Breaking News
Home / গণমাধ্যম / আলোচিত জয়নাল আবেদীন হাজারী আর নেই

আলোচিত জয়নাল আবেদীন হাজারী আর নেই

বীর মুক্তিযোদ্ধা,দলের দুঃসময়ে সাহসের সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করে যিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে অবিচল ছিলেন,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক সংসদ সদস্য,প্রবীন রাজনৈতিকবীদ জয়নাল আবেদীন হাজারী ভাই আর নেই

মোহাম্মদ মাসুদ,সিটিজি ট্রিবিউন চট্টগ্রাম;

বীর মুক্তিযোদ্ধা,দলের দুঃসময়ে সাহসের সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করে যিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে অবিচল ছিলেন,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা, ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক সংসদ সদস্য,প্রবীন রাজনৈতিকবীদ জয়নাল আবেদীন হাজারী ভাই আর নেই।

আজ বিকেলে সোমবার বিকাল ৫টার দিকে রাজধানীর বেসরকারি হাসপাতাল ল্যাব এইড -এ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগে ইন্তেকাল করেছেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

 

ল্যাবএইড হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা মেহের এ খোদা জানান, সোমবার বিকেল আনুমানিক সোয়া ৫টায় কার্ডিয়াক বিভাগে লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জয়নাল হাজারীর মৃত্যু হয়। তিন দিন আগে তিনি হৃদরোগসহ নানা সমস্যা নিয়ে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি হন। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সোহরাব উজ্জামানসহ একাধিক চিকিৎসকের অধীনে মেডিকেল বোর্ড গঠন করে তার চিকিৎসা চলছিল। সোমবার সকালে তিনি আরেক দফা হৃদরোগে আক্রান্ত হন এবং লাইফ সাপোর্টে থাকাবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।ফেনী- ২ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন

বঙ্গবন্ধু হত্যা পরবর্তী আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করতে যার ভূমিকা ছিল অপরিসীম,শত অত্যাচার নির্যাতনে যিনি দলকে আকড়ে ধরে রেখেছিলেন,দলের দুঃসময়ে সাহসের সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করে যিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে অবিচল ছিলেন।

১৯৪৫ সালের ২৪ আগস্ট ফেনী শহরের সহদেবপুর নিবাসী হাবিবুল্লাহ পণ্ডিতের বাড়িতে আব্দুল গণি হাজারী ও রিজিয়া বেগমের সংসারে জন্ম জয়নাল আবেদীন হাজারীর। হাবিবুল্লাহ পণ্ডিত ছিলেন তার নানা।

জয়নাল হাজারী ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতি শুরু করেন। ছাত্রাবস্থায় ফেনী সরকারি কলেজে তৎকালীন ছাত্র মজলিশের (বর্তমান ছাত্র সংসদ) সাধারণ সম্পাদক (জিএস) ছিলেন। এরপর বৃহত্তর নোয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হন। পরে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য পদেও দায়িত্ব পালন করেন জয়নাল হাজারী।

সংসদ সদস্য হিসেবে তার শেষ মেয়াদে নানা বিতর্কে জড়ান জয়নাল হাজারী। এ কারণে ২০০৪ সালে দল থেকে বহিষ্কৃত হন। এরপর দীর্ঘদিন রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় ছিলেন তিনি।

জয়নাল হাজারী ১৯৮৪ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত ফেনী-২ (সদর) আসন থেকে ১৯৮৬,১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালে টানা তিনবার সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০১ সালের ১৭ আগস্ট দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান জয়নাল হাজারী। ফেনী থেকে হাজারিকা নামে প্রকাশিত একটি দৈনিকের সম্পাদকও তিনি।

নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে দেশে ফিরেন তিনি। পাঁচটি মামলায় ৬০ বছরের সাজা হয় তার।

এরপর ওই বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে আত্মসমর্পণ করলে আট সপ্তাহের জামিন পান হাজারী। পরে ১৫ এপ্রিল নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাকে পাঠানো হয় কারাগারে। চার মাস কারাভোগের পরে ২০০৯ সালের ২ সেপ্টেম্বর জামিনে মুক্ত হন তিনি

আগামীকাল ২৮ ডিসেম্বর মঙ্গলবার বাদ আছর ফেনী পাইলট স্কুল মাঠে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্টিত হবে।মরহুমের মৃত্যুতে আমি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি। তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। মহান আল্লাহ তায়ালা মরহুমকে জান্নাত নসীব করুন। আমিন।

About md Alauddin TNT

Check Also

বায়জিদে কিশোর গ্যাং এর ০৫ জন ডাকাত গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৭

চট্টগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামী এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে কিশোর গ্যাং এর ০৫ জনকে দেশীয় ধারালো অস্ত্রসহ গ্রেফতার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *