Home ঢাকা জনগণের উৎসাহে করোনা টিকার বিরুদ্ধে বিএনপি’র অপপ্রচারে ভাটা -তথ্যমন্ত্রী

জনগণের উৎসাহে করোনা টিকার বিরুদ্ধে বিএনপি’র অপপ্রচারে ভাটা -তথ্যমন্ত্রী

0 0

ঢাকা, রবিবার ৩১ জানুয়ারি, ২০২১: জনগণের উৎসাহে করোনা টিকার বিরুদ্ধে বিএনপি’র অপপ্রচারে ভাটা পড়েছে’ বলেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

রবিবার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আমাদের অর্জন ও বর্তমান প্রজন্মের ভবিষ্যৎ করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা ও কেন্দ্রীয় বিশেষ প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

প্রজন্ম লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এড. মো: আসাদুজ্জামান মোল্লা দূর্জয়ের সভাপতিত্বে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান প্রধান আলোচক হিসেবে এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এডভোকেট বলরাম পোদ্দার বিশেষ অতিথি হিসেবে সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা মহামারির শুরুতে অনেকে আতঙ্কে ছিল এমনকি কেউ কেউ প্রার্থনাও করেছিল যে, বাংলাদেশে হাজার হাজার মানুষ না খেয়ে মৃত্যুবরণ করবে এবং রাস্তায় লাশ পড়ে থাকবে। সৃষ্টিকর্তার কৃপায়, জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে দেশে একজন মানুষও অনাহারে থাকেনি,

রাস্তায় লাশ পড়ে থাকেনি। এরপর তারা আশা করেছিল করোনার ভ্যাকসিন সঠিক সময়ে আনতে বা সংগ্রহ করতে পারবে না। সরকার তার ঘোষণা অনুসারে জানুয়ারি মাসের মধ্যেই ৭০ লাখ ডোজ করোনা ভ্যাকসিন দেশে এনেছে। এতে তাদের সেই আশার গুড়েবালি।’

ড. হাছান বলেন, ‘অপপ্রচারকারীরা এরপর বললো যে, এই ভ্যাকসিন কাজ করবে না আর এই ভ্যাকসিন আগে সরকারের মন্ত্রী-আমলাদের নিতে হবে। এখন সরকারের মন্ত্রী-আমলারা আগে করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছে ফলে তাদের মুখটা চুপসে গেছে। যদিও বা এমপি,

মন্ত্রী ও সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা আগে নিতে চায়নি, কিন্তু মানুষকে পথ দেখানোর জন্যই অনেকে নিয়েছেন, তাদেরকে আমি ধন্যবাদ জানাই।’

‘সবাই বিপুল উৎসাহে ভ্যাকসিন নেয়া শুরু করেছে এখন বিএনপি কি বলবে, শেষ পর্যন্ত তারা এই ভ্যাকসিন নেবেন নাকি নেবেন না, নাকি পাকিস্তান কখন ভ্যাকসিন আবিস্কার করবে সেটার জন্য বসে আছেন -এটিই হচ্ছে বড় প্রশ্ন’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন,

আমি বিএনপি নেতাদের অনুরোধ জানাবো, এই ধরনের সমালোচনা বাদ দিয়ে আপনারা সরকার যে ভ্যাকসিনের বিষয়ে সাফল্য দেখিয়েছে দয়া করে তার প্রশংসা করুন।

সরকার যে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করেছে, সেটি অক্সফোর্ড-এস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন, যা ভারতে উৎপাদন করা হচ্ছে এবং এটি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ সংগ্রহ করে তাদের জনগণকে দিচ্ছে, জানান ড. হাছান। তিনি বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ সমগ্র পৃথিবী এটার ওপর আস্থা স্থাপন করেছে, শুধু বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল সাহেব,

রিজভী আহমেদ সাহেব আর গয়েশ্বর বাবু আস্থা স্থাপন করতে পারেনি। তাদের নিজেদের ওপর আস্থা নেই এজন্য সমালোচনা করে। তাই আমি অনুরোধ জানাবো এ ধরণের অহেতুক সমালোচনা না করে আপনারা যদি আগে ভ্যাকসিন চান তাহলে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন এই ভ্যাকসিন নিতে লজ্জা পাবেন না । আপনারা আগে চাইলে, সরকার আগে দেবার ব্যবস্থা করবে।’

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে বিএনপি’র নানা অভিযোগের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রামে ৫২ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ১টি কাউন্সিলরও তারা পায়নি। এটি তাদের সাংগঠনিক দুর্বলতা এবং একইসাথে তারা যে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে সেটির বাস্তবতা। এই বাস্তবতা যখন না তারা মানবে না, তখন তাদের পক্ষে ভোটে দাঁড়ানো বা জেতা সম্ভবপর হবে না।

আমি বিএনপি নেতাদের অনুরোধ জানাবো সরকারের সমালোচনা না করে আপনারা এই করোনাকালে জনগণের পাশে দাঁড়ান। আসুন সবাই মিলে একযোগে মানুষের পাশে দাঁড়াই। রাজনীতি মানুষের জন্য, রাজনীতি দেশের জন্য, রাজনীতি দলের জন্য নয়।’

অনলাইন একুশে বইমেলা উদ্বোধন

অনলাইন একুশে বইমেলা উদ্বোধন করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

রোববার দুপুরে সচিবালয় তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষ থেকে অনলাইনে বইঅনলাইনবিডিডটকম (boionlinebd.com) আয়োজিত ১ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি মাসব্যাপী এ মেলা উদ্বোধন করেন তিনি। আয়োজক সংস্থার কর্ণধার রবীন আহসান এসময় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন।

বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির প্রেক্ষাপটে অনলাইন বই মেলা আয়োজনে উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বাস্তবায়িত হওয়ার ফলেই আজ ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে এই বই মেলা আয়োজন সম্ভব হয়েছে।

সমগ্র বিশ্ব মহামারিতে থমকে গেলেও প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ থেমে থাকেনি, বিশ্বের মাত্র ২২টি দেশ যারা ধ্বনাত্মক জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে, তাদের মধ্যে আমরা ৩য় স্থান অধিকার করেছি।

বই পড়াকে উৎসাহিত করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দু:খজনক হলেও সত্য, আজকের শিশু-কিশোর-তরুণদের মধ্যে বই পড়ার অভ্যাস আগের মতো নেই। এই বই মেলা সেই অভ্যাস গড়ে তুলতে সহায়ক হবে এবং মানুষের মাঝে দেশাত্মবোধ- মমত্ববোধ জাগ্রত করতে এবং নিজেদের বীরত্বগাঁথাকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানশেষে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে বিএনপি’র নেতিবাচক মন্তব্য নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি’র অভিযোগ গতানুগতিক। স্থানীয় নির্বাচনে এদেশে এবং প্রতিবেশি ভারতে অতীতেও সবসময় ছোটখাটো নানা ঘটনা ঘটেছে,

যা কখনই কাম্য নয়। তবে সে তুলনায় এবারের নির্বাচন অনেক ভালো হয়েছে। আর বিএনপি’র কাছে প্রশ্ন, তারা তাদের সাংগঠনিক দুর্বলতার দায় সরকারের ওপরে চাপাবেন না কি নিজেদের ব্যর্থতা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করবেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply