদিক আর ছোট মেয়ের জামাই স্বামী নিয়ে জার্মানীর বার্লিনে থাকে । এতো ব্যস্ততার মাঝে আমাদেরকে সময় দেয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আপনাদের ধন্যবাদ।#

SIMILAR ARTICLES

0 0

NO COMMENTS

Leave a Reply