Home আইন ও আদালত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ছাত্রাবাসে মারামারির ঘটনায় ১১ দিন পর আদালতে মামলা

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ছাত্রাবাসে মারামারির ঘটনায় ১১ দিন পর আদালতে মামলা

চট্টগ্রাম ব্যুরো : সোমবার (২৪ আগস্ট) মহানগর হাকিম সফি উদ্দিনের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন এ ঘটনায় আহত ডেন্টাল বিভাগের শিক্ষার্থী শাওন দত্ত।

মামলায় ১১ জন ইন্টার্ন চিকিৎসকসহ ছাত্রলীগের ২৬ জনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

পরে আদালত মামলাটি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন মামলার বাদী শাওন দত্তের আইনজীবী শাহরিয়ার তানিম।

আদালতসুত্রে জানা যায়, শাওন দত্তের করা মামলার আসামিরা সকলেই সদ্য সাবেক হওয়া মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী হিসেবে মেডিকেল পাড়ায় পরিচিত।

আর মামলার বাদী শাওন দত্ত শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

মামলার আসামিরা হলেন- চমেক ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান, চমেক ছাত্র সংসদের সহসভাপতি (ভিপি) এম এ আউয়াল রাফি ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের তাজওয়ার রহমান অয়ন, ওসমান গণি, ইমতিয়াজ উদ্দিন মানিক, মাসুম বিল্লাহ মাহিন, ফয়সাল আহমেদ, আসিফ মানজুম রিফাত, অতন্দ্র আকাশ, নুর মোহাম্মদ তানজিম, এ এল এন এস শাহরিয়ার, চমেক ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন ইসলাম শিমুল এবং ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত শোয়াইদ আলী খান, রাহাত জামান, সানি হাসনাইন প্রান্তিক, মাহাদী বিন হাশিম, এম এ কাইয়ূম ইমন, মিনহাজ আবরান লিমন, হাবিবুল ইসলাম, মঈদ সাকিব, আহমেদ ফয়সল, এস এম জিয়াউদ্দিন, সাহেদ কামাল, এইচ আর মাহফুজুর রহমান, আহসানুল করিম মঞ্জুরুল ও অনির্বাণ দে।

উল্লেখ্য, ১৩ আগস্ট চমেকে ছাত্রাবাসে মারামারির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক চকবাজার থানায় একটি মামলা করেন আ জ ম নাছিরের অনুসারীরা। মামলার পরপরই নওফেল অনুসারী ১১ শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করেন পুলিশ। যাদের গ্রেফতার পরবর্তী আদালতে হাজির করলে বিচারক জামিন দেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply