Home আইন ও আদালত পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে ৪৭৪ বােতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে...

পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে ৪৭৪ বােতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব-৭ চট্টগ্রাম

আয়াজ আহমাদ :চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড মডেল থানা এবং জোরারগঞ্জ থানা এলাকায় পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে ৪৭৪ বােতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব-৭ চট্টগ্রাম ।

র‍্যাব- প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সমাজের বিভিন্ন অপরাধ এর উৎস উঘাটন , অপরাধীদের গ্রেফতারসহ আইন শৃঙ্খলার সামগ্রিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে ।র‍্যাব-৭ , চট্টগ্রাম অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী , ডাকাত , ধর্ষক , চাঁদাবাজ , সন্ত্রাসী , খুনি , বিপুল পরিমাণ অবৈধ অস্ত্র ও গােলাবারুদ উদ্ধার , মাদক উদ্ধার , ছিনতাইকারী , অপহরণকারী ও প্রতারকদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জিরাে টলারেন্স নীতি অবলম্বন করায় সাধারণ জনগনের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে ।

র‍্যাব-৭,চট্টগ্রাম গত ১৪ ও অদ্য ১৫ জানুয়ারি ২০২১ খ্রিঃ তারিখে চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড মডেল থানা এবং জোরারগঞ্জ থানা এলাকায় পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে ৪৭৪ বােতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে । নিমে বিস্তারিত উল্লেখ করা হলােঃ ক ।র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম গােপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে , কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী একটি যাত্রীবাহী বাসযােগে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য নিয়ে কুমিল্লা হতে চট্টগ্রামের দিকে আসছে ।

উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে অদ্য ১৫ জানুয়ারি ২০২১ ইং তারিখ ০৩০৫ ঘটিকায় র্যাব -৭ , চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড মডেল থানাধীন ভাটিয়ারী এলাকায় বানুর বাজারস্থ সােনালী ব্যাংকের সামনে ঢাকা – চট্টগ্রাম মহাসড়কের পূর্ব পার্শে পাকা রাস্তার উপর একটি বিশেষ চেকপােস্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশি শুরু করে । এ সময় র্যাবের চেকপােস্টের দিকে আসা কুমিল্লা হতে চট্টগ্রাম “ কুমিল্লা ট্রান্সপাের্ট ” এর একটি বাসকে তল্লাশীর জন্য থামানাের সংকেত দিলে বাসের ড্রাইভার বাসটিকে র্যাবের চেকপােস্টের সামনে থামায় ।

বাসটি র্যাবের চেকপােস্টের সামনে থামানাের সাথে সাথে র্যাব সদস্যরা গাড়ি তল্লাশীর উদ্দেশ্যে উক্ত যাত্রিবাহী বাসে উঠে সিটে বসে থাকা সকল যাত্রীদের গতিবিধি অবলােকন করে এবং উক্ত বাসের তিন জন যাত্রীর গতিবিধি ও কথাবার্তায় সন্দেহভাব প্রকাশ পাওয়ায় র্যাব সদস্যরা আসামি ১। মীর মােঃ রায়হান উদ্দিন ইমন ( ২১ ) , পিতা- মীর মােঃ আজমল হােসেন , সাং- বালুধুম পূর্ব পাড়া , থানা- কোতােয়ালী , জেলা- কুমিল্লা , ২। রাকিবুল ইসলাম পাপন ( ২১ ) , পিতা- মােঃ সাদেকুল ইসলাম , সাং- ৩৭৫/৩৪১ বালুধুম পূর্ব পাড়া , থানা- কোতােয়ালী , জেলা- কুমিল্লা এবং ৩। মােঃ হান্নান হােসেন ( ৩২ ) , পিতা- মােঃ বাদল মিয়া , সাং- জগন্নাথপুর , থানা- কোতােয়ালী , জেলা- কুমিল্লাদেরকে আটক করে ।

পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামীদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের নিজ নিজ হেফাজতে থাকা ট্রাভেল ব্যাগের ভিতর সু – কৌশলে লুকানাে অবস্থায় ৩৯৯ বােতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ আসামীদের গ্রেফতার করা হয় । গ্রেফতারকৃত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে আরাে জানা যায় , তারা দীর্ঘদিন যাবত কুমিল্লা সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে পরবর্তীতে বিভিন্ন কৌশলে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মাদক ব্যবসায়ী কাছে বিক্রয় করে আসছে ।

র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম গােপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে , চট্রগ্রাম জেলার জোরারগঞ্জ থানাধীন বারইয়ারহাটস্থ এম.এম. এন্টারপ্রাইজ এর সামনে ঢাকা – চট্রগ্রামগামী মহাসড়কের উপর কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী মাদকদ্রব্য ক্রয় – বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে । উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত ১৪ জানুয়ারী ২০২১ তারিখ ২৩৩০ ঘটিকায় র্যাবের একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে র্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে একজন ব্যক্তি দৌড়ে পালানাের চেষ্টাকালে র্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে আসামী দিদার উদ্দিন ( ২১ ) , পিতা- মৃত বদিউল আলম , সাং- নবীনগর , থানা ফটিকছড়ি কে আটক করে ।

পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামিকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তার দেখানাে ও সনাক্ত মতে নিজ হেফাজতে থাকা ০১ টি বস্তার ভিতর সু – কৌশলে লুকানাে অবস্থায় ৭৫ বােতল ফেন্সিডিল ও ১ কেজি ৯০০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধারসহ আসামিকে গ্রেফতার কাৱা হয় । গ্রেফতারকৃত আসামিদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় , তারা দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে পরবর্তীতে উক্ত মাদকদ্রব্য বিভিন্ন অভিনব কৌশলে চট্টগ্রাম জেলাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্রয় করে আসছে ।

উদ্ধারকৃত মাদকের আনুমানিক মূল্য ০৫ লক্ষ ৩৪ হাজার টাকা । 81 গ্রেফতারকৃত আসামি এবং উদ্ধারকৃত মালামাল সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড ও জোরারগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে ।

NO COMMENTS

Leave a Reply