Home চট্টগ্রাম জনতার সেবক কাউন্সিলর প্রার্থী জাবেদ,বিদ্রোহী বিহীন এবং উন্নয়নে সফল ওয়ার্ড ২৩নং উত্তর...

জনতার সেবক কাউন্সিলর প্রার্থী জাবেদ,বিদ্রোহী বিহীন এবং উন্নয়নে সফল ওয়ার্ড ২৩নং উত্তর পাঠানটুলী।

0 0

স্থগিত হওয়া চসিক নির্বাচনের সম্ভাব্য নতুন তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে আগামী ২৭ শে জানুয়ারি ২০২১। আর এই নির্বাচনে ২৩নং ওয়ার্ড উত্তর পাঠানটুলি থেকে টানা তিনবার দলীয় নমিনেশন নিয়ে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হয়েছেন এই ওয়ার্ডের সফল সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাবেদ।

আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী মোহাম্মদ জাবেদ সহ এই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে মোট প্রার্থী রয়েছেন দুজন । এদের মধ্যে একজন বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মহসিন।বিশেষ করে চট্টগ্রামে অন্যান্য ওয়ার্ডের চেয়ে এই ওয়ার্ডের রয়েছে বিশেষ খ্যাতি।সমীকরণে দেখা যায় তুলনামূলকভাবে প্রত্যেকটা ওয়ার্ডে কমবেশি রয়েছে স্বতন্ত্র কিনবা বিদ্রোহী প্রার্থী।কিন্তু এটি একমাত্র ওয়ার্ড যেখানে রয়েছে শান্তি-শৃঙ্খলা মায়া মমতা ভালোবাসা এবং একে অপরের প্রতি সহনশীল রয়েছে শ্রদ্ধাবোধ।

পাঠানটুলি ২৩ নং ওয়ার্ডটিতে নেই কোনো দলীয় কোন্দল।কারণ হিসেবে দেখা গেছে সাবেক কাউন্সিলর প্রার্থী মোহাম্মদ জাবেদ একজন সফল কাউন্সিলর। প্রত্যেকটা মুহূর্তে তিনি তার এলাকার মানুষকে প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে এমনকি করোনা কালীন সময়ে একে অপরের কাছ থেকে দূরে চলে গেছে সেই সময়েও নিজেকে উজাড় করে তার এলাকাবাসীর মধ্যে বিলিয়ে দিয়েছেন তার সহযোগিতার হাত।

কখনো পিছ পা হননি নিজ দায়িত্ব থেকে।যার কারণে দল-মত নির্বিশেষে ২৩ নং পাঠানটুলি ওয়ার্ডবাসীর মুখে মুখে সর্বাগ্রে উচ্চ কণ্ঠে উচ্চারিত একটি নাম মোঃ জাবেদ।

সেই ছাত্রজীবন থেকে তৃণমূলের রাজনীতির মাধ্যমে রাজনীতির হাতে খড়ি জাবেদের। রাজনীতির অনেক কণ্ঠকাকীর্ণ পথ পাড়ি দিয়ে স্বীয় মেধা, দক্ষতা,যোগ্যতা এবং যোগ্য নেতৃত্তের গুনে দল-মতের ঊর্ধ্বে উঠে নিজের অবস্থানকে সুসংহত করেছেন রাজনীতির মাঠে এবং সাধারন জনগনের মনে।

পাঠানটুলি ২৩ নং ওয়ার্ডের জন সাধারণের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সাবেক এই কাউন্সিলর জাবেদ নিজেকে সর্বদা সঁপে দিয়েছেন এলাকার সামাজিক কর্মকান্ডে,তার এলাকার জনসাধারণ যখন যেভাবে তাকে ছেয়েছে সে ভাবে তার কাছে তিনি উপস্থাপিত হয়েছেন কখনো ভাবেননি উঁচু নিচু জাত ভেদাভেদ,সব সময় সাধারণ মানুষের কাতারে থেকে নিজেকে সাধারণ মানুষের মাঝে বিলিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছেন প্রতিনিয়ত।

জাবেদের ভদ্রতা সুলভ আচরণ জনগণের প্রতি ভালোবাসা তার সুনিপুণ চিন্তাভাবনায় এবং ন্যায় পরায়ণতার কারনে তিনি স্থান করে নিয়েছেন সাধারণ জনগণের মনের মনিকোঠায়, তারই ফলশ্রুতিতে
গতবারের নির্বাচনে তৎকালীন হেভিওয়েট বিএনপির প্রার্থীকে পরাজিত করে তিনি জয় লাভ করেন

কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে ওয়ার্ডের জনসাধারণ কে সাথে নিয়ে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেন সাফল্যের সাথে । অত্র ওয়ার্ডে তার জনপ্রিয়তার নেপথ্যে রয়েছে জনসম্পৃক্ততা ও ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড। কাউন্সিলর থাকাকালীন সময়ে ওয়ার্ডের পূর্বের চেহারার আমূল পরিবর্তন করেন তিনি । ওয়ার্ডের সরু গলি গুলো কে প্রসারিত করা,

ডোর টু ডোর পদ্ধতিতে ময়লা সংগ্রহ করে ডাস্টবিন প্রথার বিলুপ্তি ঘটানো,রাস্তাঘাটের ব্যাপক সংস্কার ও কার্পেটিং, বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থাকরন, মাতৃমঙ্গল ও শিশু মঙ্গলের জন্য পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যব্যবস্থা সুনিশ্চিতকরণ, এবং কিশোর গ্যাং কে শক্ত হাতে দমন করে কিশোর-তরুণদের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড এবং খেলাধুলায় উৎসাহ ও সহায়তা প্রদান, দল-মত- ধর্ম নির্বিশেষে সকলের বিপদে- আপদে পাশে দাঁড়ানো, সর্বোপরি যেকোনো জনকল্যাণমূলক কাজে ওয়ার্ডের মুরুব্বিদের সম্পৃক্ততা করে কর্ম সম্পাদনকরন ।

এ ব্যাপারে সাবেক কাউন্সিলর ও আওয়ামীলীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী মোহাম্মদ জাবেদ গনকণ্ঠকে বলেন আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর আমার সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করেছি যেন আমার এলাকার প্রত্যেকটা নাগরিক ভালো থাকে।

করোনাকালীন সময়ে সকলে দূরে সরে গেলেও আমি নিজেকে আল্লাহর উপর ভরসা রেখে নিজেকে সঁপে দিয়ে,চেষ্টা করেছি আমার এলাকাবাসীর পাশে থাকতে, ইনশাল্লাহ এখন আমার দীর্ঘ বিশ্বাস আমার এলাকার মানুষ ২৭ তারিখ আমাকে কুমড়ো মার্কা ভোট দিয়ে আবারও তাদের সেবা করার সুযোগ দেবেন।

রিপোর্ট: হুমায়ুন কবীর হীরো
স্টাফ রিপোর্টার,চট্টগ্রাম মহানগর

NO COMMENTS

Leave a Reply