Home আইন ও আদালত কক্সবাজারে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইউপি সদস্য বখতিয়ারসহ দুইজন মাদক কারবারী নিহত

কক্সবাজারে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইউপি সদস্য বখতিয়ারসহ দুইজন মাদক কারবারী নিহত

টিসি জি ট্রিবিউন :শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার, ২৪ জুলাই।কক্সবাজারে টেকনাফে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুইজন মানক কারবারী নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একজন বর্তমান ইউপি সদস্য রয়েছে।শুক্রবার (২৪ জুলাই) ভোরে টেকনাফের হ্নীলা ওয়াব্রাং-এ সৌদি প্রবাসী নুর হোসেনের আকাশী গাছের বাগানে এ বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশের দাবী, তারা দুজনই শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে থানায় মাদক মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় ৫ টি দেশীয় তৈরি এলজি, ইয়াবা বিক্রির ১০ লাখ নগদ টাকা, ১৭ রাউন্ড কার্তুজ, ১৩ রাউন্ড কার্তুজের খোসা এবং ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
নিহত একজন রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত মেম্বার মৌলভী বখতিয়ার আহমেদ (৫৫)। তিনি উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদকও। অপরজন রোহিঙ্গা নাগরিক একই এলাকার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইউছুপ আলীর ছেলে রোহিঙ্গা মো. তাহের (২৭)।

পুলিশ জানায়, ওই দিন রাতে টেকনাফের হ্নীলা ওয়াব্রাং-এ অভিযান চালিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা মো. ইউনুছকে ২০ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক করে। তার স্বীকারোক্তিতে পুলিশ উখিয়ার কুতুপালং ই ব্লকের ইউচুপ আলীর ছেলে ও স্থলবন্দর ব্যবসায়ী রোহিঙ্গা মো. তাহেরকে আটক করে। তার ভাষ্যমতে,

উদ্ধার ইয়াবার প্রকৃত মালিক উখিয়া কুতুপালংয়ের ৯ নম্বার ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মৌলভী বখতিয়ার (৫৫) ওরফে বখতিয়ার আহম্মদ মেম্বারের বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে। এসময় বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ইয়াবার বিক্রির নগদ ১০ লাখ টাকা এবং ২০ হাজার ইয়াবাসহ বখতিয়ার মেম্বারকেও আটক করা হয়।

শুক্রবার ভোরে তাদেরকে নিয়ে মিয়ানমার থেকে আনা হ্নীলার ওয়াব্রাংয়ে আকাশী গাছের বাগানে ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারে গেলে তাদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে।এসময় এএসআই মাজহারুল ইসলাম, কনস্টেবল মো. শহিদুল ইসলাম, মো. হাবিব এবং আবু হানিফসহ ৪ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। এতে আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুড়ে।

পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ মাদক ব্যবসায়ীদের উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।এ বিষয়ে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, মাদক বিরোধী অভিযানে ইউপি সদস্যসহ দুজন নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ইয়াবা, অস্ত্রসহ গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। এই বিষয়ে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

পুলিশ বলছে, উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নিহত বখতিয়ারের হাত ছড়িয়ে ছিল উখিয়া জুড়েই। অবৈধ অস্ত্র, ইয়াবা ব্যবসা আর মানব পাচার— সব অপরাধের শিরোমণিও ছিলেন তিনি। জঙ্গি রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়া ও চোরাচালানের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে গ্রেফতার হন তিনি।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের (২৪ জুলাই) ভোর পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ৫৬ জন নিহত হয়েছে। তার মধ্যে ২৬ জন সক্রিয় ডাকাত ছিল। বাকিরা মাদক কারবারি।

NO COMMENTS

Leave a Reply