Home Authors Posts by tribune24

tribune24

40 POSTS 0 COMMENTS

0 72

নিষেধ করার পরও দীর্ঘদিন ধরে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সড়কে চলাচল করছে অসংখ্য ফিটনেসবিহীন মোটরযান। এগুলো নবায়ন করতে বার বার অনুরোধ করার পরও মালিকপক্ষ সেদিকে নজর দেয়নি। তাই এবার কঠোর হতে যাচ্ছে সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

আজ শুক্রবার এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে তারা জানায়, বিগত ১০ বছর বা তারও বেশি সময় ধরে যেসব যানবাহনের ফিটনেস নেই, তাদের আগামী ৩০ জুনের মধ্যে ফিটনেস নবায়ন করতে হবে। নয়তো গাড়িগুলোর রুট পারমিট ও রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হবে।

বিআরটিএর পরিচালক (ইঞ্জি.) স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১৮ এর ২৫ ধারা মোতাবেক বিআরটিএ হতে মোটরযানের ফিটনেস সার্টিফিকেট গ্রহণের আবশ্যকতা রয়েছে। তারপরও ডাটাবেজ পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ১০ বছরের বেশি সময় ধরে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মোটরযানের ফিটনেস নবায়ন করা হয়নি।

এমতাবস্থায় চলতি জুন মাসের ৩০ তারিখের মধ্যে নিজ নিজ মোটরযানের ফিটনেস নবায়নের জন্য মোটরযানের মালিকগণকে অনুরোধ করা হলো। নয়তো আগামী ১ জুলাইয়ের পর ফিটনেসবিহীন এসব মোটরযানসমূহকে ধ্বংসপ্রাপ্ত বা চিরতরে ব্যবহারের অযোগ্য হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

পাশাপাশি সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ এর ২৪ ধারা মোতাবেক সংশ্লিষ্ট মোটরযানের রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হবে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে তাকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাহারা খাতুনের ব্যক্তিগত সহকারী মুজিবুর রহমান।

তিনি জানান, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আজ সকাল ১০টার দিকে ইউনাইটেড হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করেন।

এর আগে তিনি হাসপাতালের এসডিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ১২টায় তার চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা বৈঠক করেন বলে জানান মুজিবুর রহমান।

গত ২ জুন দিবাগত রাতে জ্বর, অ্যালার্জিসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন অসুস্থতা নিয়ে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হন অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন। হাসপাতালে বেশ কয়েকবার পরীক্ষায় তার করোনাভাইরাস নেগেটিভ এসেছে।

সাহারা খাতুন দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ২০০৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। পরে মন্ত্রিপরিষদে রদবদল হলে তাকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

1 96

সম্প্রতি বিদ্যুৎ, খনিজ ও জ্বালানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, আগামী ৩০ জুনের মধ্যে গ্রাহকদের বকেয়া তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল একসঙ্গে পরিশোধ করতে হবে। নয়তো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রতিমন্ত্রীর এমন নির্দেশকে সাধারণ মানুষের সঙ্গে নির্দয় প্রতারণার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি মো. বাহারানে সুলতান বাহার।

আজ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, আগামী ৩০ জুনের মধ্যে বকেয়া তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল একসঙ্গে পরিশোধের নির্দেশ ও পরিশোধ না করলে পুনরায় বিলম্ব মাশুল ধার্য এবং বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের আল্টিমেটাম দিয়েছেন বিদ্যুৎ, খনিজ ও জ্বালানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী। এমন নির্দেশ সাধারণ মানুষের সঙ্গে নির্দয় প্রতারণার শামিল।

ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি বলেন, মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশ স্থবির হয়ে পড়েছে। মানুষের আয়-রোজগার প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। সাধারণ মানুষের পক্ষে খেয়ে-পড়ে বেঁচে থাকাই চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিয়েছে। এমন অবস্থায় গ্রাহকদেরকে এভাবে বাধ্য করা কোনোভাবে মানবিক কাজ হতে পারে না।

তিনি বলেন, দেশে করোনার প্রাদুর্ভাবের শুরুতে সাধারণ মানুষকে বিদ্যুৎ বিল দিতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছিল। তখন বলা হয়েছিল, গ্রাহকদের স্বার্থে গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিলের বিলম্ব মাশুল জুন পর্যন্ত মওকুফ করা হলো। পরে বিল পরিশোধ করলে কোনো সমস্যা হবে না। এতে করে মানুষও সরকারের কথায় আশাবাদী হয়ে বিল পরিশোধ করা থেকে বিরত থাকে।

কিন্তু দেশ স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার আগে এভাবে মানুষকে একসঙ্গে বিল পরিশোধের আল্টিমেটাম দেয়া প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের শামিল। একসঙ্গে এত বিল সাধারণ মানুষের ওপর বোঝা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। এমনকি কিছু কিছু জায়গায় ভুতুরে বিল আসলেও তা সমাধান করা হচ্ছে না, যোগ করেন সংগঠনটির এই নেতা।

সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, গ্রাহকের কথা চিন্তা করে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সময়সীমা আরো বাড়ানো এবং বিলম্ব মাশুল সম্পূর্ণ মওকুফ করা হোক। তিন মাস পর প্রতিমাসের সঙ্গে এক মাস করে বিল যোগ করে পরিশোধের সুযোগ দেয়া হোক।

চীনের বাজারে বাংলাদেশের মোট রপ্তানি পণ্যের ৯৭ শতাংশই শুল্ক মুক্ত প্রবেশের সুবিধা পেয়েছে। এর ফলে দেশটিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ৫ হাজার ১৬১টি পণ্য শুল্ক মুক্ত রপ্তানির সুবিধা পাবে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাঠানো বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে। চীনে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত মাহবুব উজ জামান বিষয়টি জানিয়েছেন বলে বার্তায় বলা হয়।

চীনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ১ জুলাই থেকে এ ঘোষণা কার্যকর হবে।

এ ব্যাপারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কূটনীতির এটা বড় অর্জন। বেইজিংয়ের এই ঘোষণার ফলে বাংলাদেশের ৯৭ শতাংশ পণ্যই শুল্ক মুক্ত সুবিধা পাবে। এক অর্থে এটাকে শত ভাগ শুল্ক মুক্ত রপ্তানি সুবিধাও বলা যায়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, অর্থনৈতিক কূটনীতির মাধ্যমে বিশ্বের অন্যান্য দেশের বাজারেও যাতে বাংলাদেশের পণ্য শুল্ক মুক্ত সুবিধা পায় সে প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় সেলিব্রেটিদের একজন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ খান আফ্রিদি করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। করোনার উপসর্গগুলো শরীর থেকে সম্পূর্ণ বিদায় নিয়েছে। গতকাল লাইভে এসে তিনি নিজেই এই তথ্য দেন। তবে দ্বিতীয় দফায় এখনো তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি।

শহীদ আফ্রিদি বলেন, প্রথম দুই দিন ছিল ভীষণ কঠিন একটা সময়। শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল খুব, এর মধ্যে একা বন্দি থেকে নিজেকে অসহায় মনে হচ্ছিল। এরপর নিজেকে বোঝানোর চেষ্টা করলাম, মন শক্ত করলাম। ইনশাআল্লাহ, আমি এখন সুস্থ।

বিশ্বের সব করোনা আক্রান্ত রোগীর প্রতি ইতিবাচক বার্তা দিয়েছেন শহীদ আফ্রিদি। তিনি বলেন, বিষয়টাকে খুব বেশি আমলে নেওয়ার প্রয়োজন নেই। নিয়মগুলো সঠিকভাবে পালন করার পাশাপাশি মনোবল অটুট রাখুন। কোনো কোভিড রোগী যদি নিজে থেকে হেরে না যায় তাহলে এই ভাইরাস তাকে হারানোর ক্ষমতা রাখে না।মাত্র ৫ দিনেই করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার বিষয়টাও ব্যাখ্যা করলেন পাকিস্তানের সাবেক এই অধিনায়ক। তিনি বলেন, ঘাবড়ে যাওয়ার কারণেই হয়তো আমরা বিষয়টাকে বড় করে দেখি। নিজেকে পরিবারের অন্যদের থেকে সম্পূর্ণ পৃথক করে কিছু নিয়ম পালন করতে হবে। আমি দিনে কয়েকবার করে কালোজিরা খেয়েছি। সঙ্গে লং, গরম পানি, চা তো ছিলই। এছাড়া পুষ্টিকর খাবার খাওয়া বাড়িয়ে দিয়েছি।

একজন ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করে চিঠি লিখেছেন ডিএমপি কমিশনার। পরবর্তীতে সেই চিঠি গণমাধ্যমে ফাঁস হয়ে যায়। এ ঘটনায় একাধিক সাংবাদিককে তলব করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

আজ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তারা জানায়, পুলিশের এমন পদক্ষেপ স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য হুমকি। অথচ এটা না করে পুলিশের উচিৎ ছিল দুর্নীতিবিরোধী কার্যক্রমে সাংবাদিকদের সহযোগী হিসেবে বিবেচনা করা।

এ বিষয়ে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘সাংবাদিকতার প্রতিষ্ঠিত নীতি হচ্ছে- সাংবাদিক তার সংবাদের উৎস প্রকাশ করবেন না। এখন যদি সাংবাদিককে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়, তাকে কে তথ্য সরবরাহ করেছেন, তাহলে ভবিষ্যতে দুর্নীতির ব্যাপারে কেউ আর মুখ খুলতে সাহস করবে না।’

যা কার্যত স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য বাধা হিসেবে গণ্য হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এভাবে গণমাধ্যমকর্মীদের চাপের মধ্যে রাখার নীতি আত্মঘাতী এবং সার্বিকভাবে জনস্বার্থবিরোধী। এর ফলে পুলিশের মতো একটি পেশাদার বাহিনী আদৌ তাদের প্রাতিষ্ঠানিক দুর্নীতি প্রতিরোধে আগ্রহী কী-না সেই প্রশ্নটি থেকে যায়।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, দুর্নীতির অভিযোগ উঠা আলোচিত সেই কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত হলে তার দৃষ্টান্তমূলক সাজা নিশ্চিত করা উচিত। কিন্তু পুলিশের মতো একটি সুশৃঙ্খলবাহিনী তা না করে বরং চিঠি কী করে গণমাধ্যমে ফাঁস হয়ে গেল সেটা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।তিনি বলেন, চিঠি কীভাবে ফাঁস হলো তা একান্তভাবে জানা প্রয়োজন হলে পুলিশের অভ্যন্তরীণ তদন্তে তা বের করা যেত। কিন্তু পুলিশ এই পথে না এগিয়ে উল্টো সাংবাদিকদের ওপর দৃশ্যমান চাপ তৈরি করছেন।

চাকরিরত, অবসরপ্রাপ্ত এবং তাদের পরিবারের সদস্যসহ (বাবা-মা ও সন্তান) সশস্ত্রবাহিনীতে ৪ হাজার ১৫৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে অধিকাংশই সশস্ত্রবাহিনীর সাবেক সদস্য। এ ছাড়া কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে বাহিনীটির ২৬ জন সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে তিন জন চাকরিরত ছিলেন।

মৃতদের মধ্যে দুই জন সৈনিক ও একজন মেসওয়েটার। তবে মারা যাওয়া দুই সৈনিক সড়ক দুর্ঘনায় আহত হয়ে আগে থেকে সংকটাপন্ন অবস্থায় ছিলেন।

সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের ভাটিয়ারির মিলিটারি প্যারেড গ্রাউন্ডে ৭৮তম বিএমএ দীর্ঘ মেয়াদি কোর্স এবং ৫৩তম বিএমএ স্পেশাল কোর্সের অফিসার ক্যাডেটদের কমিশন প্রাপ্তি উপলক্ষে আয়োজিত রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব তথ্য জানান।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সেনাপ্রধান বলেন, সেনাবাহিনীর মধ্যে ঢাকা, নবম পদাতিক ডিভিশনের আওতাধীন জাজিরা ক্যান্টমেন্ট এবং চট্টগ্রাম সেনানিবাসে দায়িত্বরত সৈনিকরা বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। অন্যান্য স্থানে আক্রান্তের সংখ্যা কম।

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে জানিয়ে সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, সশস্ত্রবাহিনীর সদস্যদের জন্য প্রত্যেকটি সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রিয়েল টাইম পিসিআর মেশিন বসানোর পাশাপাশি আমাদের পর্যাপ্ত টেস্টিং কিট রয়েছে। ফলে কোভিড-১৯ টেস্ট করানোর জন্য আমাদের অন্য কোথাও যেতে হয় না। কর্মরতদের পাশাপাশি আমরা সাবেক সেনা সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যদরও টেস্ট করাচ্ছি।

সেনাপ্রধান আরো বলেন, কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় প্রয়োজনীয় সব মেশিন বিদেশ থেকে আনা হয়েছে। আইসিইউতে ভেন্টিলেশন ও অক্সিজেন সাপোর্টের সুযোগ-সুবিধাও অনেকাংশে বাড়ানো হয়েছে। এ ছাড়া আমরা অনেক মাস্ক, হ্যান্ডগ্লোভস ও স্যানিটাইজার কিনেছি। বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকেও সহযোগিতা পেয়েছি ও পাচ্ছি।

প্রত্যেক সেনানিবাসে সেনা সদস্যের সুরক্ষায় যথাযত ব্যবস্থা নেওয়ার পরও আক্রান্তের ঘটনা ঘটছে। এটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে চাকরিরত সেনা সদস্যদের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা যাতে কম থাকে সেজন্য আমরা চেষ্টা করছি, বলেন সেনাপ্রধান।

জেনারেল আজিজ আহমেদ আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তার জন্য সেনাবাহিনীকে যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সেটা আমরা পেশাদারিত্বের সঙ্গেই পালন করে আসছি। এই পেশাদারিত্ব এখনো আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

0 61

রিয়াল মাদ্রিদের অনেক দিনের স্বপ্ন কিলিয়ান এমবাপ্পেকে দলে টানার। বরাবরই তাদের হতাশ হতে হয়েছে। এই তো কদিন আগেও প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) ক্রীড়া পরিচালক লিওনার্দো ঘোষণা দিয়েছেন, নেইমার ও এমবাপ্পে বিক্রির জন্য নয়। কারণ দুজনের সঙ্গেই ক্লাবের চুক্তির মেয়াদ আছে আরো দুই বছরের।

রিয়াল মাদ্রিদ অবশ্য আশা ছাড়ছে না এমবাপ্পের জন্য। ফরাসি সেনসেশনকে দলে টানার লড়াইয়ে রিয়ালের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠছেন তাদেরই কিংবদিন্ত ফুটবলার রোনালদো নাজারিও। ব্রাজিলের সাবেক এই স্ট্রাইকার স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল ভায়াদোলিদের মালিকানার অধিকাংশ শেয়ার কিনে নিয়েছেন। এখন তিনি স্বপ্ন দেখছেন এমবাপ্পেকে কেনার।

রোনালদোর সাধ আছে, কিন্তু সাধ্য নেই। এটাও জানিয়ে রাখলেন তিনি। বৃহস্পতিবার পৃষ্ঠপোষক স্যান্টেন্ডার ব্যাংকের সঙ্গে চুক্তি পর্ব অনুষ্ঠানে ব্রাজিল কিংবদন্তি বলেছেন, ‘আমি এমবাপ্পেকে কিনতাম (যদি ভায়াদলিদের কাছে রিয়াল মাদ্রিদের মতো অর্থ থাকতো)। একমাত্র ও-ই আমার খেলোয়াড়ি সময়টার কথা মনে করিয়ে দেয়।’

শুধু এমবাপ্পে নয়, বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের বিস্ময়বালক আর্লিং হাল্যান্ডের পারফরম্যান্সেও মুগ্ধ রোনালদো। তিনি বলেছেন, ‘হাল্যান্ড দুর্দান্ত একজন খেলোয়াড়। ও এখনো অনেক তরুণ এবং দারুণ একটা বছর কাটাচ্ছে। অনেক গোলও করেছে। দেখা যাক ও কোথায় শেষ করে।’

0 59

করোনাভাইরাস বিরতি পরবর্তী দারুণ সময় কাটছে বার্সেলোনার। স্প্যানিশ লা লিগায় দুই ম্যাচ খেলে দুটিতেই জয় তুলে নিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। আজ শুক্রবার লিগের ৩০তম রাউন্ডে সেভিয়ার মুখোমুখি হবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু মাঠে নামার আগেই জোড়া ধাক্কা খেতে হলো তাদের। ইনজুরিতে পড়েছেন সার্জি রবার্তো ও ফ্রেঙ্কি ডি জং।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দুই ফুটবলারের ইনজুরির খবরটি নিশ্চিত করেছে বার্সা। তারা জানিয়েছে, পাঁজরে চোট পেয়েছেন রবার্তো। ডাচ মিডফিল্ডার ডি জং ডান পায়ের ইনজুরিতে পড়েছেন। দুজনেই চোটের ঝুঁকিতে ছিলেন। তাই দুজনকে অনুশীলন করাননি বার্সা কোচ কিকে সেতিয়েন।

বার্সার সবশেষ দুটি ম্যাচেই খেলেছেন রবার্তো ও ডি জং। সেভিয়া ম্যাচেও দুজনকে প্রয়োজন ছিল কাতালানদের। কারণ এই ম্যাচে অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে বার্সাকে। এর কারণ পয়েন্ট তালিকার তিনে আছে ফর্মে থাকা সেভিয়া। দুইয়ে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান কমাতে মরিয়া হয়েই মাঠে নামবে সেভিয়া। এই ম্যাচটা আবার তাদের ঘরের মাঠে।

রবার্তো-ডি জংয়ের ইনজুরি কতটা গুরুতর সেটা জানায়নি বার্সা। আপাতত রবার্তোর পরিবর্তে একাদশে ঢুকে যেতে পারেন নেলসন সেমেদো এবং ডি জংয়ের বিকল্প আছেন কয়েকজনই। আর্তুরো ভিদাল, সার্জি বুসকেটস, ইভান রাকিটিচ কিংবা আর্থার মেলো- এদের একজনকে ডাচ তারকার জায়গায় দেখা যেতে পারে।

বার্সা কোচ কিকে সেতিয়েন অবশ্য হতাশ হচ্ছেন না। জোড়া ধাক্কার পরও নির্ভার থাকলেন তিনি, ‘ফ্রেঙ্কি (ডি জং) দারুণ একজন ফুটবলার। এই বাচ্চা ছেলেটা আমাদের অনেককিছু দিয়েছে। কিন্তু ওর পরিবর্তিত হিসেবে আমাদের কয়েকজন ফুটবলারই আছে। আশা করছি ও শিগগিরই মাঠে ফিরে আসবে।’

বার্সার ইনজুরির তালিকায় আরো কয়েকজন আছেন। উসমান ডেম্বেলে, স্যামুয়েল উমতিতি দীর্ঘদিন ধরেই মাঠের বাইরে আছেন। এর মধ্যে গুঞ্জন বেরিয়েছে আগস্টে মাঠে ফিরবেন ডেম্বেলে। যদিও বার্সা কোচ জানিয়ে দিয়েছেন, এই মৌসুমে আর ফেরা হচ্ছে না ফরাসি ফরওয়ার্ডের।

প্রসঙ্গত, লা লিগায় ২৯ ম্যাচ খেলে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। এক ম্যাচ কম খেলা রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে তাদের ব্যবধান পাঁচ পয়েন্টের। ৫১ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি তিনে আছে সেভিয়া।

0 57

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ বলছেন, দেশের করোনা পরিস্থিতির বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্যক উপলব্দি করেন। এই মুহূর্তে তিনিই দেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম ব্যক্তি। করোনা শুধু স্বাস্থ্যগত বিষয় নয়। এটি সামাজিক, অর্থনৈতিক, যোগাযোগ, ধর্ম, বাণিজ্য- অর্থাৎ জীবনের সকল উপজীব্যকে ঘিরে। কিন্তু তিনি স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়ে অধিকতর জোরালো নজর দিয়েছেন। সম্প্রতি তিনি দুই হাজার চিকিৎসক ও পাঁচ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যকর্মী এবং মেডিকেল টেকনোলোজিস্ট নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে এখন দীর্ঘস্থায়ী সক্ষমতার কাজ দ্রুতগতিতে শুরু হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত নিয়মিত বুলেটিনে উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি তার নিজের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, আমিও আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলাম। তবে সুস্থ হয়ে বেশ কিছু দিন থেকেই তিনি তার দপ্তরে আসছেন।

এ সময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক করোনা পরিস্থিতি মোকাবলোয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের দীর্ঘমেয়াদি কিছু পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। সেগুলো হলো-

কোভিড-১৯ পরীক্ষার কাজ সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে সম্প্রসারিত হবে।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় জেলা পর্যায় পর্যন্ত আরপিসিএফ পরীক্ষা যত দ্রুত সম্ভব সম্প্রসারিত হবে।

আরো নতুন নতুন এবং সহজে করা যায় এমন কোভিড-১৯ পরীক্ষার পদ্ধতি নিয়ে আসা হবে। উপজেলা হাসপাতাল পর্যন্ত এ ধরনের পরীক্ষা চালু করার প্রচেষ্টা নেওয়া হবে।

সকল জেলা হাসপাতালে আইসিইউ সুবিধা সম্প্রসারণেরা কাজ চলছে।

জেলা হাসপাতাল পর্যন্ত সকল সরকারি হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন সম্প্রসারণ করা হচ্ছে।

হাসপাতালগুলোতে ‘হাই ফ্লো ন্যাসাল ক্যানোলা’, অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর দ্রুত সরবরাহের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

পরীক্ষার কিট ও পিপিইর যাতে অভাব না হয়, সেজন্য সুপরিকল্পিত সংগ্রহ ও সরবরাহের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল যেন কোভিড ও নন কোভিড সকল রোগীর চিকিৎসা দেয় তার জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

বেসকারি হাসপাতালে মূল্য নির্ধারণ, তদারকি ও প্রয়োজনীয় সরকারি সহযোগিতার ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সরকারি ও বেসরকারি খাত যেন যৌথভাবে এই গুরু দায়িত্ব পালন করে সে বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হবে।

এ ছাড়া পূর্বঘোষিত জোনিং ব্যবস্থা যখন যেখানে যেমন প্রয়োজন তা কার্যকর করা হবে। এ ব্যাপারে একটি বিশেষজ্ঞ গ্রুপ কাজ করছে।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, আপনারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ওপর ভরসা রাখুন এবং বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির ওপর নজর রাখুন। বাংলাদেশ ব্যতিক্রমী কোনো দেশ নয়। আমাদের সর্বোচ্চ সামর্থে্য যা করা সম্ভব এবং যা বাস্তবমুখী – সরকার সে রকম ব্যবস্থাই নিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, যতদিন কোভিড থাকবে ততদিন প্রত্যেককে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতেই হবে। লক্ষণ থাকলে অবহেলা করবেন না। চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। চিকিৎসক ভাই-বোনদের প্রতি আবেদন, করোনা সন্দেহ হলে পরীক্ষার জন্য অপেক্ষায় না থেকে দ্রুত চিকিৎসা দিন। যেকোনো মূল্যে মৃত্যুর সংখ্যা হ্রাস করতে আমাদের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা নিতেই হবে। বয়স্কদের অধিকতর সতর্ক থাকারও পরামর্শ দেন তিনি।

এ ছাড়া বাগেরহাটে রোগীর আত্মীয়-স্বজনের হামলায় ডা. রাকিবের মৃত্যুতে দুঃখ প্রকাশ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দোষীদের খুঁজে বের করে ব্যবস্থার নেওয়ারও আহ্বান জানান তিনি। চিকিৎসদের উদ্দেশে তিনি বলেন, এই ঘটনা যেন তাদের মধ্যে কোনো প্রভাব না ফেলে। বিষয়টি সরকার দেখবে, আপনারা নিজ নিজ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করুন।