Home অপরাধ হোটেল কর্মচারী মৃত্যু,ঢাকা-বগুড়া মহাসড়ক সংলগ্ন ছোনকা বাজারস্থ ওই হোটেলের মধ্যে তাঁর লাশ...

হোটেল কর্মচারী মৃত্যু,ঢাকা-বগুড়া মহাসড়ক সংলগ্ন ছোনকা বাজারস্থ ওই হোটেলের মধ্যে তাঁর লাশ পাওয়া যায়।

শনিবার (১০অক্টোবর) সকালে উপজেলার ঢাকা-বগুড়া মহাসড়ক সংলগ্ন ছোনকা বাজারস্থ ওই হোটেলের মধ্যে তাঁর লাশ পাওয়া যায়। ওই কর্মচারীর নাম মো. আব্দুস সালাম (২২)। তিনি সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার ধাপতেতুলিয়া গ্রামের বয়তুল্লাহ প্রামাণিকের ছেলে।

এদিকে এই হোটেল কর্মচারী মৃত্যু নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়লে নিহতের লাশ উদ্ধার করতে যান পুলিশ। তবে পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় এবং হার্টের জটিল রোগে তাঁর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম আবুল কালাম আজাদ এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবার রাতে হোটেলটির ছয়জন কর্মচারী রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। সকালের দিকে সবাই জেগে উঠলেও আব্দুল সালাম ঘুমিয়েই থাকেন। এসময় অন্যান্য কর্মচারীরা তাকে বেশ কয়েকবার ডাকাডাকিও করেন। কিন্তু তাঁর কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে স্থানীয় বাজারের এক পল্লী চিকিৎসককে ডাকা হয়।

তিনি এসে বলেন, অনেক আগেই হোটেল কর্মচারী আব্দুস সালাম মারা গেছেন। পরে বিষয়টি তার পরিবারের সদস্যদের জানানো হয়। এদিকে এই মৃত্যু নিয়ে ছোনকা বাজার এলাকায় নানা গুঞ্জন ও জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়। একপর্যায়ে খবর পেয়ে তিনি ও জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমান লাশ উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

কিন্তু স্বাভাবিক মৃত্যু হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর নিহতের লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেন। এছাড়া নিহতের ভাই মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, বেশকিছুদিন ধরেই তার ভাই হার্টের জটিল রোগে ভুগছিলেন। এমনকি হার্টে রিং পড়াতেও বলেছিলেন চিৎিসকরা। কিন্তু অর্থের অভাবের কারণে সেটি করা সম্ভব হয়নি।

সম্ভবত হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই তার ভাই মারা যেতে পারেন। এনিয়ে তাদের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ নেই বলেও জানান তিনি।

NO COMMENTS

Leave a Reply