Home বরিশাল সন্তানের জন্মনিবন্ধনে ভোগান্তির শেষ নেই! প্রয়োজন আদি পুরুষের নিবন্ধন

সন্তানের জন্মনিবন্ধনে ভোগান্তির শেষ নেই! প্রয়োজন আদি পুরুষের নিবন্ধন

0 0

ভোলা জেলা প্রতিনিধি:নতুন বছরে সন্তানকে বিদ্যালয়ে ভর্তি এবং চাকুরীজীবি পিতামাতার ইএফটি (ইলেক্ট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার) করাতে বা অন্যান্য কারনে সন্তানের জন্মনিবন্ধন প্রয়োজন৷ কিন্তু
দেশে নতুন নিয়মে সন্তানের জন্মনিবন্ধন করতে প্রয়োজন বাবা ও মায়ের জন্মনিবন্ধনের কাগজ। বাবা কিংবা মায়ের জন্মনিবন্ধনে প্রয়োজন পড়ছে তাঁদের বাবা-মায়ের জন্মনিবন্ধন। অর্থাৎ শিশুর জন্মনিবন্ধনে দাদা-দাদীর জন্মনিবন্ধনের কাগজের প্রয়োজন পড়ছে। কিন্তু দাদা-দাদীর জন্মনিবন্ধনের কাগজ না থাকায় পড়তে হচ্ছে ভোগান্তিতে। এ অবস্থায় ‘আদি’ পুরুষের নিবন্ধন নিয়ে বেগ পেতে হচ্ছে জন্মনিবন্ধন করতে আসা প্রায় প্রতিটি নাগরিকের।

রবিবার (১০ জানুয়ারি) সকাল ১০টা চরফ্যাশন পৌরসভা কার্যালয় জন্মনিবন্ধন শাখায় দেখা যায় উপচে পরা ভিড়৷ সন্তানের জন্মনিবন্ধন করতে না পেরে দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পরছে অনেকেই৷

তবে এখানেই কিন্তু শেষ নয়৷ সন্তানের জন্মনিবন্ধনের প্রয়োজনে লাগবে বাড়ির হোল্ডিং নম্বর, পৌর কর পরিশোধের রশিদ৷ আপনি ভাড়াটিয়া হলে বাসার মালিকের। আরো আছে, শিশুর জন্মের নিশ্চয়তার জন্য প্রয়োজন চিকিৎসকের সনদ অথবা টিকা কার্ডের কপি৷ এরপর রয়েছে নানা ধরণের প্রক্রিয়া। আর এসব প্রক্রিয়া শেষে শিশুর জন্মনিবন্ধন পেতে লেগে যাচ্ছে দিনের পর দিন। স্কুলে ভর্তির জন্য প্রস্তুত শিশুদের অভিভাবকদের ভোগান্তির যেন শেষ নেই।

চরফ্যাশন পৌর ৪নং ওয়ার্ড ভদ্র পাড়ার বাসিন্দা মোঃ ইব্রাহিম এমন ভোগান্তির কথা স্বীকার করে বলেন, ইতিপূর্বে জন্মনিবন্ধন কে এতোটা গুরুত্ব দেয়া হয়নি৷ জাতির পরিচয় পত্র করার সময় জন্মনিবন্ধন থাকা বাধ্যতামূলক হলে এখন অভিভাবকগণ এতো হয়রানি হতোনা৷ সরকার যদি বর্তমান নিয়মটা সহজ করে দেন তাহলে ভালো হয়।

ভুক্তভোগী শাহানাজ পাভিন বলেন, আগে শুধু অভিভাবকের জাতীয় পরিচয় পত্র (আইডি কার্ড) দিয়ে সন্তানের জন্মনিবন্ধন করা যেতো। এখন আমাদের জন্মনিবন্ধনও চাওয়ায় বিপাকে পড়তে হয়েছে। সন্তানের জন্মনিবন্ধন না করতে পেরে ভালো স্কুলে ভর্তি করানো অনিশ্চিত হয়ে পরেছে৷ তিনি সরকারের নিকট আগের নিয়মে সহজভাবে জন্মনিবন্ধনের দাবি জানান৷

চরফ্যাশন পৌরসভা নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা বলেন, এ বিষটি নিয়ে সাধারন মানুষের সঙ্গে আমাদের ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হচ্ছে। সরকার থেকে অনলাইনে যে ফরমেটে দেয়া হয়েছে এসকল তথ্যের একটিও ব্যতিত ফর্ম সাবমিট করা সম্ভব নয়৷ এখানে আমাদের কোন হাত নেই৷ আমরাও চাই দ্রুত এ বিষয়ে নতুন করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হোক।

NO COMMENTS

Leave a Reply