Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / মহারণে জিতে ফাইনালে মাদ্রিদ

মহারণে জিতে ফাইনালে মাদ্রিদ

মহারণে জিতে ফাইনালে মাদ্রিদ

 

সিটিজি ট্রিবিউন;

 

ক্লাব ফুটবলের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ও আকর্ষণীয় ম্যাচ গুলোর মধ্যে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার ম্যাচ থাকবে ওপরের দিকেই, বুধবার এমনই এক ম্যাচে সৌদি আরবের কিং ফাহাদ স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় দুই দল যাতে বার্সেলোনাকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করে সুপারকোপা ডি স্পানা বা স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে পৌঁছে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এ নিয়ে টানা ৫ এল ক্লাসিকো জিতল রিয়াল মাদ্রিদ আর সর্বমোট এল ক্লাসিকো জয়ের সংখ্যাটা নিয়ে গেল ১০০ তে।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেজ, সার্জিও রামোসের মতো খেলোয়াড়দের বিদায়ে এল ক্লাসিকো কিছুটা রঙ হারিয়েছে বটে তবে এখনো দু দল মাঠে নামলে উত্তেজনার পারদটা ওপরের দিকেই থাকে দর্শকদের মাঝে। তার ঝাঁঝ দেখা গেল স্প্যানিশ কাপের সেমিফাইনালেও।

খেলার শুরুতে লাগামটা ছিল মাদ্রিদের হাতেই এগিয়েও যেতে পারতো ম্যাচের ১২ মিনিটেই, রিয়ালের মাঝমাঠের জাদুকর লুকা মদ্রিচের বাড়ানো বলে শট নেন এই মৌসুমে নিজেকে নূতন ভাবে আবিষ্কার করা ভিনিসিয়াস জুনিয়র কিন্তু তার শট ঠেকিয়ে দেন বার্সা কিপার স্টেগান।

১৯ মিনিটেও সুযোগ এসেছিলো মাদ্রিদের সামনে, এবার ভিনিসিয়াসে বাড়ানো বলে মার্কো এসেনসিওর শট ঠেকিয়ে দেন স্টেগান। তবে ২৫ মিনিটে আর মাদ্রিদকে রুখতে পারেনি বার্সা আগুনে ফর্মে থাকা বেঞ্জেমার পাস থেকে বল পেয়ে বাঁ পায়ের দারুণ ফিনিশিংয়ে বার্সার জালে বল জড়ান ভিনিসিয়াস জুনিয়র।

তবে লীডটা ধরে রাখতে পারেনি মাদ্রিদ, গোল হজম করার পরপরই যেন জেগে ওঠে বার্সেলোনা। ৩০ মিনিটে সুযোগও পেয়ে যায় গোল শোধের। ফরাসি তারকা উসমান ডেম্বেলের ক্রস থেকে লুক ডি ইয়ং হেড করেন রিয়ালের গোলবার অভিমুখে তবে রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া ছিলেন জায়গামতোই।

২ মিনিট পর আবার লুক ডি ইয়ংয়ের হেড এবার ক্রস আসে জর্ডি আলবার পা থেকে, এ যাত্রায়ও মাদ্রিদের ত্রাতা কর্তোয়া। ৪০ মিনিটে আবারও বার্সার আক্রমণ, ডেম্বেলের পা থেকে পাওয়া বল জায়গামতো রাখতে পারেননি মাত্রই ইপিএল থেকে বার্সায় নাম লেখানো ফেরান তোরেস। তবে পরের মিনিটেই গোল পেয়ে যায় বার্সেলোনা।

 

রিয়াল সেন্টার ব্যাক এডার মিলিতাওকে ফাঁকি দেওয়া বল লুক ডি ইয়ংয়ের পায়ে লেগে আশ্রয় নেয় মাদ্রিদের জালে। মাঝে ৩৮ মিনিটে মার্কো এসেনসিওর জোরালো শট বার্সা কিপার না ঠেকালে বিরতির আগেই দুই গোলের ব্যবধানে এগিয়ে যেতে পারতো রিয়াল মাদ্রিদ। ১-১ সমতা নিয়ে বিরতিতে যায় দুই দল।

বিরতির পর আক্রমণের ধার বেড়ে যায় বার্সেলোনার, তবে গোল করার বদলে গোল খেয়ে বসে জাভির শিষ্যরা। ৭২ মিনিটে মাদ্রিদ কাপ্তান বেঞ্জেমার গোলে আবারও এগিয়ে যায় মাদ্রিদ যদিও এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিলো আরো ৩ মিনিট আগেই, রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান তারকা রদ্রিগোর কাছ থেকে পাওয়া বলে নেয়া বেঞ্জেমার শট বার্সা কিপারকে ফাঁকি দিলেও ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। মাঝে দু দলই আক্রমণ করে গেলেও গোল পাচ্ছিলেন না কেউই।

অবশেষে ৮৪ মিনিটে জর্দি আলবার মাপা ক্রস থেকে লাফিয়ে উঠে অসাধারণ হেডে গোল করেন অনেকদিন পর বার্সার জার্সিতে মাঠে ফেরা আনসু ফাতি, যদিও এই গোলের পিছনে মাদ্রিদ ডিএম ক্যাসেমিরো বা সেন্টার ব্যাক মিলিতাও কারো দায় কম নয়। এই গোল না হলে নির্ধারিত ৯০ মিনিটেই বার্সাকে পরাজিত করতে পারতো রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু তা না হওয়ায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

অতিরিক্ত সময়ের ৮ মিনিটে আবার এগিয়ে যায় রিয়াল মাদ্রিদ। লুকা মদ্রিচের বদলি হিসেবে নামা ফেদে ভালভার্দের গোলে ম্যাচে এগিয়ে যায় আনচেলোত্তির শিষ্যরা। এবার এসিস্ট আসে রদ্রিগোর পা থেকে।

ম্যাচের ১০১তম মিনিটে বার্সেলোনার সামনে সুযোগ ছিলো ম্যাচে ফিরে আসার তবে রিয়াল কিপার কর্তোয়ার নৈপূন্যে তা হয়নি। প্রথমে বার্সা স্কিপার বুসকেটসের জোরালো শট ফিরিয়ে দেন এই বেলজিয়ান তারকা পরমুহূর্তেই ফিরতি বলে শট নেন ডেম্বেলে এবারেও রিয়ালের ত্রাতা কর্তোয়া।

ম্যাচের ১২১ মিনিটে খেলার সবচেয়ে সহজ সু্যোগটা হয়তো পেয়েছিলেন রদ্রিগো তবে খালি পোস্টে বল রাখতে ব্যার্থ হন এই ব্রাজিলিয়ান।

৫৩% বল পজিশন ২০ শট ও ৬ অন টার্গেট শট নিয়েও পরাজয় মেনে নিতে হয় বার্সেলোনাকে। অপরদিকে রিয়ালের বল পজিশন ছিলো ৪৭% শট ১৪টি যার মধ্যে অন টার্গেট শটের সংখ্যা ৮। ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন মাদ্রিদ দলপতি করিম বেঞ্জেমা।

 

About Ayaz Ahmed

Check Also

গাজায় ইসরাইল গণহত্যা চালাচ্ছে – এমন প্রমাণ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে নেই

গাজায় ইসরাইল গণহত্যা চালাচ্ছে – এমন প্রমাণ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে নেই সিটিজিট্রিবিউন: মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *