Home চট্টগ্রাম চট্টগ্রামে ৭ ও ৮ নং ডিজিটাল ও মডেল হিসেবে রূপান্তরিত করতে চান...

চট্টগ্রামে ৭ ও ৮ নং ডিজিটাল ও মডেল হিসেবে রূপান্তরিত করতে চান জোহরা বেগম।

0 0

নেছার আহম্মেদ, চট্টগ্রাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী জোহরা বেগম । আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের মধ্যে জমে উঠেছে নির্বাচনী আমেজ। পুরাতন প্রার্থীদের পাশাপাশি এবার নির্বাচনে দেখা মিলবে অনেক নতুন প্রার্থী ও এ সকল প্রার্থীদের নানামূখী চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিচ্ছেন নতুন প্রার্থীদের।

সার্বিক উন্নয়ন করেছে তাদের ভবিষ্যত পরিকল্পনা। পুরুষদের পাশাপাশি কাধে-কাধ মিলিয়ে সংরক্ষিত আসন নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন অনেক নারী প্রার্থীও। যাদের লক্ষ উন্নয়নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া ও দূর্নীতিমুক্ত একটি সমাজ গঠন করা।

প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করে তোলা এমনি একজন নারীনেত্রী প্রয়াত এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর আদর্শে অনুপ্রাণিত ও মহিউদ্দিন পরিবারের একান্ত আপনজন এবং চট্টগ্রাম মহিলা আওয়ামীলীগের নারী জাগরণের অগ্রদূত নেতা মহিউদ্দিন চৌধুরীর সহধর্মীনি হাসিন মহিউদ্দিন এর একজন একনিষ্ঠ কর্মী জোহরা বেগম । তিনি বর্তমানে সভাপতি ৪২ নং সাংগঠনিক ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগ, ।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৭ ও ৮ দুইটি ওয়ার্ডের সার্বিক উন্নয়ন নীতিধারা বজায় রেখে কাজ করতে চান জোহরা বেগম। নির্বাচনী বই প্রতীক নিয়ে এলাকাবাসীর কাছে হাজির হয়েছেন। তিনি প্রতিশ্রতি নয়, জনগণের সঠিক সেবা প্রদান করার মাধ্যমে তার উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য এলাকার উন্নয়ন কাজ করে প্রধানমন্ত্রীকে ডিজিটাল ওয়ার্ড প্রদান করা। অত্র ৭ ষোলশহর ও ৮ শুলক বহর -দুইটি ওয়ার্ডের এলাকাবাসী তাকে ভালবাসেন এবং বিশ্বাস করেন।

তাই এলাকাবাসীর ভালবাসা ও বিশ্বাসকে আরো শক্তিশালী করতে গত ২৯শে মার্চ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশগ্রহন করলেও থমকে গেল পুরা বিশ্ব। বর্তমান করোনা মহামারী ভাইরাসের সংক্রমনে সারা বিশ্ব বিপর্যস্ত। ভয়াল এই মহামারীতে আক্রান্ত হয়েছে আমাদের প্রিয় বাংলাদেশও। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন “করোনা চলাকালীন চট্টগ্রামের আনাচে-কানাচে হাজারো পরিবার রয়েছে করোনা সংকটকালীন অবস্থায় তাদের কোন আয়ের উৎসাহ ছিল না আমার সামর্থ্য অনুযায়ী যতটুকু পড়েছি ততটুকু সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছি।

গত শীতকালীন সময়ে গভীর রাত কনকনে শীত। ফুটপাতে ও এলাকাতে রাত কাঠাই কত অসহায় মানুষ, কারো কাছে কোনো রকমের শীত নিবারণের বস্ত্র কেউবা চটের বস্তা গায়ে দিয়ে পার করে শীতের রাত। এসব অসহায় মানুষের জন্য মন কাঁদে অনেকেরও এমন একজন উদার মনের মানুষের, তেমনি একজন মানুষ ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জহুরা বেগম। তিনি আরো বলেন করুনার মাঝে ত্যাগের মাধ্যমে হারাতে হয়েছে হাজার বাঙ্গালীকে”।

দীর্ঘ চার মাস কষ্টের জীবন-যাপন, কিন্তু করোনা ভাইরাস চলমান রয়েছে। জনসাধারণের সতর্কতা অবলম্বন করার আহ্বান জানিয়েছেন। প্রতিশ্রুতি নয়, ফলশ্রুতি দিয়ে আবারো জনগণের মনে জায়গা করে নিবেন উদীয়মান নেত্রী জোহরা বেগম। যার লক্ষ্য বঙ্গবন্ধুর রেখে যাওয়া স্বপ্নকে বাস্তবায়নে পথচলা। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত পরিবেশ বান্ধব গাছ লাগিয়ে চট্টগ্রাম সিটিকে গ্রীন সিটি হিসেবে পরিণত করা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের হাতকে শক্তিশালী করে একটি ডিজিটাল সোনার বাংলাদেশ গড়া।

তাই উন্নয়নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে এবার নির্বাচনী ইস্তেহার থাকছে “মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন করতে রাস্তা-ঘাট ও সড়কের উন্নয়ন, আলোক সজ্জার ব্যবস্থাকরণ, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা পুনঃনির্মাণ ও স্থাপন, বেকার সমস্য দূরীকরণ, বিনামূল্যে সকল সার্টিফিকেট প্রদান, বাল্য বিবাহ রোধ, বয়স্কভাতা প্রদান, মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা, মহল্লায় মহল্লায় পঞ্চায়েত কমিটির মেম্বারের মাধ্যমে বিচার ব্যবস্থা গ্রহণ করা, নালা-নর্দমা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, ডাস্টবিনের ময়লা সময়মত অপসারন করা, এবং যোগ্যতা অনুযায়ী তরুণ-তরুণীদের চাকুরীর ব্যবস্থাকরা সহ নানামুখী সুযোগ সুবিধা প্রদান করা।

” তাই সরকার ঘোষিত নীতিমালা অনুযায়ী দিন তারিখ নির্ধারণে নির্বাচনী প্রস্তুতি নেওয়ার আহবান জানিয়েছেন জোহরা বেগম। “শুভ শুভ শুভ দিন, বই মার্কায় ভোট দিন। বই মার্কা দেখিয়া, ভোট দিবেন হাসিয়া”- এই স্লোগান নিয়ে এলাকাবাসীর সেবা প্রদান করতে চান তিনি। এলাকার মা-বোন, ভাই ও মুরব্বীগণের কাছে দোয়া চান। তিনি আরো বলেন, এলাকাবাসীর ভালবাসায় আজ আমি জোহরা বেগম হয়েছি।

আমার এলাকাবাসী আমাকে অত্যন্ত ভালবাসেন। আর সেই ভালবাসা থেকে বলছি আমি আপনাদেরই বোন, আপনাদেরই বন্ধু, আপনাদেরই সন্তান। আপনারা আমাকে বিপুল ভোটে জয় করবেন বলে আশা রাখছি। পরিশেষে একটি কথা বলতে চাই- “আমার নাম বলে খ্যাত হোক, আমি আপনাদেরই লোক”। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

NO COMMENTS

Leave a Reply