Breaking News
Home / আইন বিচার / সহজোটে ছিনতাই কারী ১০ জন ডাকাতের গ্রুপের ০৭ ডাকাত গ্রেফতার, অস্ত্র, কার্তুজ,ছোরা,ও নগদ টাকা উদ্ধার

সহজোটে ছিনতাই কারী ১০ জন ডাকাতের গ্রুপের ০৭ ডাকাত গ্রেফতার, অস্ত্র, কার্তুজ,ছোরা,ও নগদ টাকা উদ্ধার

সহজোটে ছিনতাই করে ওরা ১০ জন ডাকাত গ্রুপ , ০৭ ডাকাত গ্রেফতার , ০১ টি দেশীয় এলজি , ০২ রাউন্ড কার্তুজ ও ০১ টি টিপ ছোরা এবং লুণ্ঠিত ২৫,০০০ / – টাকা উদ্ধার ।

 

সিটিজি ট্রিবিউন চট্টগ্রাম;

 

চট্টগ্রাম নগরীতে একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্যরা, কখনো রাস্তায় , কখনো বাসে ধাক্কা দিয়ে মারামারির পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ।তারা কখনো ব্যাংক থেকে বের হওয়া গ্রাহকদেরকে টার্গেট করে তার পিছু নেয় ।একটু নির্জন স্থানে গেলে সেখানে গিয়ে কৌশল অবলম্বন করে ধাক্কা দেয় ।

গ্রাহক পরে যাওয়ার সাথে সাথেই তারা অস্ত্র শস্ত্র বের করে খুন জখমের ভয়ভীতি দেখিয়ে যা থাকে সর্বস্ব লুটে নেয়।আবার তারা কখনো বিভিন্ন প্রেমিক প্রেমিকাকে টার্গেট করে,নির্জন স্থানে প্রেমিক প্রেমিকা দেখলে প্রেমিকাকে তাদের বোনের সাথে সম্পর্ক আছে বলিয়া ছবি দেখানোর ভান করে মোবাইল নিয়ে নেয় এবং মোবাইল দিতে না চাইলে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়া সহ সর্বস্ব লুটে নেয় ।

তারা বাসে যাত্রী বেশে উঠে টার্গেটকৃত যাত্রীকে ধাক্কা দিয়ে তার সাথে মারামারি পরিস্থিতি সৃষ্টি করে সর্বস্ব লুটে নেয় ।তারা বেশিরভাগই আঞ্চলিক ভাষায় ও সাধু ভাষায় কথা বলে।এই প্রক্রিয়ায় আসামীরা দীর্ঘদিন ধরে নগরীতে ডাকাতি করিয়া আসিতেছে ।

ঘটনার বিবরণ বাদী এম এইচ হজ্ব গ্রুপ নামক প্রতিষ্ঠানে রিজার্ভেশন অফিসার পদে চাকুরি করেন । পাশাপাশি মালিকের নির্দেশে সবসময় তিনি উক্ত প্রতিষ্ঠানের ব্যাংকিং লেনদেনের সকল কার্যক্রম সম্পাদন করে থাকেন । এরই ধারাবাহিকতায় বাদী ২৪/০১/২০২২ তারিখ বেলা অনুমান ১২.৩৫ ঘটিকার সময় তিন পুলের মাথাস্থ আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক হইতে তাহার প্রতিষ্ঠানের মালিক তথা মইন উদ্দিন হাসান নামক হিসাব হইতে নগদ ১,০০,০০০ / – টাকা উত্তোলন করেন ।

উক্ত টাকা উত্তোলন করে ইং ২৪/০১/২০২২ তারিখ বেলা অনুমান ১২.৪০ ঘটিকার সময় ব্যাংক হইতে অফিসের উদ্দেশ্যে পাঁয়ে হেঁটে রওয়ানা করে কোতোয়ালী থানাধীন জুবিলী রোডস্থ রয়েল টাওয়ারের বিপরীত পার্শ্বে রাস্তার উপর পৌঁছামাত্রই অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জন আসামী বাদীকে পিছন দিক হইতে ধাক্কা দেয় ।বাদী উক্ত স্থানে রাস্তার উপর পড়ে গেলে উঠে দাঁড়ানোর সাথে সাথে অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৬ জন আসামী পিছন দিক হইতে দৌঁড় দিয়া বাদীর সামনে চলিয়া আসে।

বাদী তাহাদেরকে ধাক্কা দেওয়ার কারন জিজ্ঞাসা করামাত্রই তাহারা বাদীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করিয়া এলোপাতাড়ী কিল ও ঘুষি মারিয়া বাদীর মুখে ফুলা জখম করে ।

একপর্যায়ে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন আসামীদের মধ্যে কয়েকজন আসামীর হাতে থাকা অস্ত্র দিয়া বাদীকে খুন করার ভয়ভীতি প্রদর্শন করিয়া তাহার প্যান্টের ডান পকেটে থাকা নগদ ১,০০,০০০ / – টাকা জোরপূর্বক ছিনাইয়া নেয় । উক্ত আসামীদেরকে দেখিলে বাদী চিনিবে এবং তাহারা সকলেই একে অপরের সাথে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ও সাধু ভাষায় কথা বলে ।

অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জন আসামী বাদীর নিকট হইতে ১,০০,০০০ / – ( এক লক্ষ ) টাকা নেওয়ামাত্রই দৌঁড় দিয়া আর এস রোডের দিকে চলিয়া যায় । অভিযান প্রক্রিয়া  ঃ মামলা রুজুর পর তদন্তে নেমে টিম কোতোয়ালী ঘটনাস্থলের আশপাশের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে । বিশ্বস্থ গুপ্তচর নিয়োগ করে ।

তাৎক্ষনিক অভিযান পরিচালনা করিয়া গোপন সংবাদের প্রেক্ষিতে ২৬ / ১২ / ২০২১ খ্রিঃ তারিখ রাত ০০:৪৫ ঘটিকার সময় আসামী ১। মোঃ রকি ( ২৪ ) , ২ । রফিকুল ইসলাম বাপ্পি ( ২৭ ) , ৩। মোঃ সাইফুল ইসলাম ( ৩০ ) , ৪। মোঃ তৌহিদুল ইসলাম তপু ( ২৪ ) কে নয়াবাজার বিশ্বরোড এলাকা হইতে গ্রেফতার করা হয় ।

ধৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে তাহারা তাহাদের নাম ঠিকানা প্রকাশ সহ ঘটনার কথা স্বীকার করে এবং পলাতক আসামীদের নাম ঠিকানা প্রকাশ করে । তাহাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইং ২৬/০১/২০২২ তারিখ রাত ০১.৩০ ঘটিকার সময় ৫ নং আসামী মোঃ জসিম উদ্দিন কে পুনরায় হালিশহর থানাধীন নয়াবাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে গ্রেফতার করা হয় এবং তাহার হেফাজতে থাকা লুণ্ঠিত নগদ ২৫,০০০ / – টাকা উদ্ধারপূর্বক জব্দ করা হয় ।

ধৃত ১-৫নং আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে তাহারা ঘটনার কথা স্বীকার সহ পলাতক আরো আসামীদের কথা স্বীকার করে । তাহাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইং ২৬/১২/২০২২ তারিখ রাত অনুমান ০২.৩০ ঘটিকার সময় পলোগ্রাউন্ড মাঠের মেইন গেইটের বাম পাশে অন্ধকারজনক জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে আসামী ৬। মোঃ সাহাবুদ্দিন ( ৩২ ) ৭। মোঃ তাজুল ইসলাম ( ৩৪ ) দেরকে আটক করে ।

ধৃত আসামীদ্বয়ের দেহ তল্লাশী করিয়া ৬ নং আসামী সাহবুদ্দিন এর নিকট হইতে ০১ টি দেশীয় এলজি , ০২ রাউন্ড কার্তুজ ও ৭ নং আসামী মোঃ তাজুল ইসলাম এর হেফাজত হইতে ০১ টি টিপ ছোরা উদ্ধার করা হয় ।

পলাতক আসামীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে । ধৃত আসামীরা সকলেই একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্র । তারা দীর্ঘদিন যাবৎ চট্টগ্রাম মহানগরের বিভিন্ন এলাকায় ছিনতাই ও ডাকাতি করিতেছে বলিয়া স্বীকার করে ।

অভিযান পরিচালানা করেছেন – সহকারী পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম , অফিসার ইনচার্জ জনাব মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন , পিপিএম , পুলিশ পরিদর্শক ( তদন্ত ) জনাব চৌধুরী রেজাউল করিম , পুলিশ পরিদর্শক ( অপাঃ ) জনাব রুবেল হাওলাদার এসআই / মোঃ মোমিনুল হাসান ,

এসআই / নয়ন বড়ুয়া , এসআই / শিমুল চন্দ্র দাস , এএসআই / অনুপ কুমার বিশ্বাস , এএসআই / রণেশ বড়ুয়া , এএসআই / সাইফুল আলম সর্ব কোতোয়ালী থানা , সিএমপি , চট্টগ্রাম ।

উদ্ধারকৃত আলামত হল- ০১ টি দেশীয় এলজি , ০২ রাউন্ড কার্তুজ , ০১ টি টিপ ছোরা ও লুণ্ঠিত নগদ ২৫,০০০ / – টাকা ।

 

About Ayaz Ahmed

Check Also

সরকারী ছুটিকে কাজে লাগিয়ে বান্দরবানে রাতের আধারে পাহাড় কাটার মহোৎসব

সরকারী ছুটিকে কাজে লাগিয়ে বান্দরবানে রাতের আধারে পাহাড় কাটার মহোৎসব   সিটিজি ট্রিবিউন বান্দরবান প্রতিনিধি, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *