Home আইন ও আদালত চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের দুর্নীতি তদন্তে গণপূর্ত ও সিডিএ। শীঘ্রই আসছে তদন্ত প্রতিবেদন

চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের দুর্নীতি তদন্তে গণপূর্ত ও সিডিএ। শীঘ্রই আসছে তদন্ত প্রতিবেদন

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের একটি গুরুত্বপূর্ণ শপিং সেন্টার চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্স। বন্দরনগরী চট্টগ্রামের আপামর জনতার প্রাণপুরুষ প্রয়াত মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর হাত ধরে তৈরি হয়েছিল এই দ্বিতল চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্স।

ঐতিহ্য এবং সুনামের সাথে সিটি কর্পোরেশনের একটি সহায়ক শক্তি হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে এই শপিং কমপ্লেক্সটি,কিন্তু সম্প্রতি চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্স এর উপর কিছু দুর্নীতিবাজ অর্থলোভী এবং লুটেরাদের নজরে পড়ে প্রায় ধ্বংস হতে বসেছে এই দীর্ঘ বছরের পুরনো ও জনপ্রিয় চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সটি।

সৌন্দর্যবর্ধন ও আধুনিকায়নের নামে হরিলুট এবং অবৈধ দখলদারিত্ব কে প্রাধান্য দিয়ে কোনরূপ অনুমতির তোয়াক্কা না করে এবং সিডিএ ও সিটি কর্পোরেশনের কারো কোন অনুমতি বা অনুমোদন ছাড়া মার্কেট কর্তৃপক্ষ আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সৌন্দর্যবর্ধনের কথা বলে মার্কেটের ব্যবসায়ী এবং কর্মচারীদের জীবনের ঝুঁকি সৃষ্টি করে সৌন্দর্যবর্ধনের নামে অবৈধভাবে দোকান নির্মাণ এবং মার্কেটের আলো-বাতাস বন্ধ করে দিয়ে মার্কেটের পার্কিং জায়গা সহ অবৈধভাবে দখল করে দোকান নির্মাণের কাজ চলছিল। যার কারণে মার্কেটে প্রায় বিভিন্ন পয়েন্টে ফাটল সৃষ্টি হয়। যে কোন মুহূর্তে ঘটতে পারে ভয়ানক দুর্ঘটনা, কেড়ে নিতে পারে মার্কেটে বসবাসরত ব্যবসায়ী এবং কর্মচারীদের জীবন। যার কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে ব্যবসায়ী ও সাধারণ কর্মচারীরা,এক পর্যায়ে তাদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ এবং প্রতিবাদের মুখে মার্কেট কর্তৃপক্ষ তাদের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়।

অভিযোগ আছে মার্কেটের দুর্নীতি ও অনিয়মের প্রতিবাদ করায় চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের ৩৭০জন ব্যবসায়ীর সমন্বয়ক মোস্তফা কামাল নিজেই জানিয়েছেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় তাকে প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টাও করা হয়েছে, ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান তিনি, এ ব্যাপারে তিনি আরো জানান অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গিয়ে যদি তার মৃত্যু হয় এতে তার কোনো দুঃখ নেই।

উক্ত মার্কেটের দুর্নীতি এবং অনিয়মের ব্যাপারে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর টনক নড়ে সিডিএ কতৃপক্ষ,সিটি কর্পোরেশন এবং গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। শুরু হয় তোড়জোড় গঠন করা হয় তদন্ত কমিটি। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের তদন্তে উঠে আসে অনেকে কাহিনী, তদন্তে উঠে আসে দুর্নীতি ও অনিয়মের চিত্র। তদন্ত কমিটির তদন্তে প্রমাণ পায় কিভাবে একটি মার্কেট কে ধ্বংস করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র চলছিল।

সম্প্রতি চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের অনিয়ম ও দুর্নীতির ব্যাপারে একটি প্রতিবেদন গত ২০শে জানুয়ারি গণকন্ঠ পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর তদন্তে আসে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের অনিয়ম ও দুর্নীতির তদন্তে সরোজমিনে দেখার জন্য আসেন চট্টগ্রাম গণপূর্ত বিভাগ ১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী রাহুল গুহ। তিনি নিজেই উক্ত দুর্নীতির চিত্র নিজ মোবাইলে ধারন করে নেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গণকণ্ঠ কে তিনি বলেন সিটি কর্পোরেশন এবং সিডিএ রিপোর্ট জমা দিয়েছেন এবং তিনি নিজেও উক্ত ব্যাপারটি সরেজমিনে তদন্ত করে এসেছেন তদন্ত প্রায় শেষ পর্যায়ে খুব শীঘ্রই দু সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

রিপোর্ট হুমায়ুন কবীর হীরু
স্টাফ রিপোর্টার চট্টগ্রাম।

NO COMMENTS

Leave a Reply