Breaking News
Home / রাজনীতি / তারেক রহমান আমাকে বলেছিলেন— ভালো না লাগলে চলে যান: ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর

তারেক রহমান আমাকে বলেছিলেন— ভালো না লাগলে চলে যান: ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর

তারেক রহমান আমাকে বলেছিলেন— ভালো না লাগলে চলে যান: ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর
সিটিজিট্রিবিউন: প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর। দলটির জ্যেষ্ঠ নেতাদের মধ্যে অন্যতম তিনি। দলের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে সরকারবিরোধী আন্দোলন-সংগ্রামে সক্রিয় ছিলেন।
২৮ অক্টোবর বিএনপির মহাসমাবেশকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক সহিংসতার মামলায় গ্রেফতারও হয়েছিলেন। দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের মনোনয়ন জমার যেদিন শেষ দিন তার একদিন আগে জেল থেকে ছাড়া পান। পরদিন সারাজীবনের রাজনৈতিক প্লাটফর্ম ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে নৌকার হয়ে মনোনয়ন ফরম জমা দেন শাহজাহান ওমর। তার এই রাজনৈতিক ইউটার্ন আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাতে সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে যমুনা টেলিভিশনের এক আলোচনায় অংশ নেন ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর বীর উত্তম। সেখানে বিভিন্ন প্রশ্নের খোলাখুলি জবাব দেন তিনি।
আলোচনার একপর্যায়ে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, বিএনপির সিনিয়র নেতাদের কারও সঙ্গে আপনার দ্বন্দ্ব ছিল?
জবাবে ব্যারিস্টার শাহজাহান বলেন, আমি এখনও বেগম জিয়াকে শ্রদ্ধা করি। তিনি সম্মানিত ব্যক্তি। তাকে সম্মান করাই যায়। তিনিও আমাকে স্নেহ করেন। এর পর ৪-৫ জন ছাড়া কাউকে তেমন যোগ্য মনে করি না।
বিএনপি ছাড়ার আগে বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের সঙ্গে কী আনুষ্ঠানিক কোনো কথা হয়েছিল?
জবাবে ব্যারিস্টার শাহজাহান বলেন, অতিনিকটবর্তী সময়ে কথা হয়নি। তবে এর আগে একাধিকবার কথা বলেছি। সেখানে জানিয়েছি দলে পরিবর্তন আনা দরকার। এভাবে চলতে পারে না।
তারেক রহমানের সামনেই বলেছি— আপনার দলের কিছু নেতা ছাড়া অন্যরা দল বিক্রি করে ও পোস্ট বিক্রি করে। কমিটিও বিক্রি করে। এটি চলমান থাকলে আমি দলে থাকব না।
এ সময় তারেক রহমান আমাকে বলেছিলেন— ভালো না লাগলে চলে যান। আমিও তখন বলেছিলাম— আপনাকে ধন্যবাদ। প্রতিবেদন:কেইউকে।

About kamal Uddin khokon

Check Also

মানুষ খেতে পারছে। একটা মানুষও না খেয়ে মরেনি: ওবায়দুল কাদের

মানুষ খেতে পারছে। একটা মানুষও না খেয়ে মরেনি: ওবায়দুল কাদের সিটিজিট্রিবিউন: দেশে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে না …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *