Home অপরাধ দক্ষিন আফ্রিকায় বাংলাদেশী সন্ত্রাসী গ্রুপের হয়রানিতে অতিষ্ঠ বাংলাদেশী প্রবাসীরা

দক্ষিন আফ্রিকায় বাংলাদেশী সন্ত্রাসী গ্রুপের হয়রানিতে অতিষ্ঠ বাংলাদেশী প্রবাসীরা

দক্ষিন আফ্রিকায় কৃষাঙ্গ চোর ডাকাতের কথা জানেনা এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল।যারাই দক্ষিন আফ্রিকা বসবাস করে তারাতো এসবে অভ্যস্হ।কিন্তু যখন শুনি দক্ষিন আফ্রিকায় বাংলাদেশীদের একটি অংশ চুরি,ডাকাতি,অপহরণ সহ চাঁদাবাজীতে জড়িত তখন বিষয়টি অবশ্যই জটিল মনে হয়।

দক্ষিন আফ্রিকায় এমন একটি ভয়ংকর বাংলাদেশী সন্রাসী গ্রুপের সাথে আজ আপনাদের পরিচয় করিয়ে দেবো যারা দীর্ঘ দিন থেকে দক্ষিন আফ্রিকায় নানা অপকর্মের সাথে জড়িত এবং হয়রানি করে আসছে প্রবাসী অন্য বাংলাদেশীদের।

১৩ সদস্যের বাংলাদেশী সন্রাসী এই গ্রুপটির অবস্থান নদার্ন কেপ প্রদেশের আফিংটন সংলগ্ন কাকামাস এলাকায়।১৩ সদস্যের এই গ্রুপটিতে ৪ জন সক্রিয় ভাবে অপরাধ কর্মকান্ড চালিয়ে গেলেও আর ৯ জন আড়ালে থেকে তাদের বিভিন্ন রখম সহযোগিতা করে থাকে।নদার্ন কেপের আফিংটন এলাকায় এই গ্রুপটি বাংলাদেশী নাগরিকদের বিভিন্নভাবে হয়রানি সহ এমনকি কৃষাঙ্গ নাগরিক ভাড়া করে বাংলাদেশীদের দোকানে চুরি ডাকাতি করিয়ে আসছে দীর্ঘ দিন থেকে।এছাড়া এই গ্রুপটি বাংলাদেশীদের বিভিন্ন ব্যবসায়িক ঝামেলাকে পুঁজি করে বিচারের নামে মোটা অংকের চাঁদা আদায় করে এবং তাদের চাহিদা মতো টাকা দিতে না পারলে তারা দোকান দখল করে নিয়ে নেয়।সেই সাথে গ্রুপটির সাথে রয়েছে ঐ এলাকার পুলিশের দারুন সখ্যতা।তাই তারা নানা সময় পুলিশকে ব্যবহার করে বাংলাদেশীদের নানা ভাবে হয়রানি করে থাকে।এই এলাকায় ১৩ জনের বাংলাদেশী এই গ্রুপটির অত্যাচারে ইতিমধ্যে ঐ এলাকা ছেড়েছে অনেক বাংলাদেশী।

সর্বশেষ ২৮ আগষ্ট সন্ধ্যা ৭ টার সময় ঐ এলাকার ইব্রাহিম নামে একজন বাংলাদেশী দোকানদারকে অপহরণ করতে যায় বাংলাদেশী এই গ্রুপটি।যার সিসিটি ফুটেজটি আমাদের হাতে রয়েছে।সিসিটিভির ফুটে দেখা যায় ৭ /৮ জনের বাংলাদেশী গ্রুপটি আচমকা ইব্রাহিমের দোকানে প্রবেশ করে ভয়ভীতি দেখিয়ে দোকানের ফ্রীজ ও দোকানের বাইরে থাকা ইব্রাহিমের গাড়ি ভাংচুর করে।এই সময় ইব্রাহিম বিষয়টি বুঝতে পেরে দোকানের পিছন দরজা দিয়ে পালিয়ে একজন কৃষাঙ্গের বাড়িতে আশ্রয় গ্রহণ করে।পরে বাংলাদেশী গ্রুপটি দোকানের কাউন্টারে থাকা নগদ টাকা পয়সা নিয়ে চলে যায়।

এইভাবে দিনের পর দিন বাংলাদেশী সন্রাসী গ্রুপটি নদার্ন কেপের আফিংটন এলাকায় নানা অপকর্ম করে বাংলাদেশী নাগরিকদের হয়রানি করে আসছে।গ্রুপটির অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে বাংলাদেশী নাগরিকেরা।তাদের বিরুদ্ধে ঐ এলাকার বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন সময়ে করা ডজনখানেক মামালও রয়েছে।

গ্রুপটির নেতৃত্বে রয়েছে, রিয়াজ আহামদ বাবু, নয়ন আহামদ,মাহবুব সরকার ও নজরুল ইসলাম প্রকাশ লুংগি নজরুল।
তারা সবাই কুলিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার শাহাপুর ও গোপাল পুর এলাকার বাসিন্দা।

স্হানীয় বাংলাদেশীদের অভিযোগ এই গ্রুপটি দেশে শক্তি শালী হওয়ার কারণে কেউ এখানে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে তারা দেশে তাদেরকে হুমকি দমকি এবং মামলা দিয়ে হয়রানি করে।

এই ভাবে এই গ্রুপটি নদার্ন কেপের আফিংটন এলাকায় নানা ভাবে হয়রানি করে আসছে বাংলাদেশী নাগরিকদের। স্হানীয় বাংলাদেশীরা এই গ্রুপটির কবল থেকে বাঁচতে বাংলাদেশ পরিষদ সহ কমিউনিটির কাছে সহযোগিতা কামনা করেছেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply