Home আইন ও আদালত মহানগর গোয়েন্দা অভিযানে বিদেশ থেকে আমদানীকৃত কাঁচা মাল হিসেবে ব্যবহৃত স্ক্র্যাপ (লোহা)...

মহানগর গোয়েন্দা অভিযানে বিদেশ থেকে আমদানীকৃত কাঁচা মাল হিসেবে ব্যবহৃত স্ক্র্যাপ (লোহা) চোর চক্রের ০৭ সদস্য গ্রেফতার

আয়াজ আহমাদ :অপরাধের প্রক্রিয়াঃ আবুল খায়ের ষ্টীল মিল কর্তৃক বিদেশ থেকে আমাদানীকৃত কারখানার কাঁচা মাল হিসেবে ব্যবহৃত স্ক্র‍্যাপ (লোহা) বিভিন্ন ট্রাক যোগে মাঝির ঘাট হতে শীতলপুর আবুল খায়ের ষ্টীল মিলে নিয়ে যাওয়ার পথে অভিনব কায়দায় আসামীগণ আরো অজ্ঞাতনামা আসামীদের সহযোগিতায় গাড়ি হতে প্লাস্টিকের বস্তায় করে ০৫(পাঁচ) বস্তা স্ক্র‍্যাপ যার মোট ওজন ১৮০ (একশত আশি) কেজি এবং মূল্য ৬,৩০০/-(ছয়হাজার তিনশত) টাকা যাহা ড্রাইভারের অগোচরে গাড়ী হতে নামিয়ে চুরি করে নিজেদের হেফাজতে নেয়।
ঘটনার বিবরণঃ অত্র মামলার বাদী ১২/০১/২০২১ইং দুপুর ১৩.০০ ঘটিকার সময় সংবাদ পান যে, পাহাড়তলী থানাধীন অলংকার মোড়স্থ আলিফ গলির মুখে রাস্তার উপর তার কোম্পানী আবুল খায়ের ষ্টীল মিল কর্তৃক বিদেশ থেকে আমদানীকৃত কারখানার কাঁচা মাল হিসেবে ব্যবহৃত স্ক্র‍্যাপ (লোহা) বিভিন্ন ট্রাক যোগে মাঝির ঘাট হতে  আবুল খায়ের ষ্টীল মিলে নিয়ে যাওয়ার পথে আসামীগণ আরো অজ্ঞাতনামা আসামীদের ,
সহযোগিতায় গাড়ি হতে প্লাস্টিকের বস্তায় করে ০৫(পাঁচ) বস্তা স্ক্র্যাপ যার মোট ওজন ১৮০ (একশত আশি) কেজি এবং মূল্য ৬,৩০০/-(ছয়হাজার তিনশত) টাকা যা ড্রাইভারের অগোচরে গাড়ী হতে নামিয়ে, আসামীগণ নিজেদের হেফাজতে নেয়। মহানগর গোয়েন্দা বন্দর বিভাগের অফিসার ও ফোর্সদের সহায়তায় উল্লিখিত মালামাল উদ্ধার ও ১) মোঃ মিজান(১৯) ও ২) মোঃ সাগর(২০)দের ঘটনাস্থল হতে গ্রেফতার করেন।
ঘটনায় জড়িত অন্যান্যরা ঘটনাস্থল হইতে কৌশলে পালিয়ে যায়। বাদী সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে জব্দকৃত মালামাল তার কোম্পানী আবুল খায়ের ষ্টীল মিলের মালামাল মর্মে সনাক্ত করে। উক্ত বিষয়ে কোম্পানীর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে। জিজ্ঞাসাবাদে ০১নং ০২নং ব্যাক্তির দেওয়া তথ্যমতে ডিবি-বন্দর বিভাগের সদস্যরা চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে মোঃ রাজন (২০), মোঃ মেহেদী হাসান@হৃদয়, মোঃ দিন ইসলাম@বাট্টু(৩০),
মোঃ জসিম উদ্দিন (১৮), মোঃ মহিউদ্দিন (২৩)দের গ্রেফতার করেন। তারা ইতিপূর্বে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন কলা কৌশল অবলম্বন করে আমদানীকৃত কাঁচামাল স্ক্র‍্যাপ বন্দর হতে আবুল খায়ের ষ্টীল মিল, শীতলপুর, সীতাকুন্ড নেওয়ার পথে চুরি করে কৌশলে চোরাইকৃত মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়।
ডিবি পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার কৃত ব্যক্তিরা চুরি করে চোরাইকৃত মালামাল নিজ হেফাজতে রেখে বিক্রয়ের জন্য ঘটনাস্থলে অবস্থান করছিল মর্মে স্বীকার করে।
উদ্ধারকৃত আলামত ঃ- প্লাস্টিকের বস্তায় করে ০৫(পাঁচ) বস্তা  যার মোট ওজন ১৮০ (একশত আশি) কেজি এবং মূল্য ৬,৩০০/-(ছয়হাজার তিনশত) টাকা ।
গ্রেফতারকৃতদের নাম ও ঠিকানা ঃ- ১) মোঃ মিজান(১৯), পিতা-আব্দুল গফুর@মানিক মিয়া, মাতা-হোসনে আরা বেগম, সাং-(নানার বাড়ির ঠিকানা) মোহর কোনা ফুলমিয়া মেম্বারের বাড়ি, থানা-নিকলী, জেলা-কিশোরগঞ্জ, বর্তমানে-পশ্চিম গোশাইলডাঙ্গা, রহিঙ্গাপাড়া, খলিল সওদাগরের ভাড়াঘর, থানা-বন্দর, জেলা-চট্টগ্রাম, ২) মোঃ সাগর(২০), পিতা-মোঃ শাহ আলম, মাতা-শানু আক্তার, সাং-মোহরঘোনা, মুকবুল মেম্বারের বাড়ি, ওয়ার্ড নং-০১, উত্তর পাড়া, থানা-নিকলী, জেলা-কিশোরগঞ্জ, বর্তমানে- পশ্চিম গোশাইলডাঙ্গা, রহিঙ্গাপাড়া, মান্নানের মায়ের ভাড়াঘর, থানা-বন্দর, জেলা-চট্টগ্রাম, ৩) মোঃ রাজন (২০), পিতা-লিটন বর্তমান- পিতা-মানিক মিয়া,
মাতা-আছমা বেগম, সাং-সাইদ্দার দক্ষিণ হাটি গরুছড়া, স্বাধীনের বাড়ি, ওয়ার্ড নং-০৭, থানা-নিকলী, জেলা-কিশোরগঞ্জ, বর্তমানে-পশ্চিম গোশাইলডাঙ্গা, রহিঙ্গা পাড়া, তরমুজ সওদাগর/রহমান সওদাগরের ভাড়াঘর, থানা-বন্দর, জেলা-চট্টগ্রাম, ৪) মোঃ মেহেদী হাসান@হৃদয়(১৮), পিতা-মোঃ ওসমান, হাসিনা আক্তার, সাং-চরভূতা কামালের বাড়ি, ওয়ার্ড নং-০২, ১৭নং ইউপি, উত্তর অংশ, থানা-সদর জেলা-লক্ষ্মীপুর, বর্তমানে- পশ্চিম গোশাইলডাঙ্গা, বিল্লাপাড়া, খাল পাড়ের পাশের্^, থানা-বন্দর, জেলা-চট্টগ্রাম, ৫) মোঃ দিন ইসলাম@বাট্টু(৩০), পিতা-মৃত শামছুল হক, মাতা-মৃত সায়েদা বেগম, স্ত্রী-তাজনাহার বেগম, সাং-পিতাম উদ্দীন বাজার, আলমগীরের ভাড়াঘর, গৌরিপুর, থানা-দাউদকান্দি, জেলা-কুমিল্লা, বর্তমানে-চট্টগ্রাম শহরে ভাসমান অবস্থায় বসবাস করেন,
৬) মোঃ জসিম উদ্দিন (১৮), পিতা-আব্দুল সাত্তার, মাতা-সুরমা বেগম, সাং-পশ্চিম লালপুর থানা-সেনবাগ, জেলা-নোয়াখালী, বর্তমানে- পশ্চিম গোশাইলডাঙ্গা, গাবগাছতলা, মাজারের পাশের্^ আজিমের ভাড়াঘর, থানা-বন্দর, জেলা-চট্টগ্রাম,(ভাসমান), ৭) মোঃ মহিউদ্দিন (২৩), পিতা-মোহাম্মদ আজাদ, মাতা-সেলিনা বেগম, সাং-পশ্চিম নিমতলা, দফাদার বাড়ি, ওয়ার্ড নং-৩৬, পশ্চিম পাড়া, থানা-বন্দর, জেলা-চট্টগ্রাম।
অভিযান পরিচালনাঃ
উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি-বন্দর ও পশ্চিম) জনাব মঞ্জুর মোরশেদ এর সার্বিক দিক নির্দেশনায়, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিবি-বন্দর) জনাব আবু বক্কর সিদ্দিক এর তত্ত্বাবধানে টিম নং-১৭ এর পুলিশ পরির্দশক মোঃ জাহেদুল কবির সঙ্গীয় এসআই/ আনোয়ার হোসেন, এসআই/প্রবাল সিনহা,  এএসআই/মোঃ তাজুল ইসলাম, এএসআই/তাপস কান্তি,  কং/২৪৩৮ মফিজুর রহমান, কং/১০২৮ মোঃ আবুল কালাম, কং/১৩৪৪ মোঃ আলমগীর হোসেন, কং/১৩৫০ ওমর ফারুক, কং/৫৬১ মোঃ তাজুল ইসলাম, কং/৬২৯৯ মোহাম্মদ আলী, সকলে মহানগর গোয়েন্দা (বন্দর) বিভাগ, সিএমপি, চট্টগ্রাম অভিযান পরিচালনা করেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply