Home চট্টগ্রাম ইউনুচের জনপ্রিয়তায় দিশেহারা অন্য প্রার্থীরা

ইউনুচের জনপ্রিয়তায় দিশেহারা অন্য প্রার্থীরা

0 0

মামুনর রশিদ; চট্টগ্রাম :নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস এম ইউনুচের জনপ্রিয়তার কাছে পাত্তা পাচ্ছেনা বলে মন্তব্য করেন অামিরাবাদের সাধারণ ভোটাররা। ১ নং ওয়ার্ডের বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী মোঃজসিম উদ্দিন সিটিজি ট্রিবিউনকে বলেন, যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয় কিভাবে এলাকার উন্নয়ন করবে। প্রধানমন্ত্রী নৌকা প্রতীকের,মন্ত্রী নৌকা প্রতীকের, এমপি নৌকা প্রতীকের। সুতারাং নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ছাড়া কারো উন্নয়ন করা সম্ভব না।

এছাড়া ওইসব প্রার্থীরা পূর্বে জনপ্রতিনিধি ছিলনা পূর্বের কোন অভিজ্ঞাতাও নেই তাদের। তাই ভোটাররা কোন মতে নৌকা প্রতীকের বাইরে যাবে না। ২ নং ওয়ার্ডের সমাজের সর্দার মোঃ ইদ্রিস মিয়া বলেন, নৌকা প্রতীকের বাইরে যারা নির্বাচন করছেন তারা কোন দিন জয়ের স্বপ্ন দেখতে পারেনা। সব প্রার্থীর ব্যাপারে ভাল করে জানি। সরকার দলীয় সিনিয়র কারো সাথে নেই কোন সম্পর্ক। উল্টো কারাবাস থাকার কথা কে না জানে। সরকারের বিরুদ্ধে তাদের অবস্থান আমরা তাদের কেন ভোট দিব।

৩নং ওয়ার্ডের প্রবাস ফেরত মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ইউনুসের মত ভাল মানুষ নেই বললেই চলে। তিনি যে কদিন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন। সে সময়ে এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি সকল স্থরের মানুষের দৌড়গোড়ায় পৌঁছে দিয়েছেন সেবা। তার আচরণে মনে হয়।

সে একজন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান না অতি সাধারণ মানুষ। যারা তার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আসলে তারা আমিরাবাদের উন্নয়ন চাইনা বলে নির্বাচন করছেন। ইউনুচ চেয়ারম্যানতো অবশ্যই হবে ইনশাআল্লাহ। ৪ নং ওয়ার্ডে ভোটার রোকেয়া বেগম বলেন, সকল প্রকার ভাতা সঠিকভাবে দিয়ে যাচ্ছেন ইউনুচ। তাকে ভোট না দিয়ে কাকে ভোট দিব।

৫ নং ওয়ার্ডের আব্দুল আলিম বলেন, রাতদিন ২৪ ঘন্টা ও ৭দিনে ৭দিন ইউনুচকে ছাড়া কাউকে পাবেনা। ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য ইউনুচ ছাড়া সম্ভবনা। তাই আমরা ইউনুচকে ছাড়া অন্য প্রার্থীদের ভোট দেওয়ার প্রশ্নেই আসেনা। ৫ নং ওয়ার্ডের ছাত্রনেতা ও ভোটার রকিবুল হাসান রকিব বলেন, চেয়ারম্যানে যে কোন কেউ দাঁড়াতে পারে। সরকার দলীয় প্রতীক স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অানল কেন? নৌকা প্রতীকে ভোট দিলেই উন্নয়ন হবে। এটা বুঝানোর জন্য সরকার দলীয় প্রতীক নিয়ে এসেছেন। এলাকার ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে হবে। বাকী যারা প্রার্থী হয়েছেন তারা চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ঠিক আছে। কিন্তু তারা সরকারের সমালোচনা করার জন্য নির্বাচন করছেন।

সরকার কি তাদের দিয়ে আদৌ উন্নয়ন করাবে ? আমরা এলাকার উন্নয়ন চাই। তাই নৌকা প্রতীকে ভোট দিব, অন্যদের ভোট দেওয়ার জন্য অনুরোধ করব। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের অনুরোধ করব। আপনারাও এলাকার উন্নয়ন চান। তাই সময় থাকতে নৌকা প্রতীককে সমর্থন জানিয়ে প্রচারণা বন্ধ করুন এবং নিজেদের নির্বাচনি আর্থিক ব্যয় এলাকার উন্নয়নে ব্যবহার করুন।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা যায়, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর কাছে জনপ্রিয়তায় পাত্তা না পেয়ে কোন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত হচ্ছে কিনা তা নিয়ে গভীর পর্যবেক্ষণ করছেন । প্রত্যেক প্রার্থীর নিজস্ব লোক ও প্রার্থীর মুঠোফোনের আলাপ পর্যন্ত নজরদারিতে রেখেছেন।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এস এম ইউনুস বলেন, আমি নির্বাচিত হলে, প্রিয় নেতা ও সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার অভিভাবক প্রফেসর ড. অাবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভীর নির্দেশ ও পরামর্শ ক্রমে এলাকার উন্নয়ন করে যাব।

NO COMMENTS

Leave a Reply