Home অর্থনীতি চামড়া শিল্প চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে চামড়া শিল্পের শ্রমিকরা

চামড়া শিল্প চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে চামড়া শিল্পের শ্রমিকরা

মোহাম্মদ হাসান ফারুক ;চামড়া শিল্প দীর্ঘকাল ধরেই বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ বাজার ও রপ্তানির জন্য চামড়া এবং চামড়াজাত সামগ্রী উৎপাদন করে আসছে। কাঁচা চামড়া এবং সেমিপাকা চামড়া বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী রপ্তানি সামগ্রী

বাংলাদেশে চামড়া শিল্পে কম মজুরিতে নিয়োগ করা হচ্ছে শিশুদের৷ যা আরো ভয়াবহ৷ শুধু তাই নয়, রাজধানী ঢাকার বাসিন্দাদের ফেলছে হুমকির মুখে৷

বাংলাদেশের চামড়া শিল্পের ৯০ ভাগই ঢাকার জনবহুল এলাকা হাজারিবাগে৷ হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’এর সাম্প্রতিক এক গবেষণায় বলা হয়েছে যে, এই শিল্পে কর্মরত শ্রমিকরা নানা ধরণের স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন৷ বিশেষ করে শিশুরা যারা এই শিল্পে কাজ করে, তাদের অবস্থা খুবই খারাপ৷ কারখানায় ব্যবহৃত সালফিউরিক অ্যাসিড, ক্রোমিয়াম, সীসা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর৷ এসব কারখানায় নেই কোনো বর্জ্য শোধনের ব্যবস্থা৷ নেই ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট৷ বাংলাদেশ জাতীয় পরিবেশ আইনজীবী সমিতির প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ডয়চে ভেলেকে জানান, প্রতিদিন ২২ হাজার লিটার রাসানিক বর্জ্য নির্গত হয় হাজারিবাগের চামড়া কারখানা থেকে৷ যা পরিবেশের ক্ষতি করছে৷ ক্ষতি করছে জনস্বাস্থ্যের৷ আর কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের নেই কোনো প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা৷ ফলে তারা ক্যান্সানসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে৷

পরিবেশ আইনজীবী সমিতির আবেদনে আদালত ২০০৫ সালে হাজারিবাগের চামড়া কারখানা ঢাকার বাইরে সরিয়ে নেয়ার আদেশ দেয়৷ কিন্তু বার বার সময় চেয়েও এখনো এ ব্যাপারে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হয়নি৷ তবে শিল্পমন্ত্রী দিলিপ বড়ুয়া বলেছেন, ২০১৩ সালে হাজারিবাগের চামড়া কারখানা ঢাকার বাইরে সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা আছে তাঁদের৷ জবাবে পরিবেশ আইনজীবী সমিতির সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলেন, এই দীর্ঘসূত্রিতার জন্য আসলে সরকারই দায়ী৷

বাংলাদেশ প্রতিবছর ৪৬০ মিলিয়ন টাকার চামড়া এবং চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি করে উন্নত বিশ্বে৷ কিন্তু এখানে চামড়া শিল্পে পরিবেশ আইন এবং শ্রমিকদের অধিকার কোনোভাবেই প্রতিষ্ঠা করা যাচ্ছেনা৷ যা সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানকে হতাশ করে৷

NO COMMENTS

Leave a Reply