Home চট্টগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি থেকে মামলার শিকার প্যানেল চেয়ারম্যান, জনমনে ক্ষোভ

হাসপাতালে ভর্তি থেকে মামলার শিকার প্যানেল চেয়ারম্যান, জনমনে ক্ষোভ

0 0

গ্রুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি থাকা সত্যেও মিথ্যা মামলার শিকার হয়েছেন রাঙ্গুনিয়া উপজেলার আওতাধীন ১৪ নং রাজা নগর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান । ৩ নং ওয়ার্ডের জনগণের প্রত্যক্য ভোটে নির্বাচিত তিনবেরর জনপ্রিয় ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আওামীলিগের সহ সভাপতি আব্দুস সালাম সিকদার ।

গত ৪ সেপ্টেম্বর সাকিব ডেকোরেটরের গোডাউনের সামনে রাজার হাট ২ আলম শাহ পারা পাকা রাস্তার উপর,শিকদার পাড়া রাজাভুবন,দক্ষিণ রাজানগর,রাঙ্গুনিয়ায় সংগঠিত মারামারির ঘঠনায় জৈনকা পিংকি আক্তারের দায়ের কৃত রাঙ্গুনিয়া থানার মামলায় মামলা নং [ ০১/ ১৯০ ] আসামী করা হয়েছে জনপ্রিয় প্যানেল চেয়ারম্যানকে । কিন্তু প্রকৃত সত্য ঘঠনা হচ্ছে জনপ্রিয় এই প্যানেল চেয়ারম্যানকে গত ৩ সেপ্টেম্বর ডায়বেটিস, উচ্চ রক্ত চাপ, লিভার চিরচিজ সহ নানাবিধ রোগের কারণে সকাল ৬ টার সময় গ্রুরুতর অসুস্থ অবস্থায় প্রথমে চট্টগ্রাম বেসরকারি হাসপাতাল পলি ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয় । শারীরিক অবস্থা গ্রুতর অবনতি হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৬ নং ওয়ার্ড ৬২ নং বেডে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয় । কিন্তু মারামারির ঘঠনায় মামলা দায়ের করা হয় ৪ সেপ্টেম্বর এবং এজাহারে মারামারির ঘঠনা সময় উল্লেখ করা হয় ৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৯.৩০ মিনিটে । যেখানে প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার ৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৬ টায় গ্রুরুতর অসুস্থ হয়ে ভর্তি থাকার পর ও মামলার এজাহারে সংগঠিত ঘঠনায় তাকে আসামী করায় জনমনে তীব্র ক্ষোভ সৃস্টি হয়েছে । একজন জনপ্রতিনিধির নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় ব্যাপক উদ্ভেগ প্রকাশ করেছেন এলাকার সচেতন মহল।

মামলা দায়েরের প্রসংগে রাজার হাট বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃফারুক বলেন একজন জনপ্রিয় প্যানেল চেয়ারম্যানকে এই ধরনের মিথ্যা মামলায় আসামী করা অত্যান্ত দুঃখ জনক । রাজার হাট বাজারের চিহ্নিত সন্তাসীদের চাঁদা বাদীর প্রতিবাদ করায় মিথ্যা মামলার শিকার হয়েছেন জনপ্রিয় প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম সিকদার ।

যাকে নিয়ে সৃষ্ট ঘঠনা রাজার হাট বাজার কমিটির নির্বাহী সদস্য সেই সামসুল আলম বলেন, মোঃমোসলেম সিকদার আমার দোকানে চাঁদা চাওয়ায় বাজার কমিটিকে বিচার দেওয়ায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে ব্যাপক মারদর করেন এবং দোকানে হামলাও করেন ।
মোসলেম উদ্দিন একজন চিহ্নিত চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী তার নামে রাঙ্গুনিয়া থানায় তার নামে আগেও মামলা হয়েছে । জি আর মামলা নং ১৫৪/২০ ।

উল্লেখ্য ইতিপুর্বে রাজার হাট বাজার কমিটি চাঁদাবাজ মোসলেম উদ্দিন গং এর বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিয়াইজি বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রধান করার পরও এখনও ধরা ছোয়ার বাইরে ।

NO COMMENTS

Leave a Reply