Home আইন ও আদালত মেজর সিনহার সহযোগী সিফাতের জামিন : মামলা তদন্তে র‌্যাব-১৫

মেজর সিনহার সহযোগী সিফাতের জামিন : মামলা তদন্তে র‌্যাব-১৫

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ১০ আগষ্ট।।

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়া শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর সিনহা মো.রাশেদ খানের সহযোগী স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্ট্যাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী রিফাতুল ইসলাম সিফাতের জামিন আবেদন মনঞ্জুর করেছে আদালত। তার বিরুদ্ধে পুলিশের দায়ের করা দুটি মামলা তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে র‌্যাব-১৫কে। মামলার তদন্ত প্রতিবেদন না আসা পর্যন্ত সিফাতের জামিন মঞ্জুর করেন বিচারক।
১০ আগষ্ট সোমবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ( টেকনাফ- ৩ ) এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক তামান্না ফারাহ এই আদেশ দেন।
এর আগে রোববার
সিফাতের আইনজীবি মাহবুবুল আলম টিপু জানান , পুলিশের পক্ষ থেকে নিহত মেজর সিনহা মো.রাশেদ খানের সহযোগী রিফাতুল ইসলাম সিফাতের বিরুদ্ধে হত্যা ও মাদকের (জিআর-৬৯৫, জিআর-৬৯৬) দুটি মামলা দায়ের করা হয়। রোববার দুটি মামলায় সিফাতের জামিন মনঞ্জুর করা হয় এবং মামলার তদন্ত সাপেক্ষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বদলিয়ে তদন্তের দায়িত্ব র্যাবের হাতে ন্যস্ত করা হয়েছে।
এরআগে গত রোববার সিফাতের জামিন প্রার্থনা করা হলে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ( টেকনাফ- ৩ ) এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক তামান্না ফারাহ শুনানি শেষে জামিনের জন্য আবার আজ সোমবার দিন ধার্য করেছিল।
গত ৩১ আগষ্ট পুলিশের গুলিতে নিহত হন সাবেক মেজর সিনহা মো. রাশেদ। এঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা তিনটি দায়ের করেেন। একটি রামু থানায় আর ২টি টেকনাফ থানায়।
নীলিমা রিসোর্টে থেকে মাদক উদ্ধার দেখিয়ে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্ট্যাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী শিপ্রা রানী দেবনাথের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ।
মেজর সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা ও মাদক আইনে মামলা করেন সিফাতের বিরুদ্ধে। সিফাত ও শিপ্রা দেবনাথকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছিল। পুলিশের দায়ের করা মামলায় দুইজনই জামিন পেল।
নিহত সিনহার বোনের দায়েরকৃত হত্যা মামলায় টেকনাফ মডেল থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের আইসি পরিদর্শক লিয়াকত সহ ৭ জন পুলিশ বরখাস্ত এবং কক্সবাজার কারাগারে রয়েছেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply