Home চট্টগ্রাম মহেশখালী সোনাদিয়া দ্বীপে মিলেছে ভেসে যাওয়া মাহফুজের লাশ

মহেশখালী সোনাদিয়া দ্বীপে মিলেছে ভেসে যাওয়া মাহফুজের লাশ

0 0

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ২০ আগষ্ট ।

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে গোসল করতে নেমে ঢেউয়ের তোড়ে ভেসে যাওয়া মো: মাহফুজ (১৮) নামে এক মাদ্রাসা পড়ুয়া ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর লাশ পাওয়া গেছে।
নিখোঁজের দুইদিন পর আজ (২০ আগষ্ট) বৃহস্পতিবার সকালে মূল বিচ থেকে অনেক দূরে সোনাদিয়া দ্বীপে জেলেরা তার লাশ দেখতে পায়।
নিহত মাহফুজ ফটিকছড়ি উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের কানি মিয়াজি বাড়ীর প্রকাশ নতুন বাড়ী (টিলার পাড়া) এলাকার দুবাই প্রবাসী মো: মাহবুবুল আলমের ছেলে।
গত ১৮ আগস্ট (মঙ্গলবার) বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে সৈকতের লাবনী পয়েন্টে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হন এই ছাত্র।
জানা গেছে, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত সহ হোটেল মোটেল সীমিত আকারে খুলে দেওয়া পরদিন ১৮ আগষ্ট মঙ্গলবার সকালে স্কুল ছাত্র মাহফুজ ফটিকছড়ি থেকে মামাতভাই ও বন্ধুদের সাথে ২৪ জনের একটি গ্রুপ কক্সবাজার বেড়াতে আসেন। ওইদিন বিকালে তারা সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে বের হন। বিকাল সাড়ে ৪ টার সময় সবাই মিলে সৈকতের লাবণী পয়েন্ট সাগরে গোসল করতে নামে। এক পর্যায়ে ঢেউয়ের টানে মাহফুজ সাগরে তলিয়ে যায়।
সঙ্গে থাকা বন্ধুরা তাকে কিছুক্ষণ খুঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ট্যুরিস্ট পুলিশকে বিষয়টি জানান।
ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান ওইদিন জানায়, বিকাল সোয়া ৫ টা ১৩ মিনিট পর্যন্ত ভাটার সময় ছিল। ভাটার সময় স্রোত প্রচন্ড থাকায় পর্যটকদের সাগরে গোসল নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু মাহফুজসহ সঙ্গে থাকা বন্ধুরা পুলিশের নিষেধ না মেনে সাগরে গোসলে নামে। নিখোঁজ শিক্ষার্থীর সন্ধানে সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে তল্লাশী অভিযান চালানো হলেও তার সন্ধান পায়নি।
এদিকে, নিখোঁজের দুইদিন পর আজ বৃহস্পতিবার সকালে মূল বিচ থেকে অনেক দূরে মহেশখালীর সোনাদিয়া দ্বীপে জেলেরা তার লাশ দেখতে পায়।
সোনাদিয়ার মগচর পয়েন্টে একটি লাশ ভেসে এসেছে। বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) সকালের দিকে স্থানীয়রা লাশটি দেখতে পেয়েছেন। বোটের পাহারাদার সোনাদিয়ার জাকির হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, এটি গত মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) কক্সবাজার সৈকতে ভেসে যাওয়া পর্যটক মাহফুজের লাশ।
সোনাদিয়ার জাকির হোসেন জানান, বোট পাহারা দিয়ে বাড়ি চলে যাওয়ার সময় সোনাদিয়ার মগচর পয়েন্ট চরে তিনি লাশটি দেখতে পান। লাশটির পরনে একটি সবুজ গেঞ্জি ও একটি সাদা হাফপেন্ট রয়েছে। গায়ের রং শ্যামলা। তবে চিৎ হয়ে থাকায় লাশের চেহারা দেখা না যাওয়ায় বয়স অনুমান করতে পারেননি পাহারাদার জাকির হোসেন। লাশটি দেখতে পেয়ে মহেশখালী থানা পুলিশকে খবর দেয়া হয়েছে বলে জানান জাকির হোসেন ।
এদিকে, পর্যটন ব্যবসায়ী কক্সবাজার শহরের বাসিন্দা মাসুম হোসাইন জানান, এই লাশটি কক্সবাজার সৈকতে ভেসে যাওয়া পর্যটক মাহফুজের বলে আমরা ধারণা করছি।
সাগরে ভেসে যাওয়া মাহফুজের বন্ধু জাহিদ জানান, সোনাদিয়ায় ভেসে উঠা লাশের বয়স, পোশাকসহ অন্যান্য বিবরণ জেনে আমরা নিশ্চিত হয়েছি ওটা মাহফুজের লাশ। আমাদের কয়েকজন বন্ধু বোট নিয়ে সোনাদিয়া গেছেন। তারা পৌঁছলে পুরোপুরি নিশ্চিত হতে পারবো।

NO COMMENTS

Leave a Reply