Home আইন ও আদালত কোতোয়ালি থানার অভিযানে স্কুলের সিকিউরিটি গার্ড কর্তৃক কম্পিউটার চুরি ও চোরাইমাল উদ্ধার

কোতোয়ালি থানার অভিযানে স্কুলের সিকিউরিটি গার্ড কর্তৃক কম্পিউটার চুরি ও চোরাইমাল উদ্ধার

জনাব মোশারফ হোসেন সুমন (৪৮) চিটাগাং গ্রামার স্কুলের আপার সেকশনের সিকিউরিটি অফিসার হিসেবে নিয়োজিত আছেন। তিনি প্রতিদিনের ন্যায় ইং ০৯/০২/২০২১ তারিখ সকাল অনুমান ১০.০০ ঘটিকার সময় রুটিন মাফিক চেক অনুযায়ী কোতোয়ালী থানাধীন সার্সন রোডস্থ চিটাগাং গ্রামার স্কুলের ৩য় তলায় অধ্যক্ষ জনাব মাহিন খান মহোদয়ের রুমের ভিতর চেক করিলে দেখতে পান যে, অধ্যক্ষ মহোদয়ের রুমের ভিতর থাকা ০১টি সিপিইউ ০১টি মনিটর নাই।
পরবর্তীতে অন্যান্য রুমে সকল মালামাল ঠিক ঠাক আছে কিনা চেক করতে গিয়ে দেখেন যে, কোতোয়ালী থানাধীন সার্সন রোডস্থ চিটাগাং গ্রামার স্কুলের ৪র্থ তলায় কাউন্সিলর জনাব ফাতেমা মহোদয়ের রুমের ভিতর ০১টি সিপিইউ, ০১টি মনিটর, কাউন্সিলর জনাব আরফানা মহোদয়ের রুমের ভিতর ০১টি সিপিইউ, ০১টি মনিটর, কাউন্সিলর জনাব রুবাইনা মহোদয়ের রুমের ভিতর ০১টি সিপিইউ নাই। পরবর্তীতে তিনি বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানালে চারিদিকে খোঁজাখুঁজি করে জানানোর জন্য বলেন।
তিনি স্কুলে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ চেক করে দেখেন যে, অত্র স্কুলের সিকিউরিটি গার্ড মোঃ নাহিদ আরমান জিসান (৩১) ইং ০৭/০২/২০২১ তারিখ বিকাল অনুমান ০৪.৩০ ঘটিকা হতে ০৫.৩০ ঘটিকার সময় কোতোয়ালী থানাধীন সার্সন রোডস্থ চিটাগাং গ্রামার স্কুলের ৩য় তলায় অধ্যক্ষ এবং ৪র্থ তলায় কাউন্সিলর রুমের ভিতর হতে ০৪টি সিপিইউ, ০৩টি মনিটর চুরি করে নিয়ে গিয়েছে।
তিনি ও স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি বুঝতে পেরে ইং ১০/০২/২০২১ তারিখ সকাল অনুমান ১০.৩০ ঘটিকার সময় মোঃ নাহিদ আরমান জিসান কে স্কুলে ডিউটিরত অবস্থায় পেয়ে আটক করে এবং উপরে বর্ণিত মালামাল চুরির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলে। এ সংক্রান্তে জনাব মোশারফ হোসেন সুমন (৪৮) বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় এজাহার দায়ের করলে মোঃ নাহিদ আরমান জিসান এর বিরুদ্ধে দঃ বিঃ আইনের ৩৮১ ধারায় ০১টি মামলা রুজু হয়।
উক্ত মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই/মোঃ মোমিনুল হাসান মামলার তদন্তকালে ধৃত মোঃ নাহিদ আরমান জিসানকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে সে চুরির কথা স্বীকার করে।
সে চোরাই সিপিইউ এবং মনিটর কমদামে বাকলিয়া থানাধীন কালামিয়া বাজার এলাকায় যুব উন্নয়ন কারিগরি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে মোঃ সেলিম উল্লাহ (৩৫) এর কাছে বিক্রয় করেছে বলে জানালে তার দেওয়া তথ্য ও দেখানো মতে এসআই/মোঃ মোমিনুল হাসান সঙ্গীয় অফিসার সহ বাকলিয়া থানাধীন কালামিয়া বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে যুব উন্নয়ন কারিগরি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে মোঃ সেলিম উল্লাহ (৩৫) কে গ্রেফতার করে ও তার উপস্থাপন মতে উপরে বর্ণিত ০৩টি মনিটর, ০৪টি সিপিইউ উদ্ধারপূর্বক জব্দ করে।
উদ্ধারকৃত আলামত- ০৩টি সিপিইউ, ০৩টি মনিটর।
অভিযান পরিচালনাকারী টিমের নাম ঃ এসআই/মোঃ মোমিনুল হাসান, এএসআই/অনুপ কুমার বিশ্বাস উভয়েই কোতোয়ালী থানা, সিএমপি, চট্টগ্রাম।
গ্রেফতারকৃত :
১। মোঃ নাহিদ আরমান জিসান (৩১), পিতা-জাহাঙ্গীর আলম, মাতা-হাসিনা বেগম, সাং-ইলিয়াছ ব্রাদার্সের বাড়ী, ৬নং ওয়ার্ড, ডাকঘর-চকবাজার, থানা-চাঁন্দগাও, জেলা-চট্টগ্রাম কর্মক্ষেত্রের ঠিকানা-সিকিউরিটি গার্ড, চিটাগাং গ্রামার স্কুল আপার সেকশন, সার্সন রোড, জামালখান, থানা-কোতোয়ালী, জেলা-চট্টগ্রাম
২। মোঃ সেলিম উল্লাহ (৩৫), পিতা-মৃত কবির আহম্মদ, মাতা-শারমিন সুলতানা, সাং-পশ্চিম পুইদন্ডী, থানা-বাঁশখালী, জেলা-চট্টগ্রাম বর্তমানে-কালামিয়া বাজার, রহমান ম্যানশন, থানা-বাকলিয়া, জেলা-চট্টগ্রাম।

NO COMMENTS

Leave a Reply