Home চট্টগ্রাম নোয়াখালীতে পরিবহনে চাদাঁবাজি প্রতিবাদে যমুনা ট্রান্সপোর্টের গাড়ী চলাচল বন্ধ

নোয়াখালীতে পরিবহনে চাদাঁবাজি প্রতিবাদে যমুনা ট্রান্সপোর্টের গাড়ী চলাচল বন্ধ

0 0

নোয়াখালী প্রতিনিধি-
ফেনী-লক্ষীপুর সড়কের নোয়াখালী চৌমুহনীতে যাত্রীবাহী হাই-ডিলাক্স টান্সপোর্টের গাড়ীতে প্রকাশ্যে চাদাঁবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে মালিক সমিতি পরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে।
এতে ফেনী-লক্ষীপুরের পথে যাতায়াতকারী যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ চরমে পৌচছে।

এ ব্যাপারে যমুনা হাই-ডিলাক্স ট্রান্সপোর্ট লি: স্হানীয় পুলিশ প্রশাসন কে লিখিত ভাবে অভিযোগ করেন।
অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, গত১৬ ফ্রেব্রয়ারী থেকে একটি চাদাঁ চক্র মারদর করে, জোর পুর্বক প্রতি গাড়ী থেকে ৫০০-৬০০টাকা করে চাদাঁ আদায় করে।চাদাঁ না দেওয়ায় ১০-১২টি গাড়ীর চাবী নিয়ে যায়।

মালিক সমিতি ৯৯৯ নাম্বারে জানালে বেগমগন্জ থানার অফিসার ইনচার্জের নির্দেশে থানা পুলিশ ও টি আই কামরুল ইসলামের সহযোগিতা গাড়ী গুলোর চাবি উদ্ধার করে। কিন্তু এর পরও প্রতি গাড়ীতে জোর পুর্বক চাদাঁবাজি অব্যাহত থাকায় গাড়ীর মালিক গন গত২৪ ফেব্রুয়ারি বেগমগন্জ মড়েল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে দেখা করে এবং তার পর বিকালে পুলিশ সুপারের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের সাথে সাক্ষাৎ করে চাদাঁবাজির বিষয়ে জানায়।

এর পরও চাদাঁবাজি অব্যাহত থাকায় ২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০ঘটিকা হতে ফেনী-লক্ষীপুর সড়কের চলাচল কারী যমুনা হাই-ডিলাক্স ট্রন্সাপোর্ট লি: মালিকানাধীন ৪০টি গাড়ী বন্ধ রয়েছে। এতে হাজার -হাজার যাত্রী সংকটে পড়েছে।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দাপক ষোতি খিসার নিকট জানতে চাইলে, তিনি বলেন যমুনা হাই-ডিলাক্স কোম্পানির কয়েকজন মালিক আমাকে জানালে, আমি বেগমগন্জ থানা কে বলেছি এটা বন্ধ করতে, চাদাঁবাজি বন্ধ হয়নি সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আমি ওসির সাথে কথা বলে জানতে হবে।

যমুনা হাই -ডিলাক্স ট্রান্সপোর্ট লি: এর ব্যবস্হাপনা পরিচালক আজিজুর রহমান মানিক বলেন -বেলাল হোসেন ও আমির হোসেন দয়াল নামে সন্ত্রাসী গন মারদর করে, জোর পুর্বক চাদাঁবাজি করে। প্রশাসন কে জানালে হত্যা করবে বলে হুমকি দুমকা দেয়।

প্রশাসন কে জানানোর পর ও কোন ব্যাবস্হা না নেওয়ায় আমরা ব্যাধ্য হয়ে গাড়ী চলাচল বন্ধ করেছি, প্রশাসন চাদাঁবাজি বন্ধ করলে আমরা পুনরায় গাড়ী চালাবো। ব্যাংক লোনের ম্যাধ্যমে হাই ডিলাক্সের গাড়ী গুলো কিনে রোড়ে নামানো হয়েছে।

চাদাঁবাজির কারনে গাড়ীগুলো বন্ধ থাকায় লক্ষ-লক্ষ টাকা ক্ষতির মুখে পড়েছে।

NO COMMENTS

Leave a Reply