Home চট্টগ্রাম জনগণই আমার শক্তি- গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের

জনগণই আমার শক্তি- গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের

0 0

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ২৯ নাম্বার পশ্চিম মাদারবাড়ী ওয়ার্ড থেকে আবারো প্রার্থী হয়েছেন জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে গত সিটি নির্বাচনে নির্বাচিত কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের । মাদার বাড়ীর স্থানীয় বাসিন্দা সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান সাবেক কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের ছাত্রাবস্থায় থেকে মুজিব আদর্শের প্রতি ব্যাপক অনুরক্ত ছিলেন ।

স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের অগ্র সৈনিক এই সাবেক কাউন্সিলর ৮৯-৯০ সালে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী সিটি কলেজের জিএস এর দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে ৯৩ সালে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের চন্দন- মশিউর কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদকের ও দায়িত্ব পালন করেন ।

বর্তমানে ২৯ নং পশ্চিম মাদারবাড়ী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। ছাত্ররাজনীতির মাধ্যমে রাজনীতিতে হাতে খড়ি এই সাবেক কাউন্সিলর এলাকায় প্রভূত উন্নয়নের কারণে ব্যাপক জনপ্রিয়তার অধিকারী ।

” সিটিজি ট্রিবিউন” র সাথে আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করেন । সেই আলোচনার বিস্তারিত
” সিটিজি ট্রিবিউন”র পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো ……

সাক্ষাৎকার নিয়েছেন তানভীর আহমেদ

সাবেক কাউন্সিলর হিসেবে আপনি নিজেকে কতটুকু সফল মনে করেন ….???

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের :

সফলতা-ব্যর্থতার মাপকাঠি নিরূপণ করবে আমার এলাকার জনগণ । তবে আমি দৃঢ়তার সাথে বলতে চাই ” বিগত পাঁচ বছর কাউন্সিলর’র দায়িত্ব পালনকালে অত্র এলাকার সার্বিক উন্নয়নের জন্য আমি নিরলসভাবে কাজ করেছি । আমার ওয়ার্ডের জনগণের সকল সুখ -দুঃখের সময় আমি সর্বাত্মকভাবে পাশে থাকার চেষ্টা করেছি । এলাকার জনগণের সার্বিক জীবনমান উন্নয়নের জন্য আমার গৃহীত পদক্ষেপগুলো জনমানসে ব্যাপক রেখাপাত করেছে । বিশেষ করে বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের ব্যাপক প্রাদুর্ভাবের সময় আমি জীবন বাজী রেখে অত্র ওয়ার্ডের জনগণের পাশে ছিলাম ।

আপনার দৃষ্টিতে অত্র ওয়ার্ডে অসমাপ্ত কাজ কি আছে বলে আপনি মনে করেন ..????

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের :

দেখুন পাঁচটি বছর দেখতে দেখতে কেটে যায় । পাঁচটি বছর কাউন্সিলের’র দায়িত্ব পালনকালে আমি আপ্রাণ চেষ্টা করেছি এলাকার সার্বিক উন্নয়নের জন্য । বেশকিছু কাজ বাকি রয়ে গেছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বাদশা মিয়া রোড, বায়তুস সালাত মসজিদ লেইন, মাওলানা আক্তার শাহ লেইন, ঝাড়ু গলি, আমানুল্লাহ সর্দার লেইন রোড । ইতিমধ্যে কাজ সম্পন্ন হওয়া রাস্তাগুলো হলো উদয়ন গলি, আলো সিঁড়ি গলি, ১ ও ২ নম্বর গলি, রশিদ মাস্টার লেইন, ভান্ডারিয়া পাড়া, এনআরবি লেইন । এছাড়া টং ফকির মাজার লেইন এবং যুগী চাঁদ মসজিদ রোডের কাজ চলমান রয়েছে । ইনশাল্লাহ আবারো নির্বাচিত হলে উক্ত অসমাপ্ত কাজগুলোর পাশাপাশি অত্র ওয়ার্ডে তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করব ।

কাউন্সিলর থাকাকালীন কোন কাজটিকে আপনার দৃষ্টিতে সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং মনে হয়েছে ……???

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের :

প্রতিটি কাজকে আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি । বঙ্গবন্ধু কন্যা ,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। পশ্চিম মাদারবাড়ী ওয়ার্ড কে মাদকমুক্ত করতে আমি প্রশাসন এবং স্থানীয় জনসাধারণকে নিয়ে সর্বাত্মক চেষ্টা করেছি । মাদকের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধ ছিল আমার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ । আমার দৃঢ় বিশ্বাস আমার ঐকান্তিক প্রচেষ্টা এবং প্রশাসন ও স্থানীয় জনগণের সার্বিক সহযোগিতার ফলে বর্তমানে অত্র এলাকায় মাদক দুষ্প্রাপ্য প্রায়।

সদরঘাট -বারেক বিল্ডিং রোডের বেহাল দশার কারণ কি ….???

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের :

চট্টগ্রামের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সদরঘাট- বারিক বিল্ডিং রোডের উন্নয়নের দায়িত্ব জাইকার উপর ন্যস্ত। এটি জাইকার অর্থায়নের একটি প্রজেক্ট । রাস্তার উন্নয়নের কাজে যেসব ঠিকাদার জড়িত ছিল তাদের গাফিলতির কারণে এটি হয়েছে বলে আমি মনে করছি ।

ওয়ার্ডের শিক্ষা, ক্রীড়া ও স্বাস্থ্যে খাতের উন্নয়নে আপনি কি ভূমিকা পালন করেছেন ???

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের :

জাইকা ও সিটি কর্পোরেশনের যৌথ প্রচেষ্টায় পশ্চিম মাদারবাড়ী বালিকা বিদ্যালয় কে সম্প্রসারিত করে আধুনিক সুবিধা সম্বলিত লিফট সহ সাততালা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণ করা হয়েছে । এই বিদ্যালয়কে কলেজে রুপান্তরের একটি প্রকল্প প্রক্রিয়াধীন রয়েছে । ওয়ার্ড অফিস সার্বক্ষণিক একজন ডাক্তার এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেছে । এছাড়া আমার ওয়ার্ডে শিশু ও মাতৃ মঙ্গলের জন্য এনজিওদের সমন্বয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছিল এবং তা কার্যকরও করা হয়েছিল । ক্রীড়াক্ষেত্রে পশ্চিম মাদারবাড়ীর সুনাম সমগ্র চট্টগ্রাম ব্যাপী । অত্র ওয়ার্ডে বিভিন্ন ক্রিকেট ও ফুটবল টুর্নামেন্টের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে আমি দায়িত্ব পালন করেছি ।

নির্বাচনে জয়লাভের ব্যাপারে আপনি কতটুকু আশাবাদী ???

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের

বিগত নির্বাচনে সকল রক্তচক্ষু এবং হুমকি কে উপেক্ষা করে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে আমি নির্বাচিত হয়েছি । শেষ পাঁচটি বছর আমি জনতার সেবক হিসেবে কাজ করেছি,শাসক হিসেবে নয় । আমি জনতার সেবক , সেবক হিসেবে আমি কি করেছি জনগণ তা অবগত । জনগণই আমার শক্তি , জনতার শক্তির বলে বলীয়ান হয়ে সর্বশক্তিমান আল্লাহর অশেষ রহমতে আসন্ন নির্বাচনে পূর্বের ন্যায় সকল রক্তচক্ষু ও হুমকি কে উপেক্ষা করে আমি আবারো নির্বাচিত হব । ইনশাআল্লাহ

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সিটিজি ট্রিবিউন কে সময় দেওয়ার জন্য

গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের :
সিটিজি ট্রিবিউন কেও ধন্যবাদ । আপনাদের বস্তুনিষ্ঠ ও অনুসন্ধানী লেখনী দেশ ও জাতির কল্যাণে প্রবাহিত হবে এই প্রত্যাশা রইল ।

NO COMMENTS

Leave a Reply