Home চট্টগ্রাম বাংলাদেশের প্রাচীনতম সংগঠন “বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা”

বাংলাদেশের প্রাচীনতম সংগঠন “বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভা”

0 0

৬১ জনের বিশাল বহর নিয়ে সংঘের নেতৃত্ব দানকারী পরিচালনা পর্ষদকে ৫ বছরের জন্য পরিপূর্ণভাবে পদ বিন্যাস করা হয়েছে l সকল সংঘকে আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে বন্দনা এবং অভিনন্দন জানাচ্ছি l ইতিপূর্বে এইরকম করে অনেকবার পরিচালনা পর্ষদ গঠন করা হয়েছিল কিন্তু দুঃখের বিষয় এটি প্রাচীনতম সংগঠন হলেও এখনও পর্যন্ত এই সংগঠন বাংলাদেশ সরকারের নথিভুক্ত তথা রেজিস্ট্রেশন করা হয় নি l

তাই আমি এই পর্ষদ এর কাছে আবেদন করছি, আপনারা এই বিষয়ের উপর গুরুত্ব সহকারে নজর দেওয়ার জন্য l একটি কথা বলা বাহুল্য যে, এইখানে প্রতিটা ভিক্ষু স্ব স্ব অবস্থান থেকে সমৃদ্ধ এবং তারা ব্যক্তিগত বিভিন্নভাবে সমাজের কাজ করে যাচ্ছেন l আর একটা বিষয়, আমাদের প্রতিটা মানুষের একটা ঠিকানা থাকে কিন্তু এই সংগঠনের আজ অবধি স্থায়ী কোনো ঠিকানা খুঁজে পাওয়া যায় না l তাই আমাদের সকলকে স্থায়ী ঠিকানার জন্য নিরলস কাজ করে যেতে হবে l

কিভাবে আমরা সংগঠনের স্থায়ী ঠিকানা করতে পারি ? আমার অভিমত- কার্যকরী পরিষদ এর ৬১ জন সদস্য প্রতিজনে কমপক্ষে ১ লক্ষ টাকা করে দান দেওয়া কোনো ব্যাপারই নয় এবং যেইসব সংঘ সদস্য ভালো অবস্থা সম্পন্ন তারা সংঘের স্বার্থে নিজ নিজ অবস্থান থেকে আরো বেশি দান দিতে পারে l

মহাসভার আওতাধীন যেইসব আঞ্চলিক সংগঠন আছে প্রতিটা আঞ্চলিক সংগঠন থেকে ১০ লক্ষ টাকা করে সংগ্রহ করা যেতে পারে l যেহেতু কয়েকটা বৌদ্ধ গ্রাম মিলে একটি আঞ্চলিক সংগঠন গঠিত l ৬১ জন সদস্য ১ লক্ষ টাকা করে এবং কিছু কিছু ভিক্ষু (অবস্থাসম্পন্ন) একটু বাড়িয়ে দিলে ১ কোটি টাকা সংগ্রহ হবে l

মহাসভার আওতাধীন যথাসম্ভব ১৯টি আঞ্চলিক সংগঠন রয়েছে সুতরাং প্রতিটা সংগঠন ১০ লক্ষ টাকা করে সংগ্রহ করে দেবার দায়িত্ব নেয় তাহলে ১ কোটি নব্বই লক্ষ টাকা সংগ্রহ হবে l সর্বমোট ২ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা সংগ্রহ হবে l প্রথমে ভিক্ষুদের থেকে দান দেয়া শুরু করতে হবে l ভান্তেরা দান দেয়া শুরু করলে পরবর্তীতে দায়কগণও দান দিতে ইচ্ছুক হবে এবং আমরা দান চাইতেও পারবো l আমি মহান সংঘকে এই বিষয় গুলো ভাবার জন্য সুদৃষ্টি কামনা করছি l

বি: দ্র:- লেখাটা সম্পূর্ণ আমার ব্যক্তিগত, লেখায় যদি কারো মনো কষ্ট হয় সেজন্য ক্ষমা প্রার্থী l

NO COMMENTS

Leave a Reply