Home চট্টগ্রাম ব্র্যাক চেয়ারপার্সন জিল্লুরের সাথে সাক্ষাতকালে সুজন ঢাকায় অবস্থানরতদের সহায়তা চসিককে সক্ষমতার ভিত্তি...

ব্র্যাক চেয়ারপার্সন জিল্লুরের সাথে সাক্ষাতকালে সুজন ঢাকায় অবস্থানরতদের সহায়তা চসিককে সক্ষমতার ভিত্তি দেবে

0 0

চট্টগ্রাম-৭ নভেম্বর ২০২০ইং :চট্টগ্রামের সামগ্রিক উন্নয়নে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন ঢাকায় অবস্থানরত চট্টগ্রামের সন্তান সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সাংস্থার সাবেকও বর্তমান পদস্থ কর্মকর্তা এবং ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিসহ বিশিষ্ট নাগরিকদের সহযোগিতা প্রদানের আহ্বান জানিয়ে বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর নগরী হওয়ায় জাতীয় অর্থনীতির হৃদপিন্ড।

চট্টগ্রাম থেকে চীন পর্যন্ত সরাসরি সড়ক যোগাযোগ এবং বন্দরের মাধ্যমে পূর্ব ভারতের ৭টি রাজ্য, নেপাল ও ভূটানের সাথে ট্রানজিট লিংক এতদ্ অঞ্চলের অথনৈতিক সমৃদ্ধি ও শ্রী বৃদ্ধির সম্ভাবনার দ্বার খুলে দিতে পারে। তাই চট্টগ্রাম বাঁচলে শুধু দেশ নয়, সমগ্র দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার যুগান্তকারী পরিবর্তনের ক্ষেত্রে বৈল্পবিক ভূমিকা রাখবে। তিনি আজ ঢাকায় সমাজ উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক’র চেয়ারপার্সন হোসাইন জিল্লুর করিমের সাথে তাঁর অফিস কক্ষে সাক্ষাৎকালে একথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, জাতীয় আয়ের ৮০ শতাংশেরও বেশি চট্টগ্রাম থেকে অর্জিত হলেও জাতীয় আয় বৃদ্ধির অনেকগুলো খাত নির্জিব রয়ে গেছে। এগুলোকে জাগিয়ে তোলা, বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি করা, উপকূলীয় অঞ্চলে পর্যটন কেন্দ্র ও স্থাপনা গড়ে তোলা, অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলো দেশি-বিদেশী বিনিয়োগের পরিবেশ সৃষ্টি করা সম্ভব হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মিশন-ভিশন অনুযায়ী বাংলাদেশ উন্নত দেশের মাইল ফলক স্পর্শ করবে।

তিনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধি কল্পে আয়বর্দ্ধক প্রকল্প বাস্তবায়ন, প্রধান সেবা খাত শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বিভাগের গতিশীলতা আনয়ণে ঢাকায় অবস্থঅরতন চট্টগ্রামের বিশিষ্ট জন ও কৃতি সন্তনদের প্রণোদনামূলক সহায়তার উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, তাঁরা এগিয়ে এলে চসিক জনকল্যণমূখী স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিজের পায়ে দাঁড়াবার ভিত্তি পাবে।

ব্র্যাক চেয়ারপার্সন হোসাইন জিল্লুর করিম চসিক প্রশাসকের বক্তব্যের সাথে সহমত পোষণ করে বলেন, প্রশাসক হিসেবে খোরশেদ আলম সুজনের প্রচেষ্টা আশা জাগানিয়া। মহৎ ও ভালো কাজের জন্য যে মানসিক ও নৈতিক দৃঢ়তা প্রয়োজন তা থাকলে কোন কিছুই অসাধ্য নয়। তিনি আরো বলেন, সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকান্ড এবং রাস্তা-ঘাটের সংস্কার বর্তমানে যে গতি পেয়েছে সে গতি ধরে রাখতে পারলে চট্টগ্রাম নগরী অচিরেই একটি সুন্দর, সুস্থ এবং পরিচ্ছন্ন নগরীতে পরিণত হবে।

তিনি চসিক প্রশাসকের যে কোন কর্মকান্ডে সর্বাতœক সহযোগিতার আশ্বাসও প্রদান করেন। সেসময় প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মূখ্য সচিব ও ব্র্যাকের উপদেষ্টা আবদুল করিম,

চসিক প্রশাসকের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম উপস্থিত ছিলেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply