Breaking News
Home / আইন বিচার / ০১ টি মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়ার জন্য ফ্লাইওভারের উপর শ্বাসনালী কেটে হত্যার চেষ্টায় কিশোর গ্যাং এর ০৩ সদস্য সহ ০৪ জন আটক ।

০১ টি মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়ার জন্য ফ্লাইওভারের উপর শ্বাসনালী কেটে হত্যার চেষ্টায় কিশোর গ্যাং এর ০৩ সদস্য সহ ০৪ জন আটক ।

০১ টি মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়ার জন্য বাসা হইতে ডেকে নিয়ে পতেঙ্গা মডেল থানাধীন বোট ক্লাব সংলগ্ন কন্টেইনার টার্মিনাল ফ্লাইওভারের উপর শ্বাসনালী কেটে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় কিশোর গ্যাং এর ০৩ সদস্য সহ ০৪ জন আটক ।

 

আয়াজ সানি সিটিজি ট্রিবিউন চট্টগ্রাম;

 

চট্টগ্রামে পতেঙ্গা মডেল থানাধীন পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনাল ফ্লাইওভারের পদ্মা মেঘনা যমুনা হইতে এয়ারপোর্টগামী লেইনের মাঝখানে।০৪/০২/২০২২ তারিখ রাত ০২.৪৫ টায়া,শিপন, নাজমুল, আরিফ, সোহাগ, জামসেদ বন্ধু। ভিকটিম রবিউল শিপনের পরিচিত। শিপন ভিকটিমের নিকট থাকা VIVO Y12 মোবাইল সেটটি তার নিকট রেখে ব্যবহার করতে চায়। রবিউল দিতে রাজি হয়নি। শিপন জানে রবিউলের নারীর নেশা আছে। জানা গেছে

০৩/০২/২০২২ তারিখ শিপন তার অপর বন্ধুদের নিয়ে পরিকল্পনা করে রবিউলের মোবাইলটি কেড়ে নেওয়ায় এবং একই সাথে হালিশহর কলকা সিএনজি এলাকায় ভাসমান পতিতাদের নিকট আসা খর্দ্দরকে ভয় দেখাইয়া টাকা আদায় করার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে নিউ মার্কেট এলাকার ফুটপাতের দোকানদর হইতে ০৩ টি ছোরা কিনে আনে।

আসামী

শিপনের নির্দেশে নাজমুল তাহার ব্যবহৃত মোব্ইাল হতে ভিকটিমের মোবাইল – নাম্বারে ফোন করে এবং জানায় যে জিনিস (খারাপ মেয়ে) আছে। এতে রবিউল রাজি হয়ে যায় এবং নিজ বাসা হতে বের হয়ে পাহাড়তলী বিটাক মোড়ে আসে। শিপন তখন সিএনজি চালক সাইফুলকে ফোন করে বিটাক মোড়ে আসতে বলে।

আসামী

০৬ জন একই সিএনজিতে উঠে আউটার রিং রোড দিয়ে চৌচালা এলাকায় আসে। সকলেই সিএনজি হতে নামে। সেখানে শিপন রবিউলের নিকট হইতে মোবাইল এবং মানিব্যাগ কেড়ে নেয়। রবিউল কোন ধরনের প্রতিবাদ করেনি। সিএনজি নিয়ে তারা বড়পুল যায়। সেখানে রবিউল নামতে চাইলে অন্যরা নামতে দেয়নি। এ সিএনজি নিয়ে তারা পতেঙ্গা মডেল থানাধীন ঘটনাস্থলে আসে। ফ্লাইওভারের উপর সকলে নামে।

সিএনজিকে সামনের দিকে গিয়ে দাড়াতে বলে। রবিউল ঝামেলা করতে পারে এই সন্দেহে শিপনের নির্দেশে আরিফ এবং নাজমুল রবিউলের হাত ধরে রাখে। সোহাগ রবিউলের গলায় ধারালো ছোরা দ্বারা পোঁচ মারে। এতে রবিউলের শ্বাসনালী কেটে ফাঁক হয়ে যায়। মৃত্যু নিশ্চিত করার জন্য সোহাগ রবিউলের বুকেও ছুরি মারে।

আসামী

তারা সকলে ভিকটিম’কে ফেলে রেখে সিএনজি নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। ভিকটিম গলা কাটা অবস্থায় হেটে জহুর বেইজ এর এলপি পোষ্টে পৌছায় এবং সাহায্য চায়। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, চট্টগ্রামে ভর্তি করে। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রবিউল চিকিৎসাধীন আছে। এই ঘটনায় তাহার বাবা বাদী হয়ে পতেঙ্গা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা।

ভিকটিম কাহারো নাম বলতে পারেনি। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ঘটনায় জড়িত আরিফ, নাজমুল, শিপন এবং সিএনজি চালক সাইফুল’কে নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ সহ চট্টগ্রামের পাহাড়তলী, আকবরশাহ এলাকায় অভিযান চালিয়ে  ০৬/০২/২০২২ তারিখ রাতে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

সোহাগ এবং জামসেদ পলাতক আছে। আসামিদের মধ্যে আরিফ এবং সাইফুল বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন।

এই মামলার ভিকটিম,রবিউল আলম (১৭),মামলার বাদী ও ভিকটিমের বাবা- নুরুল ইসলাম বলে জানা যায়

গ্রেফতারকৃত আসামীরা- ১. মোকসেদুর রহমান প্র: শিপন(১৭), ২. মোঃ নাজমুল হাসান(১৭), ৩. মোঃ আরিফুল ইসলাম স্বপন(১৯), এবং ৪. মোঃ সাইফুল ইসলাম(৩২),বলে জানা যায়,

আসামী

মূল আসামী – ১। শিপন (১৭) ০৮ নং রুটে বাসের হেলপার, ২। নাজমুল (১৭) বিটাক মোড়ের কার কাটিং ফ্যাক্টরীর শ্রমিক, ৩। আরিফ (১৯) কাটিং ফ্যাক্টরীর শ্রমিক, ৪। সোহাগ (১৪) ০৮ নং রুটের বাসের হেলপার, ৫। জামশেদ, সিডিএ মার্কেটের আয়েশা হোটেলের বাবুর্চীর সহকারী, ৬। সাইফুল ইসলাম (২৬) সিএনজি চালক।

ঘটনায় ব্যবহৃত ০১ টি ছোরা এবং সিএনজি নং- চট্টমেট্রো-থ-১৩০৮৫৪।

About Ayaz Ahmed

Check Also

মৃত্যু রোধ ও ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের কোন বিকল্প নেই :স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মৃত্যু রোধ ও ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের কোন বিকল্প নেই :স্বাস্থ্যমন্ত্রী   আয়াজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *