Home অপরাধ মনিপুরী পাড়ায় বেবী দম্পতির জমজমাট মাদক ব্যাবসা !

মনিপুরী পাড়ায় বেবী দম্পতির জমজমাট মাদক ব্যাবসা !

0 0

সিটিজি ট্রিবিউন স্টাফ রিপোর্টারঃ নোয়াখালী হইতে বিপুল পরিমাণ মাদক, বিদেশি মদ, বিয়ার, ইয়াবা এবং ইয়াবার পাউডার সহ গ্রেফতারকৃক বেবী দম্পতি নির্ভিগ্নে মনিপুরী পাড়ায় করছে জমজমাট মাদক ব্যাবসা!

গ্রেফতারকৃত মাদক সম্রাট ব্লাজু ও সেনড্রা ব্লাজু (বেবি) দম্পতি বর্তমানে গোপনে মনিপুরী পাড়ার ১১৬/৩ ভবনে বসবাস করে !
সকলের নাকের ডগায়এই ব্যাবসা পরিচালিত করে আসছে। এরা ধ্বংস করছে মনিপুরী পাড়ার সুনাম ।
আমরা আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও মনিপুরী পাড়া কল্যান সমিতিসহ স্হানীয় নেএী স্হানীয়দের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।
আমাদের এই মাদক দস্যুদের কবল হইতে রক্ষা করুন।এরা এলাকায় একটি সিন্ডিকেট তৈরির মাধ্যমে মাদক সহ নানা অনৈতিক কর্মকান্ড করে । মনিপুরী পাড়ায় একাধিক বিলাসবহুল ফ্ল্যাটে বসবাস করে তারা।তাদের এসব অবৈধ-অনৈতিক ব্যাবসা পরিচালনার সার্থে এলাকায় থ্রী ষ্টার নামে ১টি
চক্র গড়ে তুলেছে! এলাকার প্রভাবশালীদের সাথে সখ্যতার কারনে তাদের অপকর্ম সবাই জ্ঞাত থাকা সত্বেও সবাই নীরব ভুমিকায় থাকে!
বেবীর সহযোগী নাসরিন কেও বাসা ছারার নির্দেশ দেয় ফ্ল্যাট মালিক! বেবী গোপনে ১১৬-৩ নং ভবনে এবং তার সহযোগী পার্টনার নাসরিন পারটেক্স গলিতে বাসা নিয়েছ!
এলাকায় প্রচলিত আছে নাসরিন তার স্বামী টিটুর টাকা পয়সা, সম্পত্তি কৌশলে তার নামে নিয়ে স্বামীকে তালাক দেয়!


মাদক সম্রাট ব্লাজুর গ্রেফতারের পর বোঝাগেল তাদের অর্থের উৎস কোথায়? বেড়িয়ে আসতে থাকে তাদের কুকর্মের নানা লোমহর্ষক তথ্য! আত্ন গোপনে চলে যায় বেবী এবং তার সহযোগীরা!

এই চক্রের মাদক ব্যাবসা ছাড়াও আছে সুদ ও নারী ব্যাবসার জমজমাট কাহিনি।
জানা গেছে নাসরিন তার লোক দিয়ে দিন মজুরদের টাকা দিয়ে পরিচালনা করে জুয়ার বোর্ড! সেখানে খেলার জন্য উচ্চ সুদে দিনমজুরদের লোন দেয়! তার লাঠিয়াল বাহিনির অন্যতম খোকন টাকা আদায়ের জন্য সর্বক্ষন তদারকি করে! নিয়ন্ত্রন করে মাস্তান বাহিনী!

এই দলে আরও আছে পাকিস্তানি এক নাগরিক, যাকে ভিবিন্ন সময় অবৈধ ভাবে এদেশে আসতে দেখা যায়। এলাকায় শোনা যায় থ্রী ষ্টারের অপর সদস্য পারভীন মনার পাতানো স্বামী এই পাকিস্থানী! ইতিমধ্যে মনা তার পাকিস্থানী স্বামীর পরিচয় গোপন করে বাংলাদেশী পাসপোর্ট করার চেষ্টা করলে উপর মহলের তদারকির কারনে ব্যার্থ হয়! মাদক বিক্রির পাশাপাশি তাদের ফ্ল্যাটে নানা বয়সী মেয়ে দিয়ে করায় অবৈধ দেহ ব্যাবসা! সে সময় তারা গোপন ক্যামেরায় ভিডিও ধারন করে তা ভাইরাল করার ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে মোটা অংকের টাকা দাবী করে! আর এ টাকার জোড়েই বিলাস
বহুল জীবন যাপন করছে!
এরা সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র অসামাজিক এবং অবৈধ মাদক ব্যাবসা ছাড়াও পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসে চাকুরী দেয়ার নামে প্রায় ১ ডর্জন লোকের কাছ থেকে প্রায় ১,২৫,০০,০০০ টাকা নিয়ে মাত্র ২ জনের চাকুরী দিয়ে বাকী ১০ জনের টাকা আত্নসাৎ করে।
এরা নিজেদের আওয়ামীলীগ নেত্রী পরিচয় দিয়ে দাপটের সাথে করে আসছিলো অনৈতিক, অসামাজিক আর অবৈধ কর্মকান্ড!


এখনই সময় তাদের বিতারিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা করা!
ধারনা করা হচ্ছে গ্রেফতারকৃত মাদক সম্রাট
ব্লাজু কে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বেড়িয়ে আসবে তাদের মাদক ব্যাবসার নানা আস্তানা এবং আইনের আওতায় আনা যাবে বেবী গংদের!

NO COMMENTS

Leave a Reply